জনপ্রিয় ব্লগিং নিশ আইডিয়া ; একটি ব্লগের ভবিষ্যত যেসব বিষয়ের উপর নির্ভর করে তার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্লগ টপিক ( blog topics bangla ) বা ব্লগ নিশ ( blog niche in bangla )। ব্লগ থেকে ইনকাম কি পরিমান হবে তার অনেকটা নির্ভর করে কোন ব্লগ নিস এর উপর সাইটটি প্রতিষ্ঠিত হবে। তাই যখন আমরা ব্লগ শুরু করার কথা ভাবি, তখন প্রথমেই চিন্তা করতে হয় জনপ্রিয় ব্লগ তৈরির বিষয়, লাভজনক ব্লগ নিশ কোনগুলো।

একটি ব্লগ টপিকের ( blog niche / topic ) উপর ব্লগের ভিজিটরস সংখ্যা, সোর্স এবং ইনকামও অনেকাংশে নির্ভর করে। ব্লগে ভবিষ্যতে কোন টপিকের উপর আর্টিকেল লেখা হবে তাও আপনার ব্লগ নিসের উপর নির্ভর করবে।

সুতরাং ব্লগ শুরু করার জন্য প্রথমেই আমাদের একটি সঠিক, জনপ্রিয় ও লাভজনক ব্লগ নিশ বেছে নিতে হবে। জনপ্রিয় ব্লগিং নিসগুলো সম্পর্কে জানার আগে আমাদের কিছু বিষয় জেনে নেওয়া দরকার।

সূচীপত্র

ব্লগ নিশ কি? (what is blog niche in bangla)

সহজ করে বলি, ধরুন আপনি বিভিন্ন দেশে আম এক্সপোর্ট করছেন। ব্লগিং এর ভাষায় আপনার আমটাই নিশ। তাহলে এবার যদি একটু সংজ্ঞায়ন করা যায় তাহলে আমরা বলতে পারি একটি ব্লগ সাইটে যে টাপকের উপর বিভিন্ন ধরনের আর্টিকেল প্রকাশ করা হয়, তাকে সেই সাইটের ব্লগ নিশ (bloge niche) বা ব্লগ টপিক বলে।

ব্লগ নিশ দুই ধরনের হয়ে থাকে:

  1. মাল্টি নিশ ব্লগ বা নিশ ব্লগ ও
  2. মাইক্রো নিশ ব্লগ

মাল্টি ব্লগ নিশ ব্লগ কী (what is multi niche blog in bangla)?

মাল্টি নিস বা নিস ব্লগ হলো এমন একটি সাইট, যেখানে কয়েকটি কিওয়ার্ড ফোকাস করে আর্টিকেল লেখা হয়। ধরুন আপনি আমের সাথে কিছু কাঁঠালও এক্সপোর্ট করেন। আমাদের ব্লগের নিস হলো অনলাইন ইনকাম, শিক্ষা, ব্লগিং এবং লাইফস্টাইল।

মাইক্রো ব্লগ নিশ কী (what is micro niche blog in bangla)?

মাইক্রো নিশ ব্লগ এমন একটি সাইট, যেখানে একটি নির্দিষ্ট টপিক বেছে নিয়ে সেই সম্পর্কিত আর্টিকেল লেখা হয়। মাইক্রো নিশ ব্লগ মোটামুটি একটি নির্দিষ্ট কিওয়ার্ডের উপর নির্ভর করে তৈরি করা হয়।

বাংলায় যেমন বর্তমানে ইনকাম টিউনস রয়েছে। এই সাইটের সকল আর্টিকেল অনলাইন আর্নিং এর উপর, এবং এটিই ব্লগটির টপিক।

মাল্টি নিশ ব্লগিং বনাম মাইক্রো নিশ ব্লগিং

>> ধরুন, অনলাইন আর্নিং মাইক্রো নিশের একটি আর্টিকেলের এসইও ১০ এবং মাল্টি নিশ সাইটের একই টপিকের উপর আর্টিকেলের এসইও স্কোরও ১০। তাহলে গুগল কাকে প্রথম পজিশন দিবে? এখানে মাইক্রো নিশ সাইট টেক্কা দিবে নিশ সাইটকে। কারণ গুগল মাইক্রো নিশ সাইট পছন্দ করে।

>> মাল্টি নিশ সাইট কেউ বুকমার্ক করে রাখবে এবং পুণরায় ভিজিট করার চিন্তা করে না। কিন্তু একটি মাইক্রো নিশ সাইটের জন্য নির্দিষ্ট গ্রাহক পাওয়া সম্ভব, যারা নিয়মিত সাইটটি ভিজিট করবে।

যেমন, ধরুন আমি নতুন নতুন সফটওয়্যার সম্পর্কে জানতে  সাইট ফলো করি, আপনিও নিশ্চয়ই এমন কোন সাইট ফলো করেন? cricbuzz, cricinfo, অথবা ESPN নিশ্চয়ই নিয়মিত ভিজিট করা হয়! সুতরাং বোঝা গেল, মাইক্রো নিস সাইট করলে আপনি অবশ্যই কিছু রেগুলার ভিজিটরস পাবেন।

>> আপনার টপিক যেহেতু খুবই স্পেসিফিক, তাই সপ্তাহে মাত্র ১টি মানসম্মত আর্টিকেলই আপনার সাইটকে চাঙ্গা রাখতে পারবে। কিন্তু নিস সাইটে ট্রাফিক ঠিক রাখতে প্রতি দুইদিনে অবশ্যই একটি আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে।

>> মাইক্রো নিশ সাইটে আপনার অর্গানিক ট্রাফিক আপনার সাইটের টপিকের ডিমান্ড এবং এসইওর উপর নির্ভর করবে। কিন্তু কোন কারণে আপনার টপিক ডিমান্ড কমে গেলে ট্রাফিক কমে যাবে। এক্ষেত্রে মাল্টি নিশ সাইট সুবিধা পায়।

Niche সাইটে যেহেতেু কয়েকটি টপিক থাকে, তাই বিভিন্ন ধরণের ভিজিটরস আসে সার্চ ইঞ্জিন থেকে। আর একবার একজন ভিজিটরস সাইটে এসে গেলে সাইটের ইন্টারনাল লিঙ্ক-আপ ভাল হলে আরো কিছু আর্টিকেল পড়তে আগ্রহী হয়। অর্থাৎ, মাল্টি নিশ সাইটের ব্যাকআপ প্লান মাইক্রো নিশ ব্লগের চেয়ে ভাল।

আপনার জন্য কোনটা? উপরের আলোচনা থেকে আপনি নিজেই এখন সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন আশা করি। কিন্তু, আমি বলবো, আপনি যদি একা একা পার্সোনালি ব্লগিং করতে চান, তবে মাইক্রো নিশ দিয়ে ব্লগ শুরু করুন।

কারণ আপনি নিশ্চয়ই সব বিষয়ে পারদর্শী নন। একটা টপিক সাইটে যোগ করে কয়েকটি আর্টিকেল লেখার পরই যদি আর লেখার কিছু খুঁজে না পান, তবে সাইটের জন্য ভাল হবেনা।

 সেরা ১৭টি লাভজনক ব্লগিং বিষয় – জনপ্রিয় ব্লগ নিস / টপিক লিস্ট

ঠিক আছে, কি ধরণের ব্লগ শুরু করবেন সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে জনপ্রিয় ব্লগ নিশ ( popular bangla blogging niche ) সম্পর্কে আগে জেনে নিন। নিচের ১৭টি লাভজনক জনপ্রিয় ব্লগ নিশ এর উপর বাংলা ( profitable bangla blog niche ) এবং ইংরেজি দুই ভাষাতেই প্রচুর পরিমাণে ট্রাফিক রয়েছে।

১) টেকনোলজি নিশ ব্লগ

তথ্য প্রযুক্তির যুগে টেকনোলজির উপর আর্টিকেলের জনপ্রিয়তা থাকবেনা, এটা হতেই পারেনা। ইংরেজিতে হাজার হাজার ব্লগ রয়েছে শুধুমাত্র টেকনোলজির উপর। বাংলা ভাষায় নতুন সৃষ্ট ১০ টি ব্লগের মধ্যে ৭টিই টেক ব্লগ। তাই টেক ব্লগ চাহিদা এবং লাভজনক হবার পাশাপাশি বেশ কম্পিটিটিভ niche.

সুতরাং টেকনোলজি নিয়ে ব্লগ করতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই অভিজ্ঞ হতে হবে। অনপেজ অফ পেজ এসইও সম্পর্কে অনেক ভাল ধারণা থাকতে হবে।

টেকনোলজি ব্লগে গুগল এডসেন্স ছাড়াও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনেক বেশি আয়ের সুযোগ রয়েছে। টেকনোলজি রিলেটেড কয়েকটি blogging niche হতে পারে যেমন-

      • টিপস এন্ড ট্রিক্স
      • পিসি হেল্প

২) অনলাইন আর্নিং ব্লগ নিশ

বাংলাদেশের বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তির উপায় অনলাইন আর্নিং। করোনাকালেও বাংলাদেশের অর্থনীতিকে সচল রেখেছিল ফ্রিল্যান্সাররা।

আমাদের যুব সমাজও ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আগ্রহী হচ্ছে। প্রতিদিন হাজার হাজার যুবক অনলাইনে আয়ের উপায় খুঁজছে, অর্থাৎ এটা বেশ হট টপিক। ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আপনার ভাল ধারণা থাকলে সঠিক গাইডলাইন দেওয়ার চেষ্টা করতে পারেন ব্লগিং এর মাধ্যমে।

অনেক অ্যাপস এবং সাইট রয়েছে যেখান থেকে আয় করা যায়, এসব নিয়ে খুব ভাল একটি ব্লগ সাইট হতে পারে। অনলাইনে ইনকাম বিষয়ক টিপস নিয়ে ব্লগিং করলে গুগল এডসেন্স থেকে আয় করার পাশাপাশি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং থেকেও আয় করতে পারবেন। ফাইবারের মতো অনেক সাইটই অ্যাফিলিয়েটিং করার সুযোগ দেয়।

৩) EDUCATION & Learning ব্লগ Niche

কোন রকম তর্ক ছাড়াই অন্যতম জনপ্রিয় ব্লগিং টপিক। এডুকেশন এন্ড লার্নিং সেক্টর নিজেই একটি বিশাল সেক্টর। আমরা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন বিষয় শিখতে চাই এবং শেখার বিষয়ের কোন শেষ নেই।

তাই আপনি এই সেক্টর এর যে বিষয়ে দক্ষ, তা নিয়েই একটি ব্লগ শুরু করতে পারেন, হতে পারে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, সি প্রোগ্রামিং, কোডিং, ইংরেজি শিক্ষা, অথবা একাডেমি কোন বিষয়। সারা বিশ্বে শিক্ষা নিয়ে অনেক বিজ্ঞাপন হয়, তাই এডসেন্স সিপিসি ভাল পাবেন আশা করা যায়।

৪) ব্লগিং নিস ( Blogging Niche )

বাংলা বা ইংরেজিতে বর্তমানে অনেক ব্লগার থাকলেও সবাই যেমন অভিজ্ঞ নয়, সবাই সবকিছু জানিওনা। তাছাড়া অনলাইনে আয় করার জন্য অনেক মানুষ ব্লগিং এ যুক্ত হচ্ছে, এই যেমন আপনি এখন ব্লগিং বিষয়ে জানতে আসছেন।

ব্লগ বিষয়ক সাইটে টপিকেরও অভাব নেই। ব্লগার, ওয়ার্ডপ্রেস, এসইও, সার্চ কনসোল, এডসেন্স, অ্যাফিলিয়েট এবং আরো অনেক। শুধুমাত্র এক এসইও নিয়েই অনেক ব্লগ মাথা উচু করে দায়ে আছে এবং হাজার হাজার ডলার ইনকাম করছে। ব্লগিং নিশ এর ভবিষ্যৎ অনেক বেশি উজ্জ্বল।

৫) Personal Finance ব্লগ

মানুষের অর্থ বাড়ার সাথে সাথে  তাদের অর্থ নিয়ে ঝুঁকিও বেড়ে যায়। আমরা অনেকেই ম্যানেজমেন্ট এবং ইনভেস্টমেন্ট নিয়ে সমস্যায় পড়ি। কোথায় টাকা ইনভেস্ট করলে লাভ বেশি হবে বা কোথায় টাকা সেফ থাকবে, এধরণের সমস্যা নিয়ে আমরা প্রতিদিনই সার্চ করি।

আপনি যদি এ বিষয়ে অভিজ্ঞ হন, তবে আমাদের গাইড করার জন্য একটি Personal Finance ইনভেস্টমেন্ট বিষয়ক ব্লগ শুরু করতে পারেন।

Finance অনেক বড় সেক্টর, প্রচুর সাব ক্যাটাগরি রয়েছে এই টপিকে। Finance এর কিছু টপিক হলোInvestment, Mutual Funds, Money Management, Savings ইত্যাদি।

অনেক বড় বড় ব্যাংক, অর্থনৈতিক সংস্থা বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে, তাই গুগল এডসেন্স সিপিসি রেটও অনেক বেশি। সুতরাং ভাল ইনকামের সুযোগ রয়েছে Finance নিস ব্লগে।

৬) HOW TO Blog Niche

আমাদের গুগলে সার্চ করা অর্ধেকেরও বেশি কিওয়ার্ড কি, কেন, কিভাবে? সুতরাং বাংলা বা ইংরেজি যেকোন ভাষায়ই HOW TO ব্লগের চাহিদা প্রচুর। এধরণের ব্লগে সাধারণত কোন নির্দিষ্ট টপিক থাকে না, মূলত প্রশ্নের উত্তর এবং বিভিন্ন সমস্যার সমাধান থাকে।

যেমন- একজন মানুষকে কি বেলুন দিয়ে উড়ানো সম্ভব? সম্ভব হলে কতটি বেলন প্রয়োজন ? কিংবা জমজ সন্তান কেন হয়? আপনি যদি রহস্যপ্রিয় এবং প্রশ্নের সমাধান খুঁজতে আগ্রহী হয়ে থাকেন, তবে এধরণের ব্লগ খুলতে পারেন।

৭) ব্লগ টপিক – রিভিউ

অনলাইনের যুগে মানুষ পণ্য ক্রয় করার আগে রিভিউ এর উপরই নির্ভর করে। আপনার পণ্য রিভিউ  যদি ভাল হয়, এবং পণ্য ক্রয় করে গ্রাহক আপনার দেওয়া রিভিউ এর সাথে মিল পায়, তবে আপনার আর পিছনে দেখতে হবেনা। বিশাল মার্কেট রয়েছে রিভিউ বিষয়ে ব্লগিং করার জন্য।

রিভিউ এর প্রত্যেকটা সাব ক্যাটাগরিই একেকটা মাইক্রো নিশ। বিজ্ঞাপন ছাড়াও পেইড রিভিউ, স্পন্সরশীপ পাওয়ার ভাল সুযোগ রয়েছে রিভিউ ব্লগিং এ। রিভিউ নিশ এর কিছু সাব নিস হলো-

  1. স্মার্টফোন রিভিউ
  2. ল্যাপটপ রিভিউ
  3. গ্যাজেট রিভিউ
  4. মুভি  রিভিউ
  5. বই রিভিউ
  6. সফটওয়্যার রিভিউ

৮) লাভজনক ব্লগ নিশ – স্বাস্থ্য ও ফিটনেস

স্বাস্থ্য ও ফিটনেস নিয়ে আজকাল মানুষ অনেক বেশি সচেতন। সিক্স প্যাক আর স্লিম ফিট যুগে হেলথ নিয়ে ব্লগিং অনেক হট টপিক। প্রতিদিন হাজার হাজার নারী ওজন কমানোর টিপস অনলাইনে সার্চ করে। ডায়েট, মেডিটেশন, মানসিক স্বাস্থ্য, ইয়োগা, ওজন কমানোর টিপস, ট্রেনিং নিয়ে অসাধারণ ব্লগ হতে পারে।

হেলথ টিপস বিষয়ক ব্লগে ডায়েট পণ্য নিয়ে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার ভাল সুযোগ রয়েছে। তাছাড়া, আপনি নিজেও পেইড সার্ভিস দিতে পারেন কাউন্সিলর হিসেবে।

৯) মোটিভেশনাল ব্লগ নিশ

যান্ত্রিক জীবনে আমরা খুব অল্পতেই হতাশ হয়ে পড়ি। ব্যর্থতা গুলো আমাদের চেপে ধরে রাখে। মোটিভেশন দিয়ে আমাদের আবারো ঘুরে দাড়াতে আপনি হেল্প করতে পারেন একটি মোটিভেশনাল ব্লগিং এর মাধ্যমে। মোটিভেশনাল মাইক্রো নিশ ব্লগ বাংলায় তেমন নেই।

সুতরাং আপনার জনপ্রিয়তা শুধুমাত্র প্রচারের অপেক্ষা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করুন এবং অন্যান্য ফোরাম ব্যবহার করে জানিয়ে দিন। গেস্ট ব্লগিং করেও আপনার সাইট সম্পর্কে জানাতে পারবেন।

১০) শিশু পরিচর্যা ভিত্তিক ব্লগ সাইট

প্যারেন্টিং এবং বেবি কেয়ার ইংরেজিতে জনপ্রিয় ব্লগিং নিশ। বাংলায় শিশু পরিচর্যা মাইক্রো নিস সাইট সম্ভবত এখনো নেই। ন্তিু শিশু পরিচর্যা নিয়ে বাঙালীরাও এখন অনেক সচেতন। বাঙালীরা বাংলায় আর্টিকেল খুঁজে না পেয়েই ইংরেজিতে সার্চ করে। আপনার সাইট সম্পর্কে সামান্য প্রচার করতে পারলেই ছক্কা হবার সুযোগ আছে।
ব্লগ নিশ টপিক, ব্লগ টপিক ফুড, বেবি কেয়ার ব্লগিং বিষয়, ট্রাভেল ব্লগিং নিস
এধরণের সাইট গল্পে গল্পে প্রচার পাবে মায়েদের মাধ্যমে। জানেন তো মায়েরা কেমন একে অপরে সঙ্গে মন খুলে কথা শেয়ার করে। তাছাড়া অর্গাণিক ট্রাফিকতো থাকছেই। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার খুব বড় সুযোগ রয়েছে এই ব্লগ টপিকে।

১১) লাইফ স্টাইল ব্লগ niche

লাইফ স্টাইল মানে কিন্তু শুধুমাত্র শার্ট প্যান্ট আর শাড়ি নিয়ে ব্লগিং নয়। লাইফ স্টাইল সংক্রান্ত ব্লগে সংসার, সম্পর্ক, পরিবার, বন্ধুত্ব, সংস্কৃতি, অফিস লাইফ, আনন্দ উৎসব, ফ্যাশন অর্থাৎ প্রতিদিনের জীবন সম্পর্কিত টিপস নিয়ে ব্লগিং করতে পারেন

লাইফ স্টাইল ব্লগের অধিকাংশ ভিজিটরস নারী। ভাল কনটেন্ট রাখতে পারলে আপনার প্রতিটা নারী ভিজিটরস পার্মানেন্ট হয়ে যেতে পারে। তাছাড়া, পরিসংখ্যান বলে, পুরুষদের চেয়ে নারীরা বিজ্ঞাপনে বেশি ক্লিক করে।

সুতরাং আপনার এডসেন্স থেকে আয় বেশি করার সুযোগ রয়েছে লাইফ স্টাইল নিশ ব্লগে। তাছাড়া অনলাইনে মেয়েরা কেনাকাটা বেশি করে, তাই অ্যাফিলিয়েটিং থেকেও আয়টা এই নিশ থেকে বেশি হবে।

১২) জনপ্রিয় ব্লগ তৈরির বিষয় – খাবার এবং রেসিপি

আপনি যদি খাবারের প্রতি আগ্রহী হন তাহলে আপনার জন্য খাবার এবং রেসিপি বেশ ভাল ব্লগ টপিক। ফুড লাভাররা প্রতিদিন নতুন নতুন রেসিপি আইডিয়া ইন্টারনেটে সার্চ করছে। এধরণের ব্লগের নিজস্ব ভিজিটরস অনেক দ্রুত তৈরি হয়ে যায়।

ব্লগ নিশ টপিক, ব্লগ টপিক ফুড, বেবি কেয়ার ব্লগিং বিষয়, ট্রাভেল ব্লগিং নিস

ব্লগটিতে আপনি কুকিং, রেসিপি, রান্নাঘরের প্রয়োজনীয় সামগ্রী, রেস্টুরেন্ট রিভিউ নিয়ে আলোচনার সুযোগ পাবেন। ব্লগটি জনপ্রিয় হলে বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট থেকে পেইড রিভিউ অফার পাবেন, স্পন্সরশীপ পাওয়ারও সুযোগ রয়েছে। তাছাড়া, অ্যাফিলিয়েটিং এবং গুগল এডসেন্স তো থাকছেই। তবে এখানে সফল হতে আপনাকে প্রচুর রিসার্চ করতে হবে।

১৩) লাভজনক ব্লগ নিস – ট্যুর ও ট্রাভেল
ব্লগ নিশ টপিক, ব্লগ টপিক ফুড, বেবি কেয়ার ব্লগিং বিষয়, ট্রাভেল ব্লগিং নিস

বাঙালী পূর্বের চেয়ে এখন অনেক বেশি ভ্রমণপ্রিয়। তবে, আমি বলবো এখনই বাংলায় এই টপিকের এর উপর ব্লগ না করতে, তবে আপনি যদি ইনকামের পরিবর্তে শখের বসে ব্লগিং করতে চান, সেকথা ভিন্ন।

ইংরেজিতে ট্যুর এন্ড ট্রাভেল অনেক লাভজনক ব্লগ টপিক। সারা পৃথিবীজুরে আপনার আর্টিকেল টপিক ছড়িয়ে রয়েছ। ব্লগটিতে পর্যটন এলাকার সৌন্দর্য্য, যাতায়াত, আবাসন ব্যবস্থা সম্পর্কে জানাতে পারেন।

১৪) ব্লগিং নিশ – বিউটি টিপস

মানুষ মাত্রই সৌন্দর্য্যপ্রিয়। নিজেকে সুন্দর দেখাতে সবাই পছন্দ করে বিশেষ করে মেয়েরা। সৌন্দর্য্য ধরে রাখতে কত কিছুই না চেষ্টা করি আমরা।

আপনার এবিষয়ে অভিজ্ঞতা থাকলে বিউটি টিপস ও রুপচর্চা সংক্রান্ত ব্লগে ত্বক, চুল ও স্ক্যাল্পের যত্ন, নরমাল গ্লোয়িং ও ড্রাই স্কিন, অয়েলি,  পোরস, এজিং, ফ্রেকলস, পিম্পল, ব্রন, ডারমাটোলজিস্ট ইত্যাদি নিয়ে হাজারো আর্টিকেল লিখতে পারবেন।

তাছাড়া বর্তমানে ছেলেরাও নিজেদের আউটলুক নিয়ে সচেতন হচ্ছে, তারপরেও বিউটি টিপস ব্লগের ৮০% এরও বেশি ভিজিটরস নারী। সুতরাং বিউটি টিপসের বিশাল ইন্ড্রাস্ট্রির সিপিসি, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এবং পেইড কাউন্সিলিং থেকে প্রচুর ইনকামের সুযোগ রয়েছে।

১৫) জনপ্রিয় ব্লগ তৈরির বিষয় – স্পোর্টস

পৃথিবীর কোনো দেশের নাম বলতে পারবেন, যেখানে খেলাধুলা জনপ্রিয় না। সারাপৃথিবীর মানুষ তাদের মূল্যবান সময় ব্যয় করে খেলাধুলার পিছনে। সারাদিনের ব্যস্ত শিডিউলের মাঝেও খেলার খবর রাখতে ভুল করে না।

অনেক ব্লগ রয়েছে খেলাধুলা কেন্দ্রিক। কিন্তু এটা এমন এক ব্লগিং বিষয়, যে ট্রাফিকের কোন ক্যাটাগরি নেই, সবশ্রেণীর মানুষই খেলাধুলা নিয়ে উৎসাহী।

তাই স্পোর্টস মার্কেট অনেক বেশি উম্মুক্ত এবং প্রচুর ট্রাফিক নিয়ে আসা সম্ভব। প্রতিদিন হাজার হাজার আর্টিকেল লেখা হয়, লাখ লাখ টুইট হয় খেলোয়ার এবং খেলা কেন্দ্রিক। আপনি যদি একজন ক্রেজি স্পোর্টস লাভার হন, তবে স্পোর্টস টপিকের উপর ব্লগ করে আয় করতে পারেন।

১৬) Blog niche – কৃষি ব্লগ

এই ব্লগটা করার জন্য অবশ্যই আপনার প্রাক্টিক্যাল ধারণা থাকতে হবে। বর্তমানে অনেক শিক্ষিত ছেলে কৃষির সাথে জড়িত হওয়ায় কৃষি ব্লগ এখন সময়ের চাহিদা এবং এই টপিকটা ভবিষ্যতে যে হিট করবে, তাতে কোন সন্দেহ নেই।

ছাদ বাগান থেকে ফসল চাষ, বিভিন্ন সমস্যা এবং সমাধান নিয়ে একটি সুন্দর কৃষি ব্লগ করতে পারলে বেশ সফল হতে পারবেন আশা করা যায়।

এখন  ইংরেজিতে কৃষি নিয়ে অনেক ব্লগ থাকলেও বাংলায় তেমন কোন মাইক্রো নিশ ব্লগ নেই। এধরনের ইউনিক বাংলা ব্লগে এসইও না জানা থাকলেও ব্লগ র‌্যাঙ্ক করার ভাল সম্ভাবনা থাকে। আপনি যদি কৃষির সাথে জড়িত থাকেন তবে আপনার অভিজ্ঞতা থেকেই কৃষি ব্লগ শুরু করতে পারেন।

১৭) সেলিব্রেটি গসিপ নিস ব্লগ

সেলিব্রেটিদের নানা কান্ডের খবর চোখে পড়লে আপনি না পড়ে কি এড়িয়ে যান? নিশ্চয়ই যান না। হিলিউড, বলিউড, টালিউডসহ আরো অনেক ইন্ডাস্ট্রি রয়েছে।

এতগুলো ইন্ড্রাস্ট্রির বাইরেও আরো অনেক মিডিয়া রয়েছে। জনপ্রিয় অভিনেতা অভিনেত্রীদের সোশ্যাল মিডিয়া ফলো করলেই আপনি আর্টিকেল লেখার টপিক পেয়ে যাবেন।

শেষ কথা

জনপ্রিয় ব্লগ নিশ বিষয়ক আর্টিকেলটিতে আমরা শিখেছি নিশ কী, নিশ কত ধরণের, মাল্টি নিশ এবং সাইক্রো নিশ কী এবং এদর মাঝে পার্থক্য, সুযোগ-সুবিধা, আমরা জেনেছি ১৭টি সেরা ব্লগিং টপিক, সেই সাথে অনেকগুলো সাব টপিক।

সবার জন্য সব ব্লগ টপিক সাফল্য নাও এনে দিতে পারে। তাই আপনার জন্য কোন ব্লগিং নিশ লাভজনক হবে, কোন বিষয় নিয়ে ব্লগ তৈরি করবো?, সেরা ব্লগ নিশ আইডিয়া কোনটি? কিংবা, কোন ব্লগ তৈরির বিষয় ( blog niche / topic ) সিলেক্ট করলে সাফল্য পাবো! এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে ৩ টা বিষয় মাথায় রাখুন:

১) চাহিদা ২) দক্ষতা এবং ৩) লোকবল।

আপনার জ্ঞান এবং দক্ষতার উপর ভরসা রাখুন। শুধুমাত্র কোনো ব্লগ ক্যাটেগরির জনপ্রিয়তা দেখে ব্লগ নিশ সিলেক্ট করলে আর্টিকেল লেখার রসদ কিছুদিন পরই হারিয়ে ফেলবেন এবং আপনার ইচ্ছাশক্তি নষ্ট হবে।

তাই ব্লগিং আপনার জন্য কি না, তা আগে জেনে নিতে হবে, কারণ অনেকেই ব্লগিং শুরু করে ছেড়ে দেন কিছু ভুল সিদ্ধান্তের কারণে। আপনি যদি একা ব্লগিং করতে চান, তবে আপনার উচিৎ মাইক্রো নিশ ব্লগ শুরু করা।

যদি দুই-তিনজন এবং সেইসাথে মেম্বারশীপ দিয়ে আরো মানুষকে যুক্ত করতে চান তবে আপনি মাল্টি নিশ ব্লগ শুরু করুন। প্রফেশনালি নিজেই ব্লগ কাস্টমাইজ করতে চাইলে সেটিংসগুলো শিখে নিতে হবে এবং আস্তে আস্তে অনপেজ এসইও শেখা শুরু করুন।

আশা করি জনপ্রিয় ব্লগিং নিশ আইডিয়া থেকে আপনি আপনার পছন্দ মাফিক ব্লগ নিস পেয়ে যাবেন। আপনার জন্য কোন ব্লগিং নিস লাভজনক হবে, কোন বিষয় নিয়ে ব্লগ তৈরি করবেন সেই উত্তরও খুঁজে পেয়েছেন।


Abdullah

বর্তমানে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদে অধ্যয়নরত। জানার আগ্রহ থেকে whyorwhen এবং Pratiborton এ লেখালেখি করি।

6 Comments

Subir Mondal · আগস্ট 18, 2021 at 1:14 অপরাহ্ন

hello, sir I really need your help for, my site …. can you help me??????????

    Abdullah · আগস্ট 18, 2021 at 4:13 অপরাহ্ন

    স্যার বলছেন কেন ভাই!
    আপনার যে কি হেল্প দরকার তা তো বলেননি! কন্টাক্ট পেজ থেকে মেইল এড্রেস নিয়ে মেইল করুন।

Tanvir · মার্চ 18, 2021 at 8:07 পূর্বাহ্ন

ভাই লেখাটা পড়ে খুব ভালো লাগলো। ভাই আমিও এই নিশে কাজ করছি কিভাবে সফল হওয়া যাবে??

    Pratiborton · মার্চ 18, 2021 at 10:24 অপরাহ্ন

    নতুন অবস্থায় লং টেইল কিওয়ার্ড নিয়ে কাজ করুন, নিয়মিত এবং মানসম্মত আর্টিকেল পাবলিশ করতে থাকুন। আপনার জন্য শুভকামনা।

Shourov · জানুয়ারী 18, 2021 at 2:13 পূর্বাহ্ন

স্পোর্টস বিষয়ে আমি পারদর্শী। তবে সফল হওয়ার কতটুকু সম্ভাবনা রয়েছে।

    Pratiborton · জানুয়ারী 20, 2021 at 1:22 অপরাহ্ন

    অবশ্যই খুব ভালো সম্ভাবনা রয়েছে। তবে ওয়েবপেজ ডিজাইন, কনটেন্ট কোয়ালিটি এবং নিয়মিত আপডেট দিতে হবে।

মন্তব্য করুন

Avatar placeholder

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!