অনলাইনে জিপিএফ হিসাব দেখার নিয়ম | How to check GPF Balance in online

জিপিএফ হিসাব দেখার নিয়ম

সরকারি চাকরিজীবীদের জিপিএফ হিসাব দেখার নিয়ম জানা থাকলে ঘরে বসে অনলাইনে প্রভিডেন্ড ফান্ডের জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করা যায়। চাকুরিজীবীদের মূল বেতনের সর্বনিম্ন ৫% এবং সর্বোচ্চ ২৫% হারে প্রতিমাসে প্রভিডেন্ড ফান্ডে টাকা রাখতে হয়। নিয়মটি সকলের জন্য বাধ্যতামূলক বিধায় জিপিএফ তথা প্রভিডেন্ড ফান্ডের ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম জানা থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এখন আপনার ভোটার আইডি কার্ড এবং মোবাইল নম্বর দিয়ে অনলাইনেই জিপিএফ হিসাব দেখতে পারবেন। এই আর্টিকেলে আমরা অনলাইনে জিপিএফ হিসাব দেখার নিয়ম অর্থাৎ, প্রভিডেন্ড ফান্ড ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম নিয়ে আলোচনা করবো, ইন-শা-আল্লাহ।

কয়েক বছর আগেও জিপিএফ ব্যালেন্স দেখার নিয়ম এতটা সহজ ছিল না। জিপিএফ হিসাব দেখার জন্য উপজেলা হিসাব সংরক্ষণ অফিসে যেতে হতো। সেখানে জিপিএফ একাউন্ট স্লিপ সংগ্রহ করে প্রভিডেন্ড ফান্ডের হিসাব দেখতে হতো। এখন শুধুমাত্র একটি মোবাইল ফোন এবং ইন্টারনেট থাকলেই জিপিএফ হিসাব দেখা যায়।

ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের অংশ হিসেবে ইএফটি বা ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার সিস্টেম চালু হয়েছে। ইএফটি সিস্টেমের মাধ্যমে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতা, বোনাস ব্যক্তির অনলাইন ব্যাংক অ্যাকাউন্টে প্রতি মাসে জমা হয়। তাই প্রভিডেন্ড ফান্ডও অনলাইনেই নিয়ন্ত্রণ ও পরিচালিত হচ্ছে।

জিপিএফ কি | What is GPF in Bangla?

সরকারি চাকরিজীবীদের General Providend Fund সংক্ষেপে GPF নামে পরিচিত। একজন সরকারি চাকরিজীবীর চাকুরীর মেয়াদ ২ বৎসর পূর্ণ হওয়ার পর এই তহবিলে যোগদান করা বাধ্যতামূলক। তবে, একজন কর্মচারী ইচ্ছা করলে ২ বৎসর পূর্ণ হওয়ার পূর্বেও তহবিলে যোগদান করতে পারবেন।

সরকারি কর্মচারীর মূল বেতনের সর্বোচ্চ ২৫% সর্বনিম্ন ৫% টাকা প্রতিমাসে এই ফান্ডে রাখতে হয়। প্রতি মাসে টাকা জমা করার হার চাকরিজীবীর নিজের ইচ্ছাধীন। জিপিএফ থেকে বর্তমানে ১৩% হারে সুদ পাওয়া যায়। তাই উচ্চ সুদের হার এবং প্রয়োজনে অগ্রীম টাকা উত্তোলনের সুবিধা থাকায় এটা অনেক জনপ্রিয়ও বটে।

সরকারি চাকরিজীবীরা তাদের বেতনের এই অংশটি ভবিষ্যৎ প্রয়োজন এবং অবসরের পর একসাথে পাওয়ার জন্য সঞ্চয় করেন। প্রভিডেন্ড ফান্ড থেকে অবসরের পর বড় অংকের টাকা একসাথে পাওয়া যায়।

অনলাইনে জিপিএফ হিসাব দেখতে যা যা লাগবে

অনলাইনে জিপিএফ ব্যালেন্স দেখার জন্য প্রয়োজনীয় যা যা লাগবে:

  • কম্পিউটার, ট্যাব অথবা স্মার্টফোন
  • ইন্টারনেট সংযোগ
  • NID / Smart Card নাম্বর
  • মোবাইল নাম্বর

বি.দ্র! পে ফিক্সেশন করার সময় ব্যবহৃত এনআইডি এবং মোবাইল নম্বর এখানে ব্যবহার করতে হবে।

অনলাইনে জিপিএফ হিসাব দেখার নিয়ম | How to Check GPF Balance Online

অনলাইনে জিপিএফ হিসাব দেখার জন্য;

  1. প্রথমে www.cafopfm.gov.bd সাইট ভিজিট করুন।
  2.  Office of the Chief Accounts & Finance Officer, Pension and Fund Management সাইটে প্রবেশের পর GPF Information বক্সে থাকা “Click Here” বাটনে প্রেস করতে হবে।
  3. এবার আপনার NID ও মোবাইল নম্বর দিয়ে “Submit” বাটনে ক্লিক করুন।
  4. আপনার ফোনে আসা OTP কোডটি খালি বক্সে বাসিয়ে পুনরায় “Submit” বাটনে প্রেস করুন।
  5. এখন আপনি আপনার জিপিএফ ব্যালেন্স দেখতে পাবেন।

নীম্নে অনলাইনে জিপিএফ হিসাব দেখার নিয়ম স্টেপ বাই স্টেপ পুরো প্রক্রিয়াটি দেখানো হলো:

ধাপ ১: ওয়েবসাইট ভিজিট

প্রথমে যেকোনো ব্রাউজার থেকে www.cafopfm.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।

ধাপ ২: GPF Information বক্সে ক্লিক করুন

ওয়েবসাইটে প্রবেশের পর নীচের ছবির মতো একটি পেজ আসবে। পেজের GPF Information বক্সে থাকা “Click Here” বাটনে ক্লিক করতে হবে।

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার উপায়

ধাপ ৩: এনআইডি এবং মোবাইল নম্বর প্রদান:

একাউন্টে প্রবেশ করার জন্য আপনার সামনে একটি নতুন উইন্ডো দেখতে পাবেন। এখানে NID নম্বর এবং মোবাইল নম্বর দিতে হবে।

প্রোভিডেন্ট ফান্ড চেক করার নিয়ম

প্রথম ঘরটিতে ১৭ ডিজিটের জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর অথবা ১০ ডিজিটের স্মার্ট ভোটার আইডি নাম্বার ইনপুট দিতে হবে। যদি আপনার এনআইডিটি ১৩ ডিজিটের হয়ে থাকে তবে প্রথমে জন্মসাল ব্যবহার করুন। এরপর পে ফিক্সেশনের সময় ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরটি ২য় বক্সে প্রবেশ করান।

সঠিকভাবে উপরের দুটি ঘর পূরণ করে নীচের “Submit” বাটনে প্রেস করুন।

ধাপ ৪: ইমপ্লয়ী ভেরিফিকেশন

এনআইডি এবং মোবাইল নাম্বার দিয়ে সাবমিট করার পর আপনার ফোনে একটি OTP কোড চলে আসবে। এবার নতুন আরেকটি বক্সে OTP কোডটি বসিয়ে দিয়ে পুনরায় “Submit” বাটনে ক্লিক করুন।

GPF balance check online

ধাপ ৫: জিপিএফ ব্যালেন্স পেইজ

পূর্বের ধাপগুলো সঠিক ভাবে অনুসরণ করে থাকেন,  আপনার সামনে এবার জিপিএফ ব্যালেন্স পেজ চলে আসবে।

ব্যালেন্স পেজের নীচের দিকে “Account Information” নামক টেবিলে প্রভিডেন্ড ফান্ডের সকল তথ্য ছক আকারে দেখা যাবে। টেবিলটিতে Opening Balance, Subscription, Refund, Total, Profit, Withdrawal, Closing Balance -এর তথ্যগুলো সুন্দর ভাবে সাজানো রয়েছে। আপনি একনজরেই সমস্ত তথ্য জেনে নিতে পারবেন।

জিপিএফ ব্যালেন্স পেজের উপরের ডান পাশে “Print” নামক বাটনে ক্লিক করে পুরো পেজটি প্রিন্ট করতে পারবেন। এই প্রিন্ট কপি ব্যবহার করে জিপিএফ এর টাকা উত্তোলন করা যাবে।

জিপিএফ হিসাব ক্যালকুলেটর | GPF Calculator

বছর শেষে প্রভিডেন্ড ফান্ডের ব্যালেন্স কত হতে পারে জানাতে উপজেলা হিসাব সংরক্ষণ অফিসে যেতে হতো। অথবা নিজে নিজে জটিল সব অংক করে বের করতে হতো। এখন প্রভিডেন্ড ফান্ডের বছরান্তে সম্ভাব্য মোট টাকার পরিমাণ অনলাইনেই হিসাব করা যায়। জিপিএফ হিসাব কিছুটা জটিল হলেও জিপিএফ হিসাব ক্যালকুলেটর দিয়ে খুব সহজেই করা যায়।

জিপিএফ হিসাব ক্যালকুলেটর ব্যবহার করার নিয়ম:

ধাপ ১: ক্যালকুলেটর পেজে প্রবেশ

জিপিএফ হিসাব করার জন্য প্রথমেই ক্যালকুলেটর পেজে যেতে হবে। ক্যালকুলেটর ওপেন করতে এই ডেস্কটপ বা স্মার্টফোন থেকে এই লিংকে প্রবেশ করুন

জিপিএফ ক্যালকুলেটর

ধাপ ২: প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান

জিপিএফ হিসাব ক্যালকুলেটরে প্রবেশ করে Opening Balance, Monthly Subscription, Rate for Interest, Advance Withdrawal বক্সগুলোতে সঠিক তথ্য প্রদান করতে হবে। সুদের হার “Rate of Interest” বক্সের মধ্যে দেখা যায়। হিসাব করার সময় সেটিই বসিয়ে দিতে হবে।

কোন বক্সে কোন তথ্য বসাতে হবে চলুন জেনে নেই:

  • Opening Balance: বছরের শুরুতে মোট জমা টাকার পরিমাণ।
  • Monthly Subscription: প্রতি মাসে বেতন থেকে জমা রাখা টাকার পরিমাণ।
  • Rate for Interest: সরকার প্রদত্ত সুদের হার।
  • Advance Withdrawal: জমা করার পূর্বেই উত্তোলনকৃত টাকার পরিমাণ।

ধাপ ৩: রেজাল্ট পেজ প্রদর্শন

সবগুলো তথ্য সঠিক ভাবে বসানোর পর “result” বাটনে ক্লিক করলে নীচের ছবির মতো ফলাফল চলে আসবে।

প্রোভিডেন্ট ফান্ড ব্যালেন্স দেখার নিয়ম

জিপিএফ হিসাব করার পদ্ধতি জটিল হলেও জিপিএফ হিসাব ক্যালকুলেটরের মাধ্যমে দ্রুত এবং সহজে হিসাব করা যায়।

উপরের নিয়মগুলো অনুসরণ করে আপনিও দ্রুত সময়ে নির্ভুল হিসাব করতে পারবেন।

Provident fund সম্পর্কে ইসলাম কী বলে?

সরকারি চাকরিজীবিদের জন্য সরকারের দেওয়া সব টাকা পয়সা প্রথমবার নেওয়া জায়েজ। কিন্তু যে কোনো ফান্ডে, যেখানে সুদ দেওয়া হয়, তা জিপিএফ হোক বা অন্যকিছু সেখানে নিজের টাকাগুলো রেখে সুদ বা লাভ উঠানো জায়েজ নেই। এ টাকা তুলে ফেললে হয় নিজে খরচ করতে হবে কিংবা কোনো হালাল জায়গায় বিনিয়োগ করতে হবে। সুদওয়ালা কোনো ফান্ড বা ব্যবসায় লাগিয়ে এর লাভ খাওয়া হালাল হবে না।

সূত্র : দৈনিক ইনকিলাব

জিপিএফ হিসাব দেখার নিয়ম নিয়ে শেষ কথা

ইলেক্ট্রনিক মানি ট্রান্সফার সিস্টেম চালু হওয়ার জিপিএফ হিসাব দেখার নিয়ম জানা থাকলে ঘরে বসেই প্রোভিডেন্ট ফান্ড তথা জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করা যাবে।

আশাকরি, সঠিক তথ্য দিয়ে এবং উপরের জিপিএফ হিসাব দেখার নিয়ম অনুসরণ করে আপনিও ঘরে বসে আপনার জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন।

আল্লাহ সুদকে হারাম করেছেন, তাই পরকালের কথা ভেবে সুদ থেকে বেঁচে থাকুন। ওমা তৌফিক ইল্লা বিল্লাহ।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Scroll to Top