ছবি সাজানো সফটওয়্যার – সেরা ৭টি

ছবি সুন্দর করার সফটওয়্যার

মোবাইল, ট্যাব কিংবা কম্পিউটারে ছবি এডিট, সাজানো ও সুন্দর করার কাজে যেসব অ্যাপ ব্যবহার করা হয়, সেগুলোকেই আমরা ছবি সাজানো সফটওয়্যার বলে থাকি। ছবি শুধু তুললেই তো আর হয় না, একে সাজাতেও হয়। ছবিটির মধ্যে কি কি কমতি রয়েছে বা কি যোগ করলে ছবিটি মানসম্মত হয়ে উঠবে, ছবিটিকে অনন্য করার জন্য ছবিটি সাজাতে হয়। আর এজন্য ছবি সাজানো সফটওয়্যার প্রয়োজন।

কোন ছবি তোলার সময় অনেক কিছুর সঠিক কম্বিনেশন থাকলে তবেই সুন্দর একটি ছবি আসে। আলোর স্বল্পতা কিংবা অন্য কোন কারণে ছবি খারাপ আসছে বলে তো আর সুন্দর লোকেশনে ছবি তোলা বন্ধ থাকতে পারেনা।

তাছাড়া, পরবর্তীতে ছবিকে সুন্দর করার জন্য তো আর আমাদের কোনো ফটো স্টুডিওতে যেতে হচ্ছেনা, জানতে হবেনা ফটোশপের মতো বড় কোন সফটওয়্যার এর কাজও। আপনার মোবাইলে পিকচার সুন্দর করার অ্যাপস বা ছবি সাজানোর সফটওয়্যার ডাউনলোড দিয়ে খুব সহজেই ছবিগুলোকে সুন্দর করতে পারবেন।

ছবি সাজানো  সফটওয়্যার কেন জরুরী?

আপনি পেশাদার ফটোগ্রাফার হন বা না হন, আপনিও নিশ্চয়ই বাকি সবার মতো নিজের তোলা ছবিটাকে দেখতে যেন সুন্দর ও আর্কষনীয় লাগে। ছবি এডিটিং করার মাধ্যমে ছবিকে আর্কষনীয় ও অনন্য করে তোলা সম্ভব। আমরা একটা পার্থক্য দেখে নেই!

ছবি সাজানো সফটওয়্যারউপরের ছবিটিতে দেখছেন, এক পাশের ছবিটিতে এডিটিং করা হয়নি এবং অন্য পাশের ছবিটিতে করা হয়েছে। ছবিটি দেখলে যে কেউ আলাদা করতে পারবে। ছবিটি সাজানোর পর অবশ্যই বেশি আর্কষনীয় লাগছে। এডিটিং এর ফলে ছবিটি আলাদা ছোঁয়া পেয়েছে, যা ছবিটিকে অনন্য করে তোলেছে।

ছবি এডিটিং সফটওয়্যার অনেক এর বিভিন্ন কারণেই দরকার হয়ে থাকে। কারো নিজ ছবি এডিট করার জন্য, আর কারো কারো প্রফেশনাল কাজের উদ্দেশ্যে যেমন: ছবি দিয়ে ভিডিও তৈরি কিংবা ব্লগ, ইউটিউব চ্যানেলের জন্য থাম্বনেল, ফিচার ফটো প্রভৃতি কাজে।

ছবি সাজানো সফটওয়্যার

প্লে-স্টোর, Apple-স্টোর, অনলাইনে অনেক ধরনের ছবি সাজানোর সফটওয়্যার রয়েছে। পেইড, বিনামূল্যে, অনলাইন, অফলাইন ভিত্তিক অনেক অ্যাপ রয়েছে।

চলুন আমাদের মূল প্রসঙ্গ অর্থাৎ, সেরা ৭টি ছবি সাজানোর সফটওয়্যার সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

1. CANVA – সেরা ছবি সাজানোর সফটওয়্যার

ছবি সাজানোর অ্যাপক্যানভা অনলাইন ফটো এডিটর টুল এর জন্য বিখ্যাত। Canva’র মোবাইল অ্যাপটিও গ্ৰাফিক ডিজাইন এর জন্য অসাধারন একটি সফটওয়্যার। কিন্তু এর মধ্যে বাকি ফিচার ও রয়েছে যেমন photo grid design, logo design, বিভিন্ন ফিল্টার এবং effect ও রয়েছে।

৫০০+ ফন্ট রয়েছে তা আপনি নিজের ছবিতে ব্যবহার করতে পারবেন। CANVA তে আপনি বিনামূল্যে অনেক ফিচার পাচ্ছেন তা আসলেও লাভজনক। এছাড়া ক্যানভা ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যারগুলোর মাঝেও অন্যতম। সুতরাং, ক্যানভা থাকলে আপনাকে ভিডিওর জন্য আলাদা কোন অ্যাপ ইন্সটল করতে হবেনা।

অ্যাপ টি আপনি চাইলে ব্রাউজার অথবা প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করেও ব্যবহার করতে পারবেন।

মেইন ফিচার:

  • ফটো ফিল্টার
  • ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভার
  • ট্রান্সপারেন্ট ছবি তৈরি
  • লোগো তৈরি
  • 500+ ফন্ট – কার্ভড, গ্লিচ ইফেক্ট, নিয়ন টেক্সট স্টাইল ইত্যাদি।

2. Photoshop Express Photo Editor

ছবি সুন্দর করার সফটওয়্যারAdobe Photoshop কে ছবি এডিটিং এর রাজা বলা হয়। ছবি এডিটিং এর সেরা সফটওয়্যার এর মধ্যে Adobe Photoshop অন্যতম।

অ্যাপটির মধ্যে রয়েছে আধুনিক ছবি এডিটিং টুল, photo effects, এবং ফিল্টার ।অ্যাপটিতে আপনি পাচ্ছেন স্টিকার মেকার, color gradient, pic collage সহ আরো অনেক ফিচার।

এটি একটি পেইড অ্যাপ, আপনাকে অ্যাপটির ফিচার কিনে ব্যবহার করতে বে। আপনি চাইলে প্রথমে অ্যাপটি ফ্রিতে trial দিয়ে দেখতে পারেন।

মেইন ফিচারস:

  • আঁকাবাঁকা ছবির ক্যামেরা কোণ ঠিক করা
  • ব্লার প্রয়োগ
  • মিমস এবং ক্যাপশন তৈরি
  • ফ্রেম যোগ করা এবং
  • কাস্টম ওয়াটারমার্কের সাথে স্ট্যাম্প তৈরি।

3. ADOBE LIGHTROOM – ছবি সাজানোর অ্যাপস

ছবি সাজানোর অ্যাপছবি এডিটিং এর সেরা সফটওয়্যার গুলোর মধ্যে Adobe lightroom একটি। আপনি অ্যাপটিতে শুধু এডিটিং নয় বরং ছবি ও তুলতে পারবেন। বিভিন্ন ধরনের এডিটিং টুলসহ আকর্ষণীয় ফিল্টার। Advanced photography tools এবং sharpening toolsও রয়েছে। এসব ফিচার ব্যবহার করে যে কোনো ছবিকে আর্কষনীয় করে তোলা সম্ভব।

মেইন ফিচারস:

  • ক্রপ এবং রোটেট
  • মূল ছবি না হারিয়ে ফটো এডিট তুলনা এবং পছন্দের লুক বেছে নেওয়ার সুযোগ
  • প্রিসেট অ্যাক্সেস
  • স্মার্ট ফটো অর্গানাইজেশন

4. PICSART – ছবি সুন্দর করার সফটওয়্যার

ছবি সুন্দর করার অ্যাপজনপ্রিয় ছবি সাজানোর সফটওয়্যারগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে PicsArt. অ্যাপটি ব্যবহার করা অত্যন্ত সহজ। PicsArt এর মধ্যে প্রচুর ফিচার রয়েছে যার মাঝে হচ্ছে ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ এবং পরিবর্তন, অসখ্য ফিল্টার, ফ্রেম, প্রি ব্যাকগ্রাউন্ড ফটো, double exposures, 100+ ফন্ট, ইত্যাদি।

অ্যাপটির পেইড ভার্সনও রয়েছে তবে ফ্রি ভার্সন দিয়েই ম্যাক্সিমাম ফিচার ব্যবহার করা যায়।

মেইন ফিচারস:

  • জনপ্রিয় ফটো ইফেক্টের জন্য ট্রেন্ডিং ফিল্টার
  • ব্যাকগ্রাউন্ড ইরেজার
  • অবাঞ্ছিত বস্তু মুছে ফেলা যাবে
  • 200+ ডিজাইন ফন্ট
  • হেয়ার কালার চেঞ্জার, মেকআপ স্টিকার
  • AI-চালিত স্মার্ট সিলেকশন টুল দিয়ে ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার করা
  • দ্রুত ফ্লিপ এবং ফটো ক্রপিং
  • ছবিতে স্টিকার যোগ করা এবং
  • নিজস্ব স্টিকার তৈরি করার সুযোগ।

5. SNAPSEED

ফটো ইডিটিং এপস snapseedSnapseed ছবি এডিটিং ও ছবি সাজানোর জন্য জনপ্রিয় সফটওয়্যার। এই অ্যাপটি আপনি ফোনে সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন। এটি প্রায় সব ধরণের কাজে ব্যবহার করা যায় এমন একটি ফটো এডিটর অ্যাপ।এই অ্যাপ এর মধ্যে অনেকগুলো এডভান্স লেভেলে ছবি এডিটিং টুলস এবং ফিচার রয়েছে।

অ্যাপটিতে অনেকগুলো ফিল্টার আছে, তার মধ্যে ভিনটেজ স্টাইল, মর্ডান HDR তো আছেই।এই ফিল্টার এবং ইফেক্ট এর মাধ্যমে যেকোনো ছবি নতুন লুক দিতে পারে।

সবথেকে অবাক করা করা হচ্ছে, অ্যাপটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারবেন।

মেইন ফিচারস:

  • 29টি টুল এবং ফিল্টার ফিল্টার ব্রাশ ফ্রেম – সামঞ্জস্যযোগ্য আকারের সাথে ফ্রেম যুক্ত করুন
  • ডাবল এক্সপোজার
  • ত্বক মসৃণ করুন
  • ত্রিমাত্রিক মডেলের উপর ভিত্তি করে মুখের ভঙ্গি সংশোধন করুন

6. PIXLR EDITOR

ছবি সাজানোর মোবাইল অ্যাপগুগল প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করা অধিক জনপ্রিয় ছবি সাজানোর সফটওয়্যারগুলোর মাঝে পিক্সেল আর একটি। সফটওয়্যারটিতে ছবি এডিট করার পাশাপাশি গ্ৰাফিক ডিজাইন তৈরি করার জন্যও বিভিন্ন ফিচার রয়েছে।

Pixlr এর ২টি সংস্করণ রয়েছে। একটি হচ্ছে Pixlr X এবং অন্যটি Pixlr E । বিনামূল্যে হলেও কিছু ফিচার রয়েছে যা কিনতে হবে।

মেইন ফিচারস:

  • বিভিন্ন প্রিসেট কোলাজ, গ্রিড স্টাইল, কাস্টমাইজড রেশিও এবং ব্যাকগ্রাউন্ড সহ সহজেই ফটো কোলাজ তৈরি
  • অটো ফিক্স ব্যবহার করে একটি সহজ ক্লিকে অবিলম্বে ছবির রঙ সামঞ্জস্য করা
  • স্টাইলাইজ (পেন্সিল স্কেচ, পোস্টার, জলরঙ এবং আরও অনেক কিছু) ব্যবহার করে দুর্দান্ত ফটো ইফেক্ট তৈরি
  • অনায়াসে দাগ মুছে ফেলে, চোখ লাল করা, ত্বক মসৃণ করা বা সাধারণ টুল দিয়ে দাঁত সাদা করা যায়

7. DXO Photolab

ছবি এডিট করার সফটওয়্যারএটি মূলত কম্পিউটারে ছবি সাজানো সফটওয়্যার, যারা ফটোশপের জটিলতার জন্য বুঝে উঠতে পারছেন না, তাদের জন্য এই অ্যাপটি বেস্ট অপশন হতে পারে। সফটওয়্যারটির মধ্যে lightroom এবং Photoshop এর মতো সব ফিচারই রয়েছে। বিভিন্ন ধরনের আকর্ষণীয় ও আধুনিক tools বিদ্যমান সফটওয়্যারটিতে। এই অ্যাপ দিয়ে বিভিন্ন banner তৈরি করা যায় তবে, এটি গ্ৰাফিক ডিজাইন কাজের জন্য উপযুক্ত নয়।

সফটওয়্যারটি পেইড এবং এর ফিচার গুলোর মূল্য একটু বেশীই। তবুও সেরা মানের এডিট করা ছবি পেতে চাইলে এটিই সেরা। বলে না, জিনিস যেটা‌ ভালো দাম তার একটু বেশীই।

মেইন ফিচারস:

  • কাস্টমাইজযোগ্য ইন্টারফেস
  • অপটিক্যাল মডিউল
  • কালার বিন্যাস
  • স্মার্ট লাইট
  • 30 দিনের জন্য বিনামূল্যে ট্রায়াল

ছবি সাজানোর সফটওয়্যার নিয়ে শেষ কথা

অ্যাপ-স্টোরে ছবি সাজানো সফটওয়্যার কম নেই। তবে আপনার কি কাজে দরকার, কোনটা ফ্রি, কোনটা পেইড এবং সুবিধা অসুবিধা সম্পর্কে জেনে তারপর ইনস্টল করা উচিৎ।

সেরা ৭টি ছবি সাজানো সফটওয়্যার নিয়ে আজকের আর্টিকেলে আমরা চেষ্টা করেছি সবচেয়ে ছবি সুন্দর করার সবচেয়ে ভালো অ্যাপগুলোকে সামনে নিয়ে আসার। আশা করি, আপনার ছবি সাজানোর অ্যাপ বেছে নিতে নিশ্চিতভাবেই এই তালিকাটি কাজে লাগবে।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

error: Content is protected !!