২০+ ইউনিক বিজনেস আইডিয়া তালিকা ২০২২

ইউনিক বিজনেস আইডিয়া

আপনি কি ব্যবসা শুরু করতে চান? ইউনিক বিজনেস আইডিয়া নিয়ে ভাবছেন? বর্তমান তরুণ প্রজন্মের মধ্যে উদ্যোক্তা হওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে সফল উদ্যোক্তা হতে একটি ইউনিক বিজনেস আইডিয়া প্রয়োজন। বর্তমান প্রতিযোগিতার যুগে ইউনিক বিজনেস আইডিয়া না থাকলে ব্যবসায় সফল হওয়া কঠিন।

আপনি যদি ব্যবসা করে দ্রুত সফল হতে চান, তাহলে অবশ্যই মানুষের প্রয়োজন অথচ প্রতিযোগিতা নেই এমন ব্যবসা খুঁজতে হবে, যাকে আমরা এক কথায় ইউনিক বিজনেস আইডিয়া বলে থাকি।

ইউনিক আইডিয়া নিয়ে ব্যবসায় করতে কি নিয়ে ব্যবসা করবেন সেবিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়াই সবথেকে কঠিন। আপনার এই সমস্যা সমাধানের জন্যই আজ আমরা ২০ টিরও অধিক  ইউনিক বিজনেস আইডিয়া নিয়ে আলোচনা করবো ইন-শা-আল্লাহ।

আমাদের ইউনিক বিজনেস আইডিয়া তালিকায় যা যা অন্তর্ভুক্ত থাকছে:

১. যাদের মূলধনে সমস্যা, তাদের জন্যও রয়েছে অল্প খরচে বিজনেস আইডিয়া

২. বাড়িতে বসে ব্যবসা করার জন্য ঘরোয়া ব্যবসা আইডিয়া

৩. অনলাইনে বিজনেস করার জন্য অনলাইন বিজনেস আইডিয়া

সূচীপত্র

লাভজনক ইউনিক বিজনেস আইডিয়া ২০২২ | Unique Business Idea

একনজরে ২০টি লাভজনক ইউনিক বিজনেস আইডিয়া তালিকা:

  1. মাটির গহনা তৈরি
  2. ক্রাফট বিজনেস
  3. ওয়েবসাইট টেম্পলেট তৈরি করে বিক্রি
  4. টি শার্ট ডিজাইন
  5. ডিজাইনে-বল মাস্ক তৈরি
  6. শুকনো পিঠা, সমুচা, সিঙ্গারা, পড়োটা, চানাচুর ইত্যাদি ঘরে বানিয়ে বিক্রি
  7. কাস্টমাইজড কেক, চকলেট বিক্রি
  8. হোম-মেইড ক্যাটেরিং
  9. পশু পাখি রক্ষণাবেক্ষণ করা
  10. ফুড, স্কিন কেয়ার প্রোডাক্ট রিভিউ
  11. এফিলিয়েট মার্কেটিং
  12. হ্যান্ড প্রিন্ট জামা বিক্রি
  13. হোম-মেইড স্কিন কেয়ার পণ্য বিক্রি
  14. প্লে স্টোরে নিজের এপ বানিয়ে আপলোড
  15. বিভিন্ন মশলা হোম-মেইড করে বিক্রি
  16. মেকআপ টিউটোরিয়াল
  17. কাস্টমাইজড গিফট, গহনা, কাপল ড্রেসের বিজনেস
  18. ব্যবহৃত পণ্য, বই বিক্রি
  19. বিজনেস কার্ড ডিজাইন
  20. ই-বুক বিক্রি

১. মাটির গহনা তৈরি

সাঁজগোজ সে তো সব মেয়েরই শখের কাজ। সব মেয়েই নিজেকে সাজিয়ে গুছিয়ে রাখতে পছন্দ করে। আর এই সাঁজগোজ একটা অন্যতম অংশ গহনা বা অলংকার। বর্তমানে বিভিন্নরকম উপকরণ দিয়ে মেয়েদের গহনা তৈরি করা হয় যেমন: পুঁথি, ডায়মন্ড, স্বর্ণ, রত্ন, রূপা, ফলের বীচি, ঝিনুক, কড়ি, মাটি, তামা ইত্যাদি দিয়ে।

বর্তমানে মেয়েরা স্বর্ণ, ডায়মন্ড এগুলোর পাশাপাশি মাটির তৈরি গহনা পড়তে খুব পছন্দ করে থাকেন। মাটির তৈরি নকশা করা রঙ্গিন অলংকার নজর কারে অলংকার প্রেমীদের মনে।

বাংলার বিভিন্ন ঐতিহ্যপূর্ণ উৎসব পহেলা বৈশাখ, ফাল্গুনে মাটির গহনার চাহিদার পরিমাণ অনেক বেড়ে যায়। এই চাহিদাকেই আপনি কাজে লাগিয়ে মাটির গহনা তৈরির ইউনিক ব্যবসার আইডিয়াটি নিয়ে উদ্যোগ নিতে পারেন।

যদি এ সম্পর্কে আপনার প্রফেশনাল ধারনার প্রয়োজন হয় মাটির গহনার তৈরির কোর্স করে নিতে পারেন।

প্রয়োজনীয় মূলধনের পরিমাণ: ৭০০০-৮০০০ টাকা।

২. ক্রাফট বিজনেস

আপনি যদি শিল্প নিপুণতা পছন্দ করেন তাহলে এই ধরনের ইউনিক বিজনেস আইডিয়া আপনার জন্য সবথেকে বেস্ট অপশন। ক্রাফট ব্যবসায় বিভিন্ন রকমের হয় যেমন: সেলাই ক্রাফটিং এবং কাগজের ক্রাফটিং ব্যবসা।

Related:  ইকো প্রিন্ট টিউটোরিয়াল : প্রাকৃতিকভাবে কাপড় ও কাগজ নকশা করার উপায়

বর্তমানে সবাই নিজের প্রিয় মানুষকে কারণে অকারণে হাতে বানানো অর্থাৎ ক্রাফটিং জিনিস গিফট করতে পছন্দ করে। তাই এসব ক্রাফ্টিং জিনিসের চাহিদা দিন দিন অনেক বেড়ে চলছে।

ক্রাফট ব্যবসা শুরু করতে মূলধনও খুব কম প্রয়োজন হয়।

৩. ওয়েবসাইট টেম্পলেট তৈরি করে বিক্রি

ঘরে বসে বসেই কোনোরকম পুঁজি ছাড়াই ওয়েবসাইট টেম্পলেট তৈরি করে অনলাইন মার্কেট-প্লেসে বিক্রি করে ডলারে ইনকাম করতে পারেন সহজেই।

অনলাইনে এমন অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে আপনি নিজের তৈরি ওয়েবসাইট টেম্পলেট আপলোড দিয়ে বিক্রি করতে পারবেন। ওয়েবসাইটগুলোর মাঝে জনপ্রিয় হলো:

  • Theme Forest
  • Tem plamatic
  • Buy stock design
  • Templat Cloud
  • FleshDen
  • Site Point
  • Talk Freelence
  • Your Own Website
  • Webmaster-Talk

এ ধরনের ব্যবসায়ে কোনও মূলধনেরই প্রয়োজন হয় না। তবে, প্রোগ্রামিং, ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্টওয়েব ডিজাইন সম্পর্কে জানতে হবে।

৪. টি -শার্ট ডিজাইন

কাস্টমাইজড টি-শার্টের চাহিদা আজকাল বাজারে অনেক বেশী। এই কাজে আপনার নিজের কোনও খরচ বা মূলধনের প্রয়োজন নেই। আপনার কাজ শুধু টি-শার্টের উপর গ্রাফিকের মাধ্যমে ডিজাইন অথবা লোগো তৈরি করা।

আপনার যদি আপনার কোনও ধারনা না থাকে তাহলে আপনি গ্রাফিক ডিজাইনের উপর কোর্স করতে পারেন। যদি আগে থেকেই গ্রাফিকের উপর দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি ওয়েবসাইটগুলোতে নিজের করা টি-শার্ট ডিজাইন বিক্রয় করতে পারেন।

অথবা, ওয়েবসাইটে নিজের ডিজাইনগুলো আপলোড না দিয়ে নিজেই ডিজাইনগুলো প্রিন্ট করে অনলাইন টি-শার্ট বিজনেসও করতে পারেন। টি-শার্ট ডিজাইন আপলোড করে ইনকামের জন্য জনপ্রিয় কিছু সাইট হলো:

  • Gearlech
  • Tee spring
  • Print shop
  • Thredless
  • Bonfire
  • Designhill
  • Printfull
  • Cafepress
  • Blue Cotton
  • Zazzle
  • Society 6
  • Red bubble
  • Tee public
  • Neato shop
  • Sun frog
  • Gear bubble
  • Skreened

৫. ডিজাইনে-বল মাস্ক তৈরি

আমাদের দেশের মানুষের মধ্যে কাস্টমাইজড কাপড়ের মাস্ক এর প্রতি ঝোঁক রয়েছে। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির কারণে মাস্ক এখন মানুষের প্রতিদিনের পোশাক ফ্যাশানের অংশ হয়ে গিয়েছে, এমনকি বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও মাস্ক পড়ে থাকেন অনেকে।

আবার তা যদি হয় নকশা করা মাস্ক তাহলে তো আর কথাই নেই। আপনি যদি সেলাই কাজে পারদর্শী হোন তাহলে আজই শুরু করে দিতে পারেন কাস্টমাইজড কাপড়ের মাস্ক তৈরি করে অনলাইন ইউনিক ব্যবসা।

এই ইউনিক মাস্ক তৈরির ব্যবসা শুরু করতে প্রথম দিকে ১০০০-১৫০০ টাকা যথেষ্ট।

৬. পিঠা, সমুচা, সিঙ্গারা, পড়োটা ঘরে বানিয়ে বিক্রি

অফিসে, ব্যাচেলর মেসে, বাসায় নাস্তার প্রয়োজন হয়। কিন্তু সবাই নিজে বানিয়ে খেতে পছন্দ করেন না, বাহির থেকে ফ্রোজেন খাবার কিনে ফ্রিজে রেখে দেন প্রয়োজনভেদে পরিবেশন করার জন্য।

আপনি শুকনো খাবার যেমন: পাটি শাপটা, পাকন, সমুচা, বন, ফ্রোজেন নাগেটস ইত্যাদি বানিয়ে বিক্রি করে ব্যবসা করতে পারেন। মজার ব্যাপার হলো এই ব্যবসায় তেমন প্রতিযোগিতা নেই।

এই ব্যবসা শুরু করতে ৫০০০ টাকার মতো মূলধনের প্রয়োজন হবে।

৭. কাস্টমাইজড কেক, চকলেট বিক্রি

কাস্টমাইজড কেক চকলেটের চাহিদা যে কতোটা বেশী তা আর বলার প্রয়োজন নেই আশা করি। কাস্টমাইজড কেক তৈরির অনেকগুলো প্রফেশনাল কোর্স রয়েছে। প্রয়োজনে আপনি কোর্সগুলো করে নিজের উপর আত্মবিশ্বাস বাড়াতে পারেন।

কেক ব্যবসা শুরু করতে ২০০০-৩০০০ টাকা মূলধনের প্রয়োজন হবে।

৮. হোম-মেইড ক্যাটেরিং

বাজারের খাবারের চেয়ে আমি নিজেই হোম-মেইড খাবারের প্রতি বিশ্বাস বেশী বিশ্বাস করবো। বাসায় মেহমান চলে আসলে সবারই প্রথম পছন্দ হোম-মেইড খাবার।

বর্তমানে চাকরিজীবী মেয়েরা বা ব্যাচেলররা সাধারণত বাহির থেকেই হোম-মেইড খাবার অর্ডার করতে স্বাছন্দ্যবোধ করে। আজকাল অনেকেই এই ইউনিক ব্যবসার শুরু করে সফল হচ্ছেন।

প্রয়োজনীয় মূলধন: ৪০০০ – ৫০০০ টাকা।

৯. পশু পাখি রক্ষণাবেক্ষণ করা

গৃহপালিত পশু-পাখি রেখে শহরের বাহিরে বা দেশের বাহিরে ট্রাভেলে যাওয়া অসম্ভব, আর সাথে নিয়ে গেলেও ঝামেলার শেষ নেই।

Related:  রিসেলার ব্যবসা কি? কীভাবে রিসেলার বিজনেস করবেন?

মানুষের এই সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য আপনি আপনার নিজ ঘরে বা একটি ঘর ভাড়া নিয়ে পশু-পাখিগুলোকে কিছুদিন বা কিছু সময়ের জন্য যত্ন নিতে পারেন।

এধরনের ইউনিক বিজনেস আইডিয়া এখনও আমাদের দেশে তেমন প্রচলিত না হওয়ায় তেমন কোনও প্রতিযোগিতা নেই।

প্রয়োজনীয় মূলধন: ১০০০০-১৫০০০ টাকা (পশু পাখির খাবার এবং নতুন রুম ভাড়ার জন্য এই মূলধনের প্রয়োজন হয়)।

১০. ফুড, স্কিন কেয়ার প্রোডাক্ট রিভিউ

বর্তমানে ঘরে বসেই যারা ইনকাম করার জন্য চেষ্টা করছেন তাদের জন্য এটি সবথেকে ভালো ইউনিক বিজনেস আইডিয়া। প্রতি বছরই হাজার হাজার ব্র্যান্ডেড প্রোডাক্ট বের হয়।

আর এসব প্রোডাক্ট ব্যবহারের আগে সবাই সেই কোম্পানির প্রোডাক্টগুলো সম্পর্কে ইন্টারনেটের বিভিন্ন প্লাটফর্মে সে বিষয়ে সার্চ করে রিভিউ দেখেন।

আপনি ব্র্যান্ডেড পণ্যগুলো সম্পর্কে ইনস্টাগ্রাম, টুইটারে, ফেসবুক পেইজ, ইউটিউবে ভিডিও রিভিউ বা ব্লগে লেখালেখি করে পণ্যের রিভিউ দিতে পারেন।

১১. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

কোন অনলাইন কোম্পানির ফিজিক্যাল/ডিজিটাল প্রোডাক্ট প্রমোট করে বিক্রি বৃদ্ধি করার মাধ্যমে কমিশন লাভের প্রক্রিয়াই হলো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

আপনার ব্লগ, ইউটিউব চ্যানেল বা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রোডাক্ট ডিটেলস জেনে যখন কেউ আপনার অ্যাফিলিয়েট লিংকের মাধ্যমে পণ্যটি কিনবে তখন বিক্রিত পণ্যের লাভের উপর আপনি কিছু অংশ কমিশন পাবেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আপনি কত টাকা ইনকাম করবেন তা পুরোপুরিভাবে আপনার উপর নির্ভর করে।

জনপ্রিয় অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামসমূহ,

  • Amazone Prime
  • 10 minute school
  • Bahubrihi
  • Link Share
  • eBay
  • Click bank
  • Amazon Aassociation
  • Commission Junction
  • Avangate
  • Revenue Wire
  • Rakuten
  • ShareaSale
  • Giddy Up
  • Widitrade
  • M4trix Network
  • CJ Affiliate
  • Affiliaxe
  • Algo-Affiliates
  • Fiverr Affiliates Program
  • DFO Global

প্রয়োজনীয় মূলধন: কোনও মূলধনের প্রয়োজন পড়ে না (তবে, যদি ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান, তাহলে ২০০০ টাকা থেকে ১৫০০০ টাকা খরচ হবে)।

১২. হ্যান্ড প্রিন্ট জামা বিক্রি

হ্যান্ড-প্রিন্ট করা জামা এখন খুবই জনপ্রিয় ফ্যাশান। জামায় হ্যান্ড-প্রিন্ট করতে তেমন কোনও মূলধনেরও প্রয়োজন পরে না। তবে এই ধরনের কাজের জন্য দরকার নিজ দক্ষতা, ধৈর্য ও প্রচুর আগ্রহ।

এই কাজে আগ্রহ ও ধৈর্য না থাকলে কিছু দিন পড়েই কাজের প্রতি অনাগ্রহ তৈরি হয়ে যাবে। হ্যান্ড-প্রিন্টের জন্য সাধারণত যা যা লাগে,

  • কাপড়
  • রং
  • তুলি
  • মিডিয়াম
  • ফ্রেম
  • কার্বন পেপার
  • হোয়াইট পেস্ট
  • বাইন্ডার

ফ্রেমগুলো একেক কাপড়ের একেক সাইজের হয়ে থাকে। নিজের প্রয়োজন অনুযায়ী আপনার সিলেক্ট করতে হবে।

১৩. হোম-মেইড স্কিন কেয়ার পণ্য বিক্রি

আবহাওয়া জনিত সমস্যার কারণে বর্তমানে ছেলে মেয়ে সবারই ত্বকের সমস্যা এবং চুল পড়ে যাওয়া দিন দিন বাড়ছে। আর এই সমস্যার সাথে বাড়ছে মানুষের ত্বক ও চুলের যত্ন নেওয়ার পণ্যের চাহিদা।

দোকানের ভেজালযুক্ত স্কিন ও হেয়ার কেয়ার প্রোডাক্টের তুলনায় বর্তমানে হোম-মেইড পিওর পণ্য ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন।

তাই আপনি একটু চেষ্টা করলেই অনলাইনে নিজের একটা পরিচয় গড়ে তুলতে পারেন হোম-মেইড কেয়ার প্রোডাক্ট এর ইউনিক ব্যবসা।

১৪. অ্যাপ বানিয়ে ইনকাম

মোবাইলের এপ্লিকেশন চালান না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। আপনি যদি কোডিং সম্পর্কে ধারনা রাখেন তাহলে, এই কাজটি অনেক লাভজনক উপায় হতে যাচ্ছে।

প্লে-স্টোরে অ্যাপ আপলোড করে আয় করার উপায়গুলো হলো:

  • অ্যাপ মনিটাইজ করে ইনকাম
  • অ্যাপে পেইড লোকাল এড দেখিয়ে ইনকাম
  • অ্যাপ বিক্রি
  • ক্রাউড ফান্ডিং
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং
  • সাপ্তাহিক /মাসিক /বাৎসরিক হিসেবে সাবস্ক্রিপশান।

১৫. হোম-মেইড মশলা বিক্রি

সাধারণত হলুদ গুঁড়া , মরিচ গুঁড়ো, ধনিয়া গুঁড়ো, জিরা গুঁড়া, রসুন বাটা, আদা বাটা ইত্যাদি মশলা এখন প্রায় সকলেই বাহির থেকেই কিনে থাকে।

Related:  ফেসবুকে ব্যবসা করার নিয়ম | ফেসবুকে অনলাইন ব্যবসা

অন্যদিকে, আমরা সবাই ভেজালযুক্ত মশলার চেয়ে হোম-মেইড মশলাকে পছন্দ করি। তাই, হোম-মেইড মসলার চাহিদা এখন স্বাস্থ্য সচেতন মানুষদের মাঝে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এই ইউনিক বিজনেস আইডিয়া নিয়ে কাজ শুরু করার জন্য আপনার তেমন কোনও মূলধনের প্রয়োজন পড়বে না। তবে কাস্টমারকে মসলার স্যাম্পল এর ছবি দেখানোর জন্য মশলা কিনতে ৩০০০ -৫০০০ টাকা মূলধনের প্রয়োজন হতে পারে।

১৬. মেকআপ টিউটোরিয়াল

আপনি কি মেকআপে বেশ দক্ষ? সৌন্দর্য্যপ্রিয় প্রায় সব বয়সী নারীরা এখন  মেকআপ টিউটোরিয়াল সবচেয়ে বেশী দেখে থাকে।

যদি মেকআপ করতে পছন্দ করেন তাহলে, আপনিও একটি ইউটিউব চ্যানেলে নিজের মেকআপ টিউটোরিয়ালের ভিডিও আপলোড করে চ্যানেল মনিটাইজ করে ইনকাম করে পারেন। অথবা মেকআপ পণ্যের প্রমোশন করে আয় করতে পারবেন।

১৭. কাস্টমাইজড গিফট, গহনা, কাপল ড্রেসের বিজনেস

প্রিয়জনকে গিফট দিয়ে তার মন খুশী করা সেতো সবাই পছন্দ করে। কাপল ড্রেস কম্বো, কাস্টমাইজড যেকোনো গিফট, গহনা ইত্যাদি গিফট হিসেবে বেশী প্রেফার করা হয়।

ইউনিক এই বিজনেস আইডিয়া শুরু করতে প্রয়োজনীয় মূলধন ১৫০০০-২০০০০ টাকা।

১৮. পুরাতন বই বিক্রি

পুরাতন বই বিক্রির ব্যবসা এখানে উল্লেখ করা ইউনিক বিজনেস আইডিগুলোর মাঝে অন্যতম একটি আইডিয়া যা অন্য দেশে জনপ্রিয় হলেও আমাদের দেশে প্রচলিত না।

অন্যের পঠিত বই সংগ্রহ করে অনলাইনে বিক্রি করতে তেমন কোনও মূলধনের প্রয়োজন পড়বে না। এমন অনেকে রয়েছে যারা নতুন ইনটেক ও বই কিনতে সক্ষম নয়, তারা সেকেন্ড হ্যান্ড বইয়ের খোঁজ করে থাকে তাদের কাছে সংগ্রহ করা পুরাতন বই বিক্রি করতে পারেন।

তাছাড়া, এমন প্লাটফর্ম পেলে একবার পড়ার পর যেসব বইয়ে ধুলা জমে যায়, সেগুলো আপনার কাছে বিক্রি করার জন্য প্রস্তাব পেয়ে যাবেন।

১৯. বিজনেস কার্ড ডিজাইন

কোম্পানির নাম ও ব্যাক্তি যোগাযোগের তথ্যসহ যে কার্ড ডিজাইন করা হয় তাই বিজনেস কার্ড। প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানেরই বিজনেস কার্ডের প্রয়োজন হয়। অফলাইন কিংবা অনলাইন, সব জায়গাতেই বিজনেস কার্ড ডিজাইন ব্যবসার চাহিদা রয়েছে।

ফ্রিল্যান্সাররা এই কাজ করে মাসিক মিনিমাম ৫০০০-১০০০০ ডলার পর্যন্ত বা এর বেশী আয় করে থাকেন। এই কার্ড ডিজাইন করতে গ্রাফিক ডিজাইনার হায়ার করা হয় এমন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে। জনপ্রিয় সাইটগুলো হলো:

  • Up work
  • Graphic River
  • 99Designs
  • Peopleper Hour
  • DriBBle
  • Toptal
  • Twine
  • The design kids
  • We work remotely
  • Angel.co
  • Freelencer

২০. ই-বুক বিক্রি

ই-বুক ছাপা বইয়েরই মতোই, পার্থক্য এতটুকু যে, ই-বুক ইন্টারনেটে পাওয়া যায়, বইয়ের পাতাগুলো সরাসরি হাতে ধরা যায় না।

এমন অনেকগুলো সাইট রয়েছে যেখানে ই-বুক বানিয়ে সেল করে আয় করতে পারবেন। জনপ্রিয় ই-বুক বিক্রির সাইটগুলো হলো:

  • Infogorund.com
  • Ebookwholeseller.com
  • Elance.com
  • Getafreelencer.com
  • Amazone KIndle.com
  • Payhip
  • Nook press
  • Kobo Writing life
  • Smashwords
  • Booktango
  • BookBaby

উপরে উল্লিখিত ব্যবসা আইডিগুলো ছাড়াও আরও কিছু ইউনিক বিজনেস আইডিয়া রয়েছে, যেমন:

  • মেয়েদের ফুলের তৈরি গাজরা ও গহনা তৈরি
  • অলনাইন কাস্টমাইজড ডায়েরি শপ
  • বেতের তৈরি প্রোডক্ট বিক্রি
  • কাস্টমাইজড মোম তৈরি
  • বুক কভার ডিজাইন, ইত্যাদি।

ইউনিক বিজনেস আইডিয়া নিয়ে শেষ কথা

ব্যবসা একদিনেই দাঁড়ায় না। মেধা ও পরিশ্রমের পাশাপাশি ধৈর্য্য প্রয়োজন। ব্যবসাতে নিজের একবার পরিচয় বানাতে পারলে এর পরের রাস্তাটা স্বাভাবিকভাবেই সহজ হয়ে যায়।

আপনার ভালোলাগছে এমন কিছু নিয়ে ব্যবসা করার চেষ্টা করুন। আশা করি, আমাদের আজকের আর্টিকেলে উল্লেখ করা ২০+ ইউনিক বিজনেস আইডিয়া সমূহ আপনার পছন্দের ব্যবসা খুঁজে পেতে সহায়ক হবে।

বিজনেস আইডিয়াগুলো দেখার পর পরই সিদ্ধান্ত না নিয়ে ভেবেচিন্তে তারপর ব্যবসায় নামুন। আপনার জন্য শুভকামনা।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।