মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা : ঘরের এতো এতো কাজ করার পর বাইরে কাজ করতে যাওয়ার সময় কোথায়? অথচ নিজেকে আত্মনির্ভরশীল করে পরিবারের পাশে দাঁড়াতে চান, এমন গৃহিণী কিংবা শিক্ষার্থীদের সংখ্যা কম নয়।

এমন অনেক মহিলা আছেন যারা সংসারের কাজ করতে করতে অফিসে যাওয়ার সময়টা অবধি পান না। তবে তাঁদেরও ইচ্ছে হয় নিজে উপার্জন করে পরিবারের পাশে দাঁড়াতে। 

আজকে এই আর্টিকেলে আমরা সেসব মেয়েদের কথা ভেবেই কিছু সহজ ব্যবসার আইডিয়া তুলে ধরবো। এই ব্যবসাগুলো করতে আপনার না যেতে হবে বাইরে, না প্রয়োজন পরবে খুব একটা পুঁজির আর না দরকার পরবে বাঁধাধরা সময়ের।

আমরা এই আর্টিকেলে মহিলাদের জন্য ঘরে বসে করা যায় এমন কিছু অনলাইন ব্যবসার আইডিয়া তুলে ধরবো যা যেকোনো মহিলা কিংবা শিক্ষার্থীরা করতে পারবেন। তাহলে চলুন দেরি না করে এখনই জেনে নেয়া যাক মেয়েদের জন্য সহজ ব্যবসার কিছু আইডিয়া:

মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা করার ১০ টি আইডিয়া 

দৈনন্দিন জীবনের কর্মব্যস্ততায় অনেক মহিলারই বাইরে কাজ করতে যাওয়ার সময় হয়ে উঠে না। আবার অনেকে তাঁদের সরকারি কিংবা বেসরকারি চাকরি করার পাশাপাশি পার্ট টাইম জব করতে আগ্রহী।

তাঁদের কথা ভেবেই এখন আমরা এমন ১০ টি ব্যবসার কথা তুলে ধরবো যেগুলো ঘরে বসেই যেকোনো সময় খুব সহজেই করে ফেলা যাবে। তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা করার কিছু সহজ এবং লাভজনক উপায়;

১. ইউটিউব চ্যানেল 

মানুষ এখন টিভি দেখা থেকে ইউটিউবে যেকোনো ভিডিও দেখতেই বেশি সাচ্ছন্দ্যবোধ করে। এর কারণ হচ্ছে, ইউটিউবে সব বিষয়ের উপরই ভিডিও পাওয়া যায়। যেকোনো জিনিস যেকোনো সময় খুব সহজেই এই ইউটিউবের মাধ্যমে দেখতে পারা যায় বলে মানুষ এতে প্রচুর সক্রিয়।

আপনি যদি ঘরে বসে খুব সহজে ব্যবসা করতে চান তবে আপনাকে আমি এই ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে ব্যবসা শুরু করতে বলবো। এর জন্য আপনার তেমন একটা পুঁজির ও প্রয়োজন পরবে না।

আপনি খুব সহজেই ইউটিউবে ফ্রিতে চ্যানেল বানাতে পারবেন। এরপর আপনার কাজ হলো নিজে পছন্দ করেন কিংবা আগ্রহবোধ করেন এমন বিষয়ে ভিডিও বানিয়ে আপলোড করা। তা হতে পারে রান্নার রেসিপি, কোন বিষয়ে বিশেষ দক্ষতা (ক্রাফট, ছবি আঁকা, নাচ, গান), গেমিং ইত্যাদি।

এক্ষেত্রে যে বিষয়গুলোর উপর আপনি বেশি গুরুত্ব দিবেন তা হলো;

  • এমন বিষয়ে ভিডিও বানাবেন যার বর্তমান এবং ভবিষ্যত চাহিদা রয়েছে।
  • ভিউয়ার বা দর্শকরা বেশি পছন্দ করে এমন বিষয়ে ভিডিও বানাতে চেষ্টা করবেন।
  • প্রথমেই এমন বিষয় বেছে নিবেন যাতে আপনার পর্যাপ্ত জ্ঞান কিংবা দক্ষতা রয়েছে। মনে করুন আপনি খুব ভালো  রান্না করতে পারেন। তাহলে এই রান্নার রেসিপি দিয়েই বানিয়ে নিতে পারেন ভিডিও।
  • নিজের দক্ষতার সাথে যে বিষয়টা জোর দিবেন তা হচ্ছে,  নিজের পছন্দ কিংবা আগ্রহ।  আপনি অবশ্যই এমন বিষয়ে ভিডিও বানাবেন যে বিষয়ে  আপনার আগ্রহ কাজ করে। কখনই নিজের অপছন্দের বিষয়ে জোর করে কাজ করতে যাবেন না। তাতে হিতে বিপরীতই হবে।

আপনি এই ইউটিউব ভিডিওতে গুগল এডসেন্স করে কিংবা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করেও আয় করতে পারবেন।

২. ব্লগিং করে আয়

মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা এর মধ্যে ব্লগিং করে আয় করাটা খুবই লাভজনক এবং অনেকটাই সহজ উপায়। আপনার যদি লেখালেখি করতে ভালো লাগে এবং আপনার যদি লেখালেখির উপর ভালো দক্ষতা থাকে তাহলে ব্লগিংয়ের কথা ভেবে দেখতেই পারেন।

আপনি আপনার নিজের একটি ওয়েবসাইট খুলে তাতে বেশ ভালোমানের কিছু আর্টিকেল লিখে ফেলুন। তবে এক্ষেত্রে এমন বিষয় নিয়ে লিখবেন যার প্রতি পাঠকদের আগ্রহ কাজ করে। আপনাকে বেশ কিছু ভালোমানের ইউনিক, কপিরাইট ফ্রি এবং এসইও অপটিমাইজড আর্টিকেল আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করতে হবে।

যখন আপনার ওয়েবসাইটে ট্রাফিক বা ভিজিটর বেড়ে যাবে তখন আপনি গুগল এডসেন্সে আবেদন করতে পারবেন। এটা থেকেই আপনার আয় হবে আজীবন। 

তবে গুগল এডসেন্স ছাড়াও আপনি পেইড পার্টনারশিপ, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কিংবা এনডোর্সমেন্ট করেও আপনার ব্লগ থেকে আয় করতে পারবেন।

৩. ড্রপশিপিং

মহিলাদের জন্য ঘরে বসে আয় করার একটি আদর্শ বিজনেস হলো এই ড্রপশিপিং। ড্রপশিপিং বলতে বুঝায় আপনি একটি অনলাইন স্টোরের মালিক, কিন্তু আপনার নিজের কোনো পণ্য মজুদ থাকবে না।

এই ড্রপশিপিংয়ের জন্য আপনাকে প্রথমে বেছে নিতে হবে আপনি কোন শিল্পক্ষেত্রের কী ধরনের পণ্য বিক্রি করতে চান। এরপর কোনো একটি বিজনেস প্লাটফর্মে রেজিস্ট্রেশন করে আপনার অনলাইন স্টোরটি বানিয়ে নিতে হবে।

যখন কোনো ক্রেতা আপনার অনলাইন স্টোরটি থেকে কোনো পণ্য পছন্দ করে কিনতে চাইবেন তখন আপনি ডিস্ট্রিবিউটরের কাছে পণ্যটি অর্ডার করবেন। তাঁরাই পণ্যটি ক্রেতার কাছে পৌঁছে দিবে। 

মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা করার এটি খুবই লাভজনক একটি উপায়। এমন কতোগুলো প্লাটফর্ম আছে যেখানে আপনি খুব কম পুঁজিতে ব্যবসা শুরু করা যায় এবং কয়েকটিতে কোনো বিনিয়োগ ছাড়াই বিজনেস শুরু করতে পারবেন। 

Amazon FBA, Teespring, Shopify, এবং printful এমনই কিছু জনপ্রিয় প্লাটফর্ম ।  

৪. কন্টেন্ট রাইটিং 

কোনো বিনিয়োগ ছাড়াই যদি ঘরে বসে ব্যবসার চিন্তা করে থাকেন, তবে কন্টেন্ট রাইটিং হতে পারে আপনার জন্য আদর্শ বিজনেস।  দিন দিন ওয়েবসাইট কিংবা ব্লগের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর এই ওয়েবসাইটগুলোতে লিখার জন্য প্রয়োজন পরে কন্টেন্ট রাইটারদের।

আপনি যদি লেখালেখি করতে পছন্দ করেন এবং এ বিষয়ে মোটামুটি জ্ঞান থাকে তবে কন্টেন্ট রাইটিং করে ঘরে বসেই আয় করতে পারবেন ভালোমানের একটা এমাউন্ট।

৫. অনলাইন শিক্ষকতা

আমার আম্মু একজন প্রাইমারি স্কুল শিক্ষিকা ছিলেন। কিন্তু আমাদেরকে সময় দিতে একসময় এই সম্মানজনক পেশাটাকে উনার ছেড়ে দিতে হয়েছে। যদি সেই সময়টাতে অনলাইন শিক্ষকতার জন্য কোনো প্লাটফর্ম থাকতো তবে আমার আম্মুর জন্য কতোই না সুবিধা হতো!

আপনি কিন্তু চাইলে এখন ঘরে বসেই হয়ে উঠতে পারেন অনলাইন শিক্ষক। আপনার যদি অন্যদের শেখাতে ভালো লাগে এবং অন্যদের বোঝানোর ক্ষমতা থাকে তবে অনলাইনে শিক্ষকতা করেও কিন্তু ঘরে বসে আয় করতে পারবেন। 

তবে এক্ষেত্রে এমন বিষয় নিয়েও ভিডিও বা কোর্স বানাবেন যে বিষয় আসলেই মানুষের কাজে আসে। এবং আপনার কোর্সটি যেনো হয় খুব সাবলীল যাতে সবাই সহজেই বুঝতে সক্ষম হয়। 

৬. ঘরে তৈরি খাবারের ব্যবসা

ঘরে তৈরি খাবারের ব্যবসা হতে পারে মহিলাদের জন্য একটি লাভজনক এবং আদর্শ বিজনেস।  ঘরে তৈরি খাবারের আবার ব্যবসা হয় নাকি? এর জন্য তো প্রয়োজন হয় রেস্টুরেন্টের! 

আপনার মনে যদি এই ধরনের চিন্তাভাবনা থাকে, তবে আপনি সেই অতীতেই পরে আছেন। বর্তমানে ঘরে বসেই নিজের তৈরি খাবার বিক্রি করে আয় করছেন অনেক মহিলা। এর জন্য আপনার কোনো রেস্টুরেন্টের প্রয়োজন পরবেই না।

আপনার রান্নার হাত যদি ভালো হয় তাহলেই হবে। নিজের তৈরি সেরা খাবারগুলো দিয়েই শুরু করে দিন এই ব্যবসাটি। আর বর্তমানে হাতে তৈরি খাবার বিক্রির জন্য এতো এতো সহজ মাধ্যম রয়েছে যে আপনি অবাক হয়ে যাবেন। 

আপনি এফ কমার্সকে এই বিজনেসের ক্ষেত্রে খুব ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারেন। আর হ্যাঁ,  এর জন্য আপনার কোনো কমিশনেরও প্রয়োজন পরবে না। 

এছাড়াও  অনেক ফুড ডেলিভারি অ্যাপ রয়েছে যাদের দ্বারা আপনি খুব সহজেই ঘরে বসে আপনার হাতে তৈরি খাবার বিক্রি করতে পারবেন। Foodpanda, Foodpeon, Cookups, Foodtong ইত্যাদি এমনই কিছু অ্যাপস।

এই অ্যাপসগুলোতে রেজিস্ট্রেশন করলে, গ্রাহকরা নিজ থেকেই আপনার খাবার অর্ডার দিবে এবং রাইডাররাই আপনার খাবার নিয়ে গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দিবে। মাস শেষে ফুড ডেলিভারি অ্যাপের কোম্পানি থেকে আপনি পেমেন্ট পেয়ে যাবেন।

৭. অডিও ট্রান্সক্রিপশন

এটি মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা এর একটি সহজ এবং লোভনীয় উপায়। এর জন্য আপনার কোনো বিষয়ে খুব একটা দক্ষতারও প্রয়োজন পরবে না। তবে এক্ষেত্রে আপনার টাইপিং স্পিড ভালো হতে হয়।

মেয়েদের জন্য সহজ ব্যবসা

এমন অনেকে আছেন যারা ক্লায়েন্টদের দিয়ে পডকাস্ট বা অডিও ফাইলকে টেক্সট ফাইলে রূপান্তরিত করে নেন। আপনার কাজ হলো অডিও শুনে সেটাকে টাইপ করে টেক্সট ফাইলে রূপান্তরিত করা।

এই বিজনেসটি আপনি খুব সহজেই ঘরে বসে কম সময়েই করে ফেলতে পারবেন। এর জন্য দুটি জনপ্রিয়  প্লাটফর্ম হলো Speakwrite এবং TranscribeMe। 

৮. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং 

বর্তমান সময়ে খুবই জনপ্রিয় এবং লাভজনক ব্যবসা হলো এই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। আমরা প্রায় সবাই এই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে কম বেশি জানি।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলতে বুঝায় বিভিন্ন ই-কমার্স সাইটগুলোর পণ্যকে প্রমোট করে ঐ পণ্যের বিক্রির ব্যবস্থা করে দেওয়া। বিনিময়ে ই-কমার্স সাইটগুলো থেকে আপনাকে দেয়া হবে একটি ভালোমানের কমিশন।

আপনি এই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের কাজটি বিভিন্নভাবেই করতে পারবেন। নিজের ব্লগ কিংবা অন্য কারো ব্লগের মাধ্যমে অথবা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়েও আপনি এই বিজনেসটি ঘরে বসেই করতে পারবেন।

৯. সার্ভে করে আয়

আপনি যদি কোনো ধরনের বিনিয়োগ ছাড়াই বিজনেস করতে চান তবে সার্ভে হতে পারে  আপনার জন্য সেরা বিজনেস আইডিয়া।  এই ব্যবসাটি করতে আপনার কোনো বিষয়ে দক্ষতার ও প্রয়োজন পরবে না। 

এর জন্য সার্ভে করার ওয়েবসাইটগুগোতে আপনার একাউন্ট থাকা লাগবে। এরপর দিনে ২-৩ ঘন্টা ব্যয় করেই আপনি সার্ভেগুলো সম্পন্ন করতে পারবেন খুব সহজেই।

বিভিন্ন কোম্পানি তাঁদের পণ্যের গুণাগুণ কিংবা বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য জানার জন্য সার্ভে ওয়েবসাইটগুলোকে টাকা দিয়ে থাকে। নিজেরদের পণ্য সম্পর্কে কাস্টমারদের মতামত নিতেই এই সার্ভেগুলো করানো হয়ে থকে। 

১০. হাতের তৈরি জুয়েলারি

আপনি কি বিভিন্ন জুয়েলারি বানাতে ভালোবাসেন? তাহলে আর চিন্তা কিসের? আপনার এই অসাধারণ গুণ দিয়েই শুরু করে দিন না আপনার বিজনেসটি।

এর জন্য আপনার খুব একটা পুঁজিও প্রয়োজন পরবেনা। নিজের পছন্দমতো সুন্দর সুন্দর কিছু জুয়েলারি বানিয়ে শুরু করে দিন আপনার বিজনেসটি। ফেসবুকে পেজ কিংবা গ্রুপ বানিয়ে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিন আপনার হাতের তৈরি আকর্ষণীয় সব জুয়েলারি। 

শেষ কথা

বর্তমানে মহিলারা বাইরে জব করার চেয়ে ঘরে বসে বিজনেস করতেই বেশি সাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। এবং অনেকে সরকারি কিংবা বেসরকারি চাকরি করার পাশাপাশি ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যনে পার্ট টাইম বিজনেস করে ভালো ইনকাম করছেন।

আমরা এই আর্টিকেলে মহিলাদের জন্য ঘরে বসে ব্যবসা করার কয়েকটি সহজ এবং লাভজনক আইডিয়া তুলে ধরেছি। আশা করছি আপনারা এতে অনেকটাই উপকৃত হবেন। এছাড়াও যদি আপনাদের মনে আরো কোনো প্রশ্ন থাকে, তাহলে আমাদেরকে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন। 


Adrita Rakhi

জানার আগ্রহ আর লেখালেখির প্রতি ভালোবাসা থেকেই টুকটাক লেখালেখি করি।

0 Comments

মন্তব্য করুন

Avatar placeholder

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!