প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন

প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন

প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন পত্র লেখার নিয়ম এবং প্রত্যয়ন পত্র লেখার নিয়ম সম্পূর্ণ আলাদা। একটি হলো প্রত্যয়ন পত্র চেয়ে নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা সংস্থার কাছে আবেদন, আর অন্যটি আবেদনের প্রেক্ষিতে ব্যক্তি বা সংস্থা কর্তৃক যে সনদ দেওয়া হবে।

সহজ ভাষায়, কোনো নির্দিষ্ট মানুষ সম্পর্কে কোনো প্রতিষ্ঠান, সংস্থা বা ব্যক্তি কর্তৃক সত্যায়িত কপি। যা মানুষটির পরিচয়, বৈশিষ্ট্য, আচার-আচরণ, প্রভৃতি সম্পর্কে ধারণা দেয়।

আমাদের আজকের আলোচনায় প্রত্যয়ন পত্র চেয়ে দরখাস্ত লেখার নিয়ম এবং নমুুনা দেখবো। সেইসাথে, বর্তমানে নাগরিক সুবিধার কথা বিবেচনা করে অনলাইনে প্রত্যয়ন পত্র আবেদন করা যাচ্ছে। আলোচনার শেষের দিকে আমরা কিভাবে অনলাইনে প্রত্যয়ন পত্র আবেদন করা যায় সেসম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিবো।

প্রত্যয়ন পত্র কী?

আমাদের দৈনন্দিন অনেক কাজেই প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন হয়। আপনি কি, কেমন তা কেউ আপনার মৌখিক কথা বা কয়েক মিনিটের আলোচনার উপর ভিত্তি করে বিচার করতে চাইবে না। এজন্য আপনাকে জানেন এমন ব্যক্তি ও সংস্থার কাছ থেকে যেমন: শিক্ষা প্রতষ্ঠান, চেয়ারম্যান, বর্তমান কর্মস্থল প্রভৃতি থেকে লিখিত ডকুমেন্ট চাওয়া হয়, আর আবেদনের পেক্ষিতে ব্যক্তি সম্পর্কে যে সনদ দেওয়া হয় তাই প্রত্যয়ন পত্র।

প্রত্যয়ন পত্র কত প্রকার?

প্রত্যয়ন পত্র বিভিন্ন ধরনের হতে পারে। যেমন:

  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যয়ন পত্র
  • চাকুরী প্রত্যয়ন পত্র
  • সরকারী প্রত্যয়ন পত্র

সরকারী প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজনভেদে আবার বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে, যেমন-

  • জাতীয়তা সনদ
  • ভূমিহীন সনদ
  • উপজাতি সনদ
  • উত্তরাধিকার সনদ
  • মৃত্যু সনদ
  • চারিত্রিক সনদ
  • মাসিক আয়ের সনদ
  • অবিবাহিত সনদ
  • পুনঃবিবাহ সনদ
  • মুক্তিযোদ্ধা সনদ
  • বার্ষিক আয়ের সনদ
  • এতিম সনদ
  • বিবাহিত সনদ
  • বেকারত্ব সনদ
  • বিবিধ সনদ

প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন পত্র

প্রত্যয়ন পত্র চেয়ে আপনাকে নির্দিষ্ট কর্মকর্তা বরাবর দরখাস্ত লিখত হবে। আপনার কেন প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন তা যাচাই করে তিনি অনুমতি দিলে আপনার প্রয়োজনীয় প্রত্যয়ন পত্রটি পেয়ে যাবেন।

এপর্যায়ে আমরা কিভাবে নির্দিষ্ট ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান বরাবর প্রত্যয়ন পত্র চেয়ে আবেদন পত্র লিখবো তার কিছু নমুনা ও নিয়ম দেখে নিবো।

স্কুল প্রত্যয়ন পত্রের জন্য প্রধান শিক্ষকের নিকট আবেদন পত্র

তারিখঃ ২১/১২/২০২১

বরাবর

প্রধান শিক্ষক

বগুড়া জিলা স্কুল,

সাতমাথা, বগুড়া।

বিষয়ঃ স্কুল প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন ।

জনাব,

বিনীত নিবেদন এই যে, আমি মোঃ …………..( আপনার পূর্ণ নাম), পিতাঃ……………. (বাবার পূর্ণ নাম লিখুন), মাতাঃ…………….. (মায়ের পূর্ণ নাম লিখুন), গ্রামঃ………….., ডাকঘরঃ…………., থানাঃ…………., জেলাঃ…………. । আমি আপনার প্রতিষ্ঠানের ৭ম শ্রেণীর একজন নিয়মিত ছাত্র, আমার শ্রেণী রোলঃ…………। আগামী পহেলা জানুয়ারী ২০২২ ইং তারিখে অনুষ্ঠিত জেলা পর্যায়ের গনিত অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। উক্ত প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে আমার একটি প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন।

অতএব, জনাবের নিকট বিনীত নিবেদন এই যে, আমি যেন স্কুল প্রত্যয়ন পত্র পেতে পারি সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আপনার একান্ত মর্জি হয়।

বিনীত

আপনার একান্ত অনুগত

মোঃ …………..

শ্রেণী: …………

রোল: ………..

কলেজ প্রত্যয়ন পত্র চেয়ে কলেজ অধ্যক্ষের নিকট আবেদন

তারিখঃ ২১/১২/২০২১

বরাবর

অধ্যক্ষ

বগুড়া সরকারী আজিজুল হক কলেজ,

বগুড়া।

বিষয়ঃ কলেজ প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন ।

জনাব,

বিনীত নিবেদন এই যে, আমি মোঃ …………..( আপনার পূর্ণ নাম), পিতাঃ……………. (বাবার পূর্ণ নাম লিখুন), মাতাঃ…………….. (মায়ের পূর্ণ নাম লিখুন), গ্রামঃ………….., ডাকঘরঃ…………., থানাঃ…………., জেলাঃ…………. । আমি আপনার কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের একজন নিয়মিত ছাত্র, আমার ক্লাস আইডি…………। আগামী মাসে সেনাবাহিনীতে লেফটেন্যান্ট পদে জনবল নিয়োগ দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হবে। আমি এই পদের জন্য আবেদন করতে ইচ্ছুক। এমতাবস্থায় আমার কলেজ থেকে একটি প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন।

অতএব, জনাবের নিকট বিনীত নিবেদন এই যে, আমি যেন কলেজ প্রত্যয়ন পত্র পেতে পারি সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আপনার একান্ত মর্জি হয়।

বিনীত

আপনার একান্ত অনুগত

মোঃ …………..

শ্রেণী: দ্বাদশ: ………..

শ্রেণী আইডি: ………..

চেয়্যারম্যান প্রত্যয়ন পত্র

তারিখঃ ২১/১২/২০২১

বরাবর

চেয়ারম্যান

মির্জাপুর ইউনিয়ন

শেরপুর, বগুড়া।

বিষয়ঃ প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন ।

জনাব,

বিনীত নিবেদন এই যে, আমি মোঃ …………..( আপনার পূর্ণ নাম), পিতাঃ……………. (বাবার পূর্ণ নাম লিখুন), মাতাঃ…………….. (মায়ের পূর্ণ নাম লিখুন), গ্রামঃ………….., ডাকঘরঃ…………., থানাঃ…………., জেলাঃ…………. । আমি আপনার ইউনিয়নের একজন সাধারণ নাগরিক। গত ………../………/………… ইং তারিখে আমার ……………পদে চাকরি হয়। চাকরিতে যোগদানের জন্য আমার একটি প্রত্যয়ন পত্র (চারিত্রিক সনদ পত্র/নাগরিক সনদ পত্র) প্রয়োজন।

অতএব, জনাবের নিকট বিনীত নিবেদন এই যে, আমি যাহাতে নাগরিক সনদ পত্র পেতে পারি সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আপনার একান্ত মর্জি হয়।

বিনীত নিবেদক

মোঃ …………..

গ্রাম: ………..

মোবাইল নং: ………..

কোম্পানীর প্রত্যয়ন পত্র চেয়ে আবেদন

তারিখঃ ২১/১২/২০২১

বরাবর

ম্যানেজার

সোনারগাঁও প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেড,

নারায়নগঞ্জ।

বিষয়ঃ প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন ।

জনাব,

বিনীত নিবেদন এই যে, আমি মোঃ …………..( আপনার পূর্ণ নাম)। আমি আপনার কোম্পানীতে গত দুই বছর যাবৎ অফিসার প্রোডাকশন পদে কর্মরত আছি। গত মাসে প্রকাশিত বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের প্রকাশিত গ্যাজেটে আমার সরকারী চাকুরী নিশ্চিত হয়। আমি বর্তমান চাকুরী থেকে অব্যাহতি নিয়ে সরকারী চাকুবিতে যোগদান করতে ইচ্ছুক। এমতাবস্থায়, আপনার কোম্পানী থেকে আমার একটি প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন।

অতএব, জনাবের নিকট বিনীত নিবেদন এই যে, আমি একটি প্রত্যয়ন পত্র পেতে পারি সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আপনার একান্ত মর্জি হয়।

বিনীত নিবেদক

মোঃ …………..

প্রোডাকশন অফিসার

সোনারগাঁও প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেড,

নারায়নগঞ্জ।

সরকারি চাকরির প্রত্যয়ন পত্র এর জন্য আবেদন

তারিখঃ ২১/১২/২০২১

বরাবর

পোস্টমাস্টার জেনারেল

ডাক অধিদপ্তর

কেন্দ্রীয় সার্কেল, ঢাকা।

বিষয়ঃ প্রত্যয়ন পত্রের জন্য আবেদন ।

জনাব,

বিনীত নিবেদন এই যে, আমি মোঃ …………..(আপনার পূর্ণ নাম)। আমি গত দুই বছর যাবৎ আপনার অফিসে সহকারী প্রকৌশলী (পুর) পদে কর্মরত আছি। বর্তমানে আমার পাসপোর্ট করার দরকার। এমতাবস্থায়, অফিস থেকে সরকারী চাকুরীর ডকুমেন্ট হিসেবে আমার একখানা প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন।

অতএব, জনাবের নিকট বিনীত নিবেদন এই যে, আমি যেন একটি প্রত্যয়ন পত্র পেতে পারি সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আপনার একান্ত মর্জি হয়।

বিনীত নিবেদক

মোঃ …………..

পোস্টমাস্টার জেনারেল

ডাক অধিদপ্তর

কেন্দ্রীয় সার্কেল, ঢাকা।

অনলাইন প্রত্যয়ন পত্র আবেদন

আমাদের সরকারী কর্মকর্তারা প্রায়ই ব্যস্ত থাকার কারণে একটি প্রত্যয়ন পত্র পেতে অনেক সময় লেগে যায়। যার কারণে প্রায়শই আমাদের ভোগান্তি পোহাতে হয়। এসব সমস্যা বিবেচনায় এনে বাংলাদেশের সকল ইউনিয়ন, সিটি কর্পোরেশন এবং পৌরসভা থেকে প্রাপ্ত প্রত্যয়ন পত্রের জন্য অনলাইনে আবেদনের সুবিধা আনা হয়ে হয়েছে।

অনলাইনে প্রত্যয়ন পত্র আবেদনের জন্য ইন্টারনেট ব্যবহার করে prottyon ওয়েবসাইট ভিজিট করে আপনাকে একটি ফ্রি একাউন্ট করতে হবে। এরপর আপনার প্রয়োজনীয় prottoyon potro এর বিবরণ দিয়ে নিজ ইউনিয়ন, পৌরসভা কিংবা সিটি কর্পোরেশন অফিস বরাবর আবেদন করতে হবে।

সরকার কর্তৃক নির্ধারিত আবেদন ফি কার্ড, মোবাইল ব্যাংক যেমন: বিকাশ, রকেট কিংবা নগদ একাউন্ট ব্যবহার করে পেমেন্ট করতে পারবেন।

আপনার আবেদন অনুমোদিত হলে সফট কপি ডাউনলোড করতে পারবেন। তবে এখনো সকল কার্যালয় অন্তর্ভুক্ত হয়নি। আশা করা যাচ্ছে দ্রুতই সকল ইউনিয়ন, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশন অফিস আওতাভুক্ত হবে।

প্রত্যয়ন পত্রের জন্য কি ফি দিতে হয়?

আপনি কোথায় থেকে প্রত্যয়ন পত্র নিচ্ছেন তার উপর নির্ভর করে। যেমন: শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান এবং সরকারী অফিস থেকে নেওয়ার জন্য ফি দিতে হয়, কিন্তু কর্মস্থল থেকে নিতে টাকা খরচ হবেনা।

আশা করি, আমাদের আজকের আলোচনা থেকে প্রাপ্ত প্রত্যয়ন পত্রের নমুনাগুলো থেকে ধারণা নিয়ে নিজেই কম্পিউটারে Doc File তৈরি করে প্রিন্ট করতে পারবেন।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

error: Content is protected !!