ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম ২০২২

ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম জানতে চান? ইউটিউব চ্যানেল খুলে ইনকাম করার চিন্তা করছেন! কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলবো, এই প্রশ্ন এখন ছাত্র, গৃহিনী থেকে শুরু করে চাকুরীজীবি! প্রায় সবার মনেই রয়েছে।

করোনার এই সময়ে ঘরে বসে কিছু না করার চেয়ে চারদিকে ইউটিউবে ক্যারিয়ার গড়ার চেষ্টা করছেন, কেননা অনলাইনে ইনকাম করার যত উপায় রয়েছে, তার মধ্যে সবচেয়ে সহজ ও প্রসিদ্ধ ইউটিউব প্লাটফর্ম।

ইউটিউব হচ্ছে বর্তমানে ভিডিও শেয়ারিংয়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি প্লাটফর্ম। ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত অথচ ইউটিউবের সাথে পরিচিত নন, এমন মানুষ খোঁজে পাওয়া সত্যিই কঠিন একটা ব্যাপার। বিশ্বের সকল প্রান্তের মানুষের কাছেই এটি জনপ্রিয়তার শীর্ষে।

আর এই সুযোগটাকে কাজে লাগিয়েই মানুষ নিজেদের আয়ের উপায় বাতলে নিয়েছেন। ইউটিউবে ভিডিও শেয়ারিং করে মানুষ লাখ লাখ টাকা ইনকাম করে নিচ্ছে ঘরে বসেই।

তবে এর জন্য প্রয়োজন ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করা। অনেকেরই নানান ধরনের প্রতিভা থাকার পরও ইউটিউব চ্যানেল খোলার সঠিক নিয়ম না জানায় ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারছেন না।

তাঁদের কথা বিবেচনা করেই আজকের আর্টিকেলে ইউটিউব চ্যানেল কি? ও ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম বিস্তারিতভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করবো।

ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম না জেনে YouTube Channel Create করলে খুব বড় একটা সম্ভাবণা থেকে যায় যে, আপনি সঠিক পদ্ধতিতে ইউটিউব চ্যানেল খুলতে পারবেন না, যার ফলে ভিডিওর পর ভিডিও আপলোড করে গেলেও সাবস্ক্রাইবার কিংবা ভিউ কোনটাই বৃদ্ধি পায় না। তাই, ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম ২০২২ নিয়ে আমাদের আজকের আলোচনা।

এখানে আমরা কম্পিউটারের পাশাপাশি মোবাইল দিয়ে ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানবো, সেইসাথে ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার নিয়ম জেনে নিবো ইন-শা-আল্লাহ।

ইউটিউব চ্যানেল কি : What is YouTube Channel in Bengali

ইউটিউবে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও পাওয়া যায় যেমন; নাটক, সিনেমা, গেমিং, রান্নাবান্না, আর্ট ইত্যাদি। অর্থাৎ, এমন কোনো বিষয় নেই যা ইউটিউবে পাওয়া যায় না। তো, এতসব ভিডিও প্রতিনিয়তকে আপলোড করে থাকে? আপনার নিশ্চয়ই জানতে ইচ্ছে করছে?

এই যে আপনার, আমার মতো মানুষেরাই এই কাজটা করে থাকেন। এর জন্য প্রয়োজন হয় একটি ইউটিউব চ্যানেলের।

ইউটিউব চ্যানেল বলতে বুঝায় ইউটিউব কন্টেন্ট ক্রিয়েটর স্পেস যেখানে আপনি আপনার বানানো ভিডিও শেয়ার করতে পারবেন এবং অন্যরা সেই ভিডিও দেখার সুযোগ পাবে।

আমাদের যেমন ফেসবুকে কিংবা টুইটারে নিজেদের ফেসবুক কিংবা টুইটার প্রোফাইল থাকে, ইউটিউবের চ্যানেলও অনেকটা এরকমই।

একাউন্ট ছাড়া ইউটিউবে ভিডিও দেখা গেলেও ভিডিও আপলোড করার সুযোগ পাবেন না। আবার, শুধুমাত্র সাইন ইন করার পরই নিজ প্রোফাইল থেকেও ভিডিও আপলোড করা যায়।

কিন্তু, প্রফেশনালি ভিডিও ছাড়ার জন্য অবশ্যই আপনাকে ইউটিউব চ্যানেল খোলার সঠিক নিয়ম মেনে চ্যানেল তৈরি করে নিতে হবে।

ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম খুব একটা কঠিন না। যেকেউ চাইলেই খুব সহজে এবং সম্পূর্ণ বিনা খরচে ইউটিউব চ্যানেল খুলতে পারবেন।

আমরা এখানে ইউটিউব চ্যানেল খোলার স্টেপগুলো খুব সহজভাবে তুলে ধরবো, যা অনুসরণ করলে আপনি সহজেই ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে পারবেন।

Youtube channel create করতে যা প্রয়োজন হবে:

  1.  ইন্টারনেট কানেকশন
  2. জিমেইল  বা গুগল একাউন্ট
  3. মোবাইল নাম্বার: ইউটিউব চ্যানেল খোলার পর চ্যানেল ভেরিফাই করার জন্যেএকটিভ ফোন নাম্বার প্রয়োজন হবে।

মোবাইলে ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম (স্টেপ বাই স্টেপ)

Youtube app Download করুন: মোবাইলে ইউটিউব চ্যানেল খোলার জন্য আপনাকে শুরুতেই ইউটিউব অ্যাপটি গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে। আপনার ফোনে ইতোমধ্যেই যদি অ্যাপটি ডাউনলোড করা থাকে তাহলে তো হয়েই গেলো।

Sign In: ইউটিউব অ্যাপে প্রবেশ করে YouTube  এর  টপ মেন্যু এর টপ রাইট কর্ণারের প্রোফাইল আইকনে ক্লিক করুন। ভালোভাবে বোঝার জন্য নিচের ছবিটি দেখে নিন।

মোবাইল দিয়ে কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলবো

এখন প্রোফাইলে ক্লিক করার পর Sign In অপশনটি আসবে। ব্যস, Sign In অপশনে ক্লিক করে ফেলুন।

Gmail  account দিয়ে Log In করুন: Sign In এ ক্লিক করার পর আপনার মোবাইলের যেকোনো জিমেইল দিয়ে log in করে নিন।

ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করুন: নিজের জিমেইল এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করার পর আপনি ইউটিউব Dashboard এ লগইন হয়ে যাবে। এখন প্রোফাইল আইকনে ক্লিক করলে আপনি নিচের ছবির অপশনগুলো পেয়ে যাবেন।

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খোলা যায়

উপরের ছবির অপশনগুলোর মধ্যে সবার প্রথমে যে অপশনটি আছে, অর্থাৎ “Your channel ” অপশনটিতে ক্লিক করুন।

Create  channel: Your channel অপশনটিতে ক্লিক করলে আপনি নিচের ছবির মতো একটি পেজ পাবেন।

প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

এখন আপনি আপনার পছন্দমতো নাম দিয়ে ইউটিউব চ্যানেলটি খুলে নিন। ব্যস, এরপর Create channel অপশনে ক্লিক করলেই আপনার নিজের ইউটিউব চ্যানেল খুলে যাবে।

উপরের স্টেপগুলো অনুসরণ করে আপনি সহজেই নিজের মোবাইলে একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলে নিতে পারবেন।

কম্পিউটারে ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

ইউটিউব ভিজিট করুন: প্রথমে আপনাকে ইউটিউবের ওয়েবসাইটে youtube.com ভিজিট করতে হবে।

সাইন ইন করুন: ইউটিউবের ওয়েবসাইটে প্রবেশের পর একদম উপরে ডান কর্ণারে “Sign In” অপশন পাবেন। এখন এই সাইন-ইন বাটনে ক্লিক করুন।ইউটিউব সাইন ইন

লগইন করুন: সাইনইন করার পর আপনার সামনে নতুন একটি পেজ ওপেন হবে। এখন প্রথমে আপনি “Email or phone” বক্সটিতে আপনার জিমেইল একাউন্টটি বসিয়ে দিন। এরপর Next অপশনে ক্লিক করুনজিমেইল লগইন

Next  এ ক্লিক করার পর নতুন একটি পেইজ আসবে। “Enter your password ” লেখা বক্সটিতে আপনি আপনার জিমেইলের পাসওয়ার্ডটি বসিয়ে Next অপশনে ক্লিক করুন।ইউটিউব লগইন

Youtube channel তৈরি করুন: আপনার জিমেইল আর পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করার পর আপনি ইউটিউবের Dashboard এ লগইন হয়ে যাবেন। এখন চ্যানেল খোলার জন্য ইউটিউবের Dashboard এর উপরে ডান কর্ণারে Profile icon এ ক্লিক করুন।ইউটিউব প্রোফাইল

Create a channel: Profile Icon এ ক্লিক করার পর নতুন একটি পেজে আপনি অনেকগুলো অপশন পাবেন। এখন সবচেয়ে উপরে “Create a channel” অপশনটিতে ক্লিক করুন।ইউটিউব চ্যানেল তৈরি

চ্যানেল নাম লিখুন: এখন অপশনটিতে ক্লিকের পর আপনার সামনে নতুন একটি পেজ আসবে। একটি বক্সে “Name” অপশন আসবে। বুঝার সুবিধার্থে নিচের ছবিটি দেখে নিন। এখন এই বক্সটিতে আপনি আপনার চ্যানেলের নাম বসিয়ে দিন। আপনি আপনার পছন্দমতো চ্যানেলের প্রাসঙ্গিক নাম লিখে নিচের Create channel বাটনটি চেপে দিন। ব্যস, আপনার ইউটিউব চ্যানেল খোলা হয়ে গিয়েছে।

ইউটিউব চ্যানেলের নাম

ইউটিউব চ্যানেল কাস্টমাইজ করার উপায়

Create channel অপশনটিতে ক্লিক করার পর আপনি পরের পেইজে Customize channel এবং Manage Videos নামে দুইটি অপশন পাবেন। ইউটিউব চ্যানেল কাস্টমাইজেশন

এখন চলুন সংক্ষিপ্ত করে এদের কাজগুলো জেনে নেওয়া যাক;

Customize Channel: এই অপশনটিতে গিয়ে আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলটিকে কাস্টমাইজ করতে পারবেন। এই অপশনটিতে ক্লিক করে আপনি নতুন একটি পেইজে চলে যাবেন। যেখানে-

    • Layout
    • Branding
    • Basic info এমন কিছু অপশন পাবেন।

এই অপশনগুলোর সাহায্যে আপনি আপনার চ্যানেলের প্রোফাইল পিকচার, ব্যাকগ্রাউন্ড পিকচার,  Description, About  ইত্যাদি যুক্ত করতে পারবেন।

Manage videos: এই অপশনটিতে গিয়ে আপনি আপনার চ্যানেলের বিভিন্ন ধরনের Settings  করতে পারবেন। Filter অপশনের সাহায্যে আপনি

    • Age restriction
    • copyright claims
    • Description
    • Title
    • Views
    • Visibility ইত্যাদি নির্ধারণ করে দিতে পারবেন।

ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার নিয়ম

ইউটিউব চ্যানেল খোলার পর একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ হলো আপনার চ্যানেলটিকে ভেরিফাই করে নেওয়া।

মনে রাখবেন আপনি যদি চ্যানেলটি ভেরিফাই না করেন তবে ইউটিউবের সব ধরনের সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন না। অর্থাৎ চ্যানেল ভেরিফিকেশন না করা অবধি ইউটিউবের কিছু ফিচার লক করা থাকে।

তাই ইউটিউবের সব ধরনের সুবিধা ভোগ করার জন্য আপনাকে অবশ্যই চ্যানেলটিকে ভেরিফাই করে নিতে হবে। চ্যানেল ভেরিফিকেশনের জন্য আপনার একটি একটিভ মোবাইল নাম্বার দরকার হবে।

চলুন ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার স্টেপগুলো জেনে নেওয়া যাক;

ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার স্টেপস:

১. শুরুতেই আপনার চ্যানেলের প্রোফাইল আইকনে ক্লিক করুন। এরপর “Youtube studio” অপশনটিতে ক্লিক করুন।ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার নিয়ম

২. Youtube studio তে ক্লিক করলে নতুন একটি পেইজে কিছু অপশন আসবে। একদম শেষের দিকে Settings অপশনটিতে ক্লিক করুন।ইউটিউব চ্যানেল কিভাবে খুলতে হয়

৩. Settings  অপশনে ক্লিক করার পর যে পেইজটি ওপেন হবে সেখান থেকে “Channel ” অপশনটিতে ক্লিক করুন।ইউটিউব চ্যানেল

৪. Channel অপশনটিতে ক্লিক করার পর আপনি নতুন একটি  ট্যাব অপেন হবে। এখান থেকে “Feature eligibility ” অপশনটি চাপুন। ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম ২০২১

৫. Feature eligibility তে ক্লিক করার পর আপনি Features that require phone verification এর নিচে ” Verify phone number” নামে একটি অপশন পাবেন। এখন এই অপশনে ক্লিক করুন।ইউটিউব চ্যানেল মোবাইল নাম্বার ভেরিফাই করার নিয়ম

এখন যে পেইজটি ওপেন হবে সেটিতে কয়েকটি অপশন পাবেন।

    •  How should we deliver the verification code to you?: এই অপশনটিতে Tell me the verification code লিখাটি সিলেক্ট করুন।
    • Select your country :  এই অপশনটিতে আপনি আপনার দেশের নাম সিলক্ট করে দিন।
    • What is your phone number:  এখন আপনি আপনার একটি একটিভ বা চালুকৃত ফোন নাম্বার এই অপশনটিতে সেট করুন।
    • এরপর Get code অপশনটি চাপুন।

কিছু সময়ের মধ্যে আপনার দেওয়া ফোন নাম্বারে একটি ৬ ডিজিটের ভেরিফিকেশন কোড চলে আসবে। এখন পরবর্তী পেইজে Enter your 6-digit verification code এর জায়গায় আপনার ফোনে আসা ভেরিফিকেশন কোডটি লিখে Submit অপশনটিতে ক্লিক করুন।

ব্যস, আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি ভেরিফাই হয়ে যাবে।

ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করার নিয়ম

ইউটিউব চ্যানেল খোলার করার পর আপনার মূল কাজ হলো ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করা। ভিডিও ছাড়া ইউটিউব চ্যানেলের কোনো মূল্যই নেই।

আপনার যদি ইউটিউব থেকে ইনকাম করার লক্ষ্য থাকে তাহলে অবশ্যই আপনাকে ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করতে হবে। পরবর্তীতে এইসব ভিডিওতে গুগল এডসেন্স এপ্রুভাল নিয়ে, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, প্রমোশন করে, স্পন্সরশীপ, লোকাল বিজ্ঞাপন যুক্ত করে ও আরো বিভিন্ন উপায়ে ইনকাম করতে পারবেন।

এখন আপনার কাজ হলো, আপনার চ্যানেলের সাথে রিলেটেড যেসব ভিডিও মানুষ দেখতে বেশি আগ্রহী সেসব ভিডিও বানিয়ে ইউটিউবে আপলোড করা।

চলুন দেখে নেওয়া যাক আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলটিতে কিভাবে ভিডিও আপলোড করতে পারেন:

১. ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করার জন্য ইউটিউবের একদম উপরে “Video Icon” এ ক্লিক করতে হবে।

২. ভিডিও আইকনে ক্লিক করার পর দুইটি অপশন আসবে, ক) Upload video এবং খ) Go live

৩. এখন  ভিডিও আপলোড করার জন্য আপনাকে Upload video তে ক্লিক করতে হবে।ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করার নিয়ম

৪. Upload video অপশনে ক্লিক করলে আপনি নতুন একটি পেইজে ভিডিও আপলোড করার অপশন পাবেন।

৫. Select file to upload নামক একটি লেখা দেখতে পারবেন।

ইউটিউবে ভিডিও দেওয়ার নিয়মব্যস, এটাতে ক্লিক করেই আপনি আপনার কম্পিউটার কিংবা ল্যাপটপে থাকা ভিডিও আপনার চ্যানেলে আপলোড করতে পারবেন।

প্রো টিপস: ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার বৃদ্ধি করার সবচেয়ে ভালো উপায় ভিডিওতে ভিউ বাড়ানো। এজন্য ইউটিউব সার্চ রেজাল্টের টপ পজিশনে নিয়ে আসার বিকল্প নেই। পজিশনে নিয়ে আসার উপায় হলো ইউটিউব ভিডিও এসইও করা। ভিডিও আপলোড করার সময় ভিডিও ফাইল নেম টাইটেল অনুসারে পরিবর্তন করে নেওয়া একটি গুরুত্বপূর্ণ এসইও।

সতর্কতা: মুসলমান হিসেবে যেকোনো কন্টেন্ট নিয়ে কাজ করা কিংবা সকল বিজ্ঞাপন দেখিয়ে ইনকাম করা হালাল হবেনা। সুতরাং কি নিয়ে ইউটিউবে ভিডিও ছাড়ছেন সেবিষয়ে সতর্ক থাকুন। এবং এডসেন্স এপ্রুভালে পেলে হারাম বিষয়ক এড ব্লক করে দিতে ভুলবেন না যেন।

ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম নিয়ে শেষ কথা

ইউটিউব হচ্ছে বর্তমানে অনলাইন ইনকামের সেরা উপায়। নিজের একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকলে নিজের যেকোনো প্রতিভাকে কাজে লাগিয়ে সহজেই আয় করা যায় ইউটিউব থেকে।

আর্টিকেলটিতে ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম ২০২২, ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করার নিয়ম এবং ভিডিও আপলোড করার পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেছি।

ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম কিংবা সম্পর্কিত অন্য যেকোনো সমস্যার মুখোমুখি হলে আমাদের কমেন্ট করে জানিয়ে দিতে পারেন।

5 thoughts on “ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম ২০২২”

  1. উটিউব চ্যানেল দিয়ে আয় শুরু ইউটিউব হলে একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম যেখানে মূলত আমরা ভিডিও কনটেন্ট দেখে থাকি এর সূচনা হয়েছিল 14 ই ফেব্রুয়ারি 2005 সালে প্রায় 16 বছরের আগে। বর্তমানে দেখা গেছে যে সারা বিশ্বে প্রতিদিন গড়ে প্রায় 500 কোটি ভিডিও মানুষ বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেলে দেখে থাকে

  2. আপনাদের প্রতিবর্তন সাইটের তথ্য গুলা আমি যখন থেকে পড়তে শুরু করেছি তখন থেকে আমার অনেক কিছু পরিবর্তন হয়েছে । আপনাদের একটি তথ্য কি ভাবে ব্লগারে সাইট তৈরি করতে হয় সেটি পড়ে আমি একটি সাইট তৈরি করেছি । Review Store নামে । সত্যি আপনাদের সাইট অনেক Helpful…….

    1. আপনাদের কাজে আসে এমন আর্টিকেল দিয়েই প্রতিবর্তনকে সাজানো হচ্ছে প্রতিনিয়ত। আমাদের লিখাগুলো থেকে আপনারা উপকৃত হয়েছেন জেনে ভালো লাগে। আমাদের সাথেই থাকুন!

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।