ঘরে বসে হাতে লিখে আয়, বিকাশে পেমেন্ট ২০২২

আর্টিকেল লেখার ওয়েবসাইট

আপনি কি ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করতে চান! কন্টেন্ট রাইটিং করে আয় করার জন্য আর্টিকেল লেখার ওয়েবসাইট খুঁজছেন, আমাদের সাইটে ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করুন। প্রতিবর্তন বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং সাইট হিসেবে নতুন ব্লগার ও রাইটারদের কাঝে জনপ্রিয়, কেননা সকল রাইটারদের লেখা আমরা যত্নসহকারে এডিট করার পরেও লেখকের নামেই প্রকাশ করি।

এছাড়া, আর্টিকেল পাবলিশ হওয়ার পর পেমেন্ট বিকাশে সাথে সাথে নিতে পারেন, পেমেন্ট উত্তোলনের জন্য হাজার টাকার লিমিটে পৌছানোর দরকার হয় না। তাই, ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার জন্য বিশ্বস্ত সাইটগুলোর মাঝে অবশ্যই একটি প্রতিবর্তন।

আপনার কি প্রতিদিন বা সপ্তাহে লেখার জন্য ২ ঘন্টা সময় হবে? যদি আপনার আর্টিকেল লেখার দক্ষতা ভালো হয়, কিংবা কিভাবে আর্টিকেল লিখতে হয় তা না জানলেও আর্টিকেল লেখার নিয়ম সম্পর্কে জেনে ঘরে বসে অনলাইনে আর্টিকেল লিখে আয় করতে আগ্রহী হন, তবে ব্লগার হিসেবে প্রথম শুভেচ্ছাটা প্রতিবর্তনের পক্ষ্য থেকে।

আপনি যদি ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করতে চান এবং বিশ্বস্ত কোন আর্টিকেল লেখার ওয়েবসাইট বা Content writing websites এর খোঁজে থাকেন, তবে আর্টিকেলটি আপনার জন্যই।

সূচীপত্র

ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার উপায়

বর্তমানে ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার উপায় অনেকগুলোই রয়েছে যেমন: নিজের ব্লগ শুরু করা, পত্রিকায় লিখে, গল্প লিখে, ফ্রিল্যান্স কন্টেন্ট রাইটার কিংবা কন্ট্রাক্ট রাইটিং জব।

পত্রিকায় লিখে আয় করার জন্য আপনার লেখার দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে, ব্লগ শুরু করে সফলতা পেতে সময় লাগবে, ফ্রিল্যান্সার হিসেবে সফল হতে হলে ইংরেজি আর্টিকেল লেখার মতো ইংরেজিতে দক্ষতা থাকতে হবে।

তাহলে এখন ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার উপায়গুলোর মাঝে সবচেয়ে সহজ এবং এখনি শুরু করা যাবে এমন উপায়গুলোর মাঝে যেটি বাকি থাকে, তা হলো বাংলাদেশী ব্লগের জন্য ঘরে বসে হাতে লিখে আর্টিকেল সাবমিট করা। কেননা, আপনি একজন ভালো লার্নার হলে ব্লগ আর্টিকেল লেখার নিয়ম এবং এসইও সম্পর্কে দুই-চারটি আর্টিকেল পড়লেই বাংলাদেশী ব্লগে লেখা পাবলিশযোগ্য সুন্দর আর্টিকেল লিখতে পারবেন।

যদিও বাংলায় আর্টিকেল লিখে ইংরেজি কনটেন্ট লেখকদের মতো বেশি আয় হবেনা, তবে শখের কাজ করে যদি সপ্তাহের ইন্টারনেট খরচটাও উঠানো যায় মন্দ কী!

আপনি যদি ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার মতো সাইটের খোঁজ করে থাকেন তবে এখন প্রতিবর্তনের সাথে ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করতে পারবেন।

Bangla content writing website হিসেবে জনপ্রিয় ব্লগ প্রতিবর্তনে লেখকগনের লেখা আর্টিকেল তাদের নাম, বায়োগ্রাফি এবং ছবিসহ প্রকাশ করা হয়।

তাই, পরিচিতি পাওয়ার সাথে সাথে নিজের নামের পাশে “ব্লগার” পদবীটাও যুক্ত করতে পারবেন। তাছাড়া, আপনার নিজের রাইটার সত্ত্বার পোর্টফোলিওটাও তৈরি হয়ে যাবে।

ঘরে বসে হাতে লিখে কত টাকা আয় হবে?

আমাদের সাইটে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার জন্য সাথে সাথে বিকাশ পেমেন্ট করা হয়। আমাদের ওয়েবসাইটে আপনার লেখা প্রকাশিত প্রথম আর্টিকেলটি পেমেন্ট পাবেন।

প্রতি ৭৫০-১০০০ শব্দের আর্টিকেলের জন্য পাবেন ১০০ টাকা। তবে শব্দ সংখ্যা ৭৫০ এর নিচে হলে লেখা প্রকাশ করা হবেনা।

আর্টিকেল ১০০০ শব্দের বেশি হলে পেমেন্ট একই হারে বৃদ্ধি পেতে থাকবে যেমন, ১১০০ শব্দের জন্য ১১০ টাকা, ১৫০০ শব্দের জন্য ১৫০ টাকা।

যারা ভালো আর্টিকেল লেখেন পরিচিতির সুবাদে বিভিন্ন জায়গা থেকে তারা কনটেন্ট লেখার জন্য অফার পাবেন।

আমরাও প্রতিবর্তন স্পেশাল লিস্টেড লেখকদের কন্ট্রাক্ট আর্টিকেল লেখার সুযোগ দেই, সব মিলিয়ে ভালো লেখকদের জন্য মাস শেষে আর্টিকেল লিখে বেশ ভালো একটা এমাউন্ট আয় করার সুযোগ রয়েছে।

প্রশ্ন: স্পেশাল লিস্টেড লেখক হওয়ার উপায় কী?

আপনার লেখার মান যদি আমাদের দেওয়া ফরম্যাট অনুযায়ী হয়, এবং সেই ধারা ধরে রাখতে পারেন, তাহলে আমরা আপনাকে একজন স্পেশাল রাইটার হিসেবে ধরে নিবো।

প্রশ্ন: স্পেশাল লিস্টেড লেখক হওয়ার লাভ কি?

স্পেশাল লিস্টেড লেখকদের ইনবক্সে কন্ট্রাক্ট জব পৌঁছে যাবে, যেখানে দুইগুণ পর্যন্ত বেশি আয় করার সুযোগ থাকে।

প্রশ্ন: কন্ট্রাক্ট জব কী?

প্রতিবর্তন ব্লগের পাশাপাশি বিভিন্ন সার্ভিসও দেয়, যার মধ্যে আর্টিকেল রাইটিং সার্ভিস অন্যতম। অর্থাৎ, অন্যান্য ব্লগ এবং এজেন্সি থেকে পাওয়া আর্টিকেল অর্ডার নিয়ে লিখে দেওয়া হয়।

আমাদের ব্লগে যারা লেখালেখি করেন, তাদের মাঝে সেরা লেখকগণই (স্পেশাল লিস্টেড) মূলত এই আর্টিকেলগুলো লেখেন। তারপর আমাদের এডিটরগণ সেসব লেখা রিভিউ, এডিট ও এসইও ফ্রেন্ডলি করে ক্লায়েন্ট এর কাছে সাবমিট করেন।

প্রশ্ন: প্রতিবর্তনে আমি দিনে কয়টা আর্টিকেল লিখে সাবমিট করতে পারবো?

আমরা কোনো লিমিট দেইনি, আপনার যতখুশি লিখতে পারেন। তবে প্রতিবর্তনে এডিটর রিভিউ ছাড়া কোনো আর্টিকেল পাবলিশ করা হয়না। অর্থাৎ, এডিটিং করার জন্য যথেষ্ট সময় প্রয়োজন হয়। সব মিলিয়ে সপ্তাহে ৫-৭ টার বেশি আর্টিকেল পাবলিশ করা সম্ভব হয়না।

প্রশ্ন: টাকা জমা রাখা যাবে কি?

প্রতিদিন যতগুলো আর্টিকেলই পাবলিশ হোক না কেন, পেমেন্ট সাথে সাথে নিতে হবে। আমাদের কাছে জমা রাখার কোনো সুযোগ নেই।

প্রশ্ন: আর্টিকেল কি সিরিয়ালি প্রকাশ করা হবে?

সিরিয়াল একটা বিষয় অবশ্যই। তবে আমরা ভালো লেখা দ্রুত পাবলিশ করতে চাই। তাই ইউনিক, এসইও ফেন্ডলি, ডিমান্ডিং লেখা আমরা দ্রুত পাবলিশ করবো।

মূল কথা হলো, লেখার মানের সাথে কম্প্রোমাইজ করবো না এবং ভালো লেখকদের সঠিকভাবে মূল্যায়ন করা হবে ইন-শা-আল্লাহ।

আর্টিকেল লেখার পেমেন্ট কিভাবে পাবো?

প্রতিটি লেখা প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথে আমরা ফেসবুক এবং টুইটারে শেয়ার করি। আপনার লেখা প্রকাশিত হলে আমাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার করা পোস্টটি আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করুন। স্ক্রিনশট নিয়ে বিকাশ নাম্বারসহ আমাদের ফেসবুক পেজে মেসেজ করুন।

আমরা আপনাকে সাথে সাথেই বিকাশে পেমেন্ট দেওয়ার চেষ্টা করবো। খুব বেশি দেরী হলেও ২ ঘন্টার অতিরিক্ত সময় নেওয়া হবেনা ইন-শা-আল্লাহ।

প্রতিবর্তন ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার সাইট, পেমেন্ট প্রুফ কোথায়?

প্রতিবর্তন বাংলা আর্টিকেল বা ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার সেরা সাইট কিনা সেটা নিয়ে আমরা তো কিছু বলতে পারি না, তবে বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট কিনা তা নিশ্চয়ই বলতে পারি।

ফেসবুকে আমাদের প্রতিবর্তন লেখক ফোরামে যোগ দিয়ে পেমেন্ট স্ট্যাটাস রিভিউ দেখলেই আশা করি বুঝতে পারবেন।

কীভাবে প্রতিবর্তনে লেখক হিসেবে যোগ দিবেন?

প্রতিবর্তন একটি প্রসিদ্ধ বাংলা ব্লগ। অন্যান্য ব্লগের মতো যেকেউ যা ইচ্ছা জমা দিলেই পাবলিশ করা হয়না। আমাদের কোয়ালিটি, লেখায় ব্যবহৃত শব্দ অবশ্যই মার্জিত হতে হবে। আমাদের লেখক বেশি হলে যেমন সমস্যা নেই, তবে অবিশ্বস্ত লেখক ও লো-কোয়ালিটি আর্টিকেল দরকার নেই।

এসব বিষয় খেয়াল রেখে লেখালেখি করার জন্য স্বর্বনিম্ন কলেজ স্টুডেন্ট হওয়া আবশ্যক। তবে, বিশ্ববিদ্যালয় স্টুডেন্টদেরকে আমরা অধিক মূল্যায়ন করি। এছাড়া,

  • ফেসবুক আইডি লেজিট হতে হবে। কোনো ফেক আইডি থেকে লেখা গ্রহণ করা হবে না
  • ফেসবুক আইডি লক থাকা যাবেনা তবে, মেয়েদের ক্ষেত্রে লক থাকলে স্টুডেন্ট আইডি সাবমিট করতে হবে, অথবা কিছু সময়ের জন্য আনলক করতে হতে পারে।

আপনি প্রতিবর্তনে ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করতে চাইলে প্রথমে ফেসবুক পেজে মেসেজ দিয়ে আবেদন করুন। কারণ, প্রতিবর্তন সবার থেকে লেখা নেয়না, এবং সামনেও সবার থেকে নিবেনা।

বি.দ্র: প্রতিবর্তনে আপনি নিজ থেকে একাউন্ট করতে পারবেন, তবে প্রতিবর্তন টিমের সাথে কথা না বলে সাবমিট করা কোন আর্টিকেল প্রকাশনার জন্য বিবেচনা করা হবে না।

তাই, লেখার আগে কনফার্ম করে নিন যে, প্রতিবর্তন আপনার থেকে লেখা নিবে এবং আপনি যে টপিকটি নিয়ে আর্টিকেল লেখার কথা ভাবছেন, সেই টপিকটি প্রতিবর্তনে প্রকাশনার যোগ্য।

কেননা, প্রতিবর্তন সার্চ ভলিয়্যুম নেই, হারাম কন্টেন্ট নিয়ে লেখা প্রকাশ করে না। সেইসাথে, যদি কোন টপিক নিয়ে পূর্বে প্রতিবর্তনে লেখা পাবলিশ করা হয়ে থাকে, সেই টপিকেও আর কোন লেখা প্রকাশ করা হয় না।

ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার জন্য কি কি প্রয়োজন হবে?

বাংলা আর্টিকেল লিখে আয় করার জন্য আপনার নতুন কোনোকিছুই ক্রয় করতে বা শিখতে হবে না। যা লাগবে তা আশা করি আপনার কাছে আছে বলেই আমাদের এই লেখা আর্টিকেলটি এখন আপনি পড়ছেন। তারপরেও দেখে নিন আর্টিকেল লেখার জন্য কী কী প্রয়োজন হতে পারে-

  • একটি পার্সোনাল কম্পিউটার কিংবা স্মার্টফোন
  • কম্পিউটারে লিখতে চাইলে বাংলা টাইপিং জানতে হবে (অভ্র দিয়ে লিখলে হবে না)
  • ইংরেজি আর্টিকেল পড়ে বুঝতে পারতে হবে

বাংলা আর্টিকেল লেখার সাইট প্রতিবর্তনে পোস্ট করার জন্য আর্টিকেলটি আপনাকে নিজে নিজেই সাজাতে হবে এবং ছবি, ট্যাগ, ক্যাটাগরি ঠিক করে সাবমিট করতে হবে।

প্রতিবর্তনে আর্টিকেল পাবলিশ হওয়ার জন্য পূর্ব শর্তাবলী

  • লেখা ইউনিক হতে হবে (কোনোরকম কপি থাকা যাবেনা)
  • পূর্বে বাংলায় প্রকাশিত হয়নি এমন টপিক অথবা কিওয়ার্ডটির সার্চ ভলিয়্যুম নূন্যতম ১০০ থাকতে হবে

এমন অনেক টপিক রয়েছে, যা বাংলায় কোনো ওয়েবসাইটে এখনো প্রকাশিত হয়নি। সুতরাং, এই টপিকটা বাংলায় লিখে পাবলিশ করলে ভবিষ্যতে অনেকের উপকারে আসবে।

তবে যদি পাবলিশ হয়ে থাকে, অর্থাৎ অনেক সাইটেই এটা নিয়ে লিখেছে, কিন্তু সার্চ ভলিয়্যুম নেই তাহলে লেখাটি পাবলিশ করা হবেনা।

প্রতিবর্তন শত শত আর্টিকেল নয়, প্রয়োজনীয় আর্টিকেল পাবলিশ করতে চায়। সুতরাং, মানুষের কি প্রয়োজন, তারা কি নিয়ে সার্চ করছে, সেসব বিষয়ে আমরা কোয়ালিটি আর্টিকেল সার্ভ করতে চাই।

প্রশ্ন: টপিক সার্চ ভলিয়্যুম কীভাবে জানবো?

টপিকটি প্রতি মাসে কতবার সার্চ হচ্ছে তা জানার জন্য প্রথমে উবারসাজেস্ট ভিজিট করুন। এবার টপিক এর মূল শব্দ (কিওয়ার্ড) যেমন, আর্টিকেল লিখে আয় লিখে সার্চ করুন। তবে তার পূর্বে ডান পাশে Bengali/Bangladesh সিলেক্ট করে নিবেন।

আর্টিকেল সার্চ ভলিয়্যুম

টপিক কিওয়ার্ড দেওয়ার সময় কখনো সম্পূর্ণ টপিক টাইটেল তুলে দেওয়া যাবে না, যেমন আমাদের আজকের টপিক টাইটেল ‘ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার উপায়’ সম্পূর্ণ লাইন লিখে সার্চ করলে দেখবেন কোন ভলিয়্যুম নেই।

তবে যদি আপনি শুধু ‘ঘরে বসে হাতে লিখে আয়’ ব্যবহার করে সার্চ করেন, তাহলে অবশ্যই ভলিয়্যুম এবং কন্টেন্ট আইডিয়া পেয়ে যাবেন। অর্থাৎ, সার্চ করার সময় কেবল টাইটেলের মূল শব্দ বা শব্দসমূহকে ব্যবহার করতে হবে।

যত ইচ্ছা তত Keyword Research করার জন্য ahrefs.com/keyword-generator এবং Google ব্যবহার করতে পারেন।

আর্টিকেল লেখার নিয়ম

১। কপি করবেন না: আপনার লেখায় যদি একটা লাইনও ডুপ্লিকেট থাকে, তবে আপনার লেখা রিভিউ বোর্ডে আটকে যাবে। আপনাকে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করা হবে। অর্থাৎ, আর কখনো আমাদের সাইটে আর্টিকেল লেখার সুযোগ পাবেন না।

২। টপিক ঠিক করুন: আর্টিকেল লেখার জন্য একটি টপিক ঠিক করুন। টপিকটি আমাদের সাইটে সার্চ করে দেখুন লেখা হয়েছে কি না। যদি লেখা হয়ে থাকে, তবে এই টপিকে আর কোনো লেখা পাবলিশ করা হবেনা। তবে, রিলেটেড কিন্তু একই নয়, এমন হলে পাবলিশ করা হবে।

৩। কিওয়ার্ড বাছাই করুন: টপিক ঠিক করার পর কিওয়ার্ড ঠিক করুন। কিওয়ার্ড হলো সেই অংশ যা লিখে আমরা সার্চ করি। উদাহরণস্বরূপ, আমাদের সাইটের একটি আর্টিকেল টাইটেল – মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয় করার সেরা ৫টি উপায়

এখানে কিওয়ার্ড “মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয়”। ‘অনলাইনে আয়’ নিজেও একটি কিওয়ার্ড, কিন্তু বড় কিওয়ার্ড ( লং টেইল কিওয়ার্ড ) এ প্রতিযোগিতা কমে যাবে এবং গুগলে র‍্যাঙ্ক করানোর সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লিখতে হবে

কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য গুগলের হেল্প নিতে পারেন। গুগলে যদি আমরা মোবাইল আয় লিখে সার্চ করি, তবে সার্চ রেজাল্ট পেজের নিচে দেখবেন লোকজন কি লিখে সার্চ করছে।

আর্টিকেল লিখে আয় করার সাইট

এখানে সাজেশনে আশা কিওয়ার্ড থেকে ভালো কিওয়ার্ডটি বেছে নিন। যদি আমরা “মোবাইল দিয়ে টাকা আয়” কে মেইন কিওয়ার্ড ধরে নেই তবে, সাথে আরো ২ থেকে ৩টি কিওয়ার্ড সিলেক্ট করুন। যেমন উপরের সাজেশন থেকে ‘ছাত্রদের জন্য অনলাইনে আয়’ ও ‘ঘরে বসে টাকা আয়’।

এছাড়াও অনেক কিওয়ার্ড রিসার্চ টুলস রয়েছে, সেগুলো ব্যবহার করে আরো ভালো এবং চাহিদাসম্পন্ন কিওয়ার্ড খুঁজে পেতে পারেন।

লেখায় সঠিকভাবে কিওয়ার্ড ব্যবহার করুন

কিওয়ার্ড রিসার্চ তো হলো, এখন কিওয়ার্ড সঠিকভাবে বসাতে হবে। প্রথমে আর্টিকেলের জন্য সুন্দর একটি টাইটেল ঠিক করুন। আপনার সিলেক্ট করা মেইন কিওয়ার্ডটি টাইটেলের যতটা সম্ভব শুরুতে রাখুন। এরপর, আমাদের আর্টিকেল বডিকে ৩টি অংশে বিভক্ত করবো :

  1. ভূমিকা
  2. মূল অংশ
  3. উপসংহার।

ভূমিকা ৩-৪ প্যারাগ্রাফ এ শেষ করবেন। প্রতিটি বাক্যে সর্বোচ্চ ৮টি শব্দ রাখবেন। এর চেয়ে বেশি হলে পাঠকের পড়তে অসুবিধা হবে। একইভাবে প্রতিটি প্যারাগ্রাফ ২-৩ লাইনে শেষ করার চেষ্টা করুন।

আর্টিকেলের যেসব জায়গায় অবশ্যই কিওয়ার্ড রাখতে হবে:

১। প্রথম প্যারাগ্রাফ:

ভূমিকার প্রথম প্যারাগ্রাফের প্রথম লাইনেই কিওয়ার্ডটি ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। ভূমিকা লেখা শেষ করার আগে অন্তত আরেকবার আরেকবার কিওয়ার্ডটি ব্যবহার করুন। তাহলে আমাদের ভূমিকায় কয়টা কিওয়ার্ড হলো? ২টা।

২। প্রথম হেডিং:

এই কিওয়ার্ডকে আমরা সাবহেডিং অর্থাৎ H2 হিসেবে ব্যবহার করবো। এই আর্টিকেলে যদি আরেকবার প্রথম দিকে স্ক্রল করেন, তাহলে দেখবেন ভূমিকা লেখার শেষ একটি বড় বড় অক্ষরে ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার উপায় নামক হেডিং রয়েছে। এটাই আমাদের প্রথম হেডিং ছিল যেখানে আমরা ফোকাস কিওয়ার্ড (ঘরে বসে হাতে লিখে আয়) ব্যবহার করেছি।

৩। সাব-হেডিং:

এরপর মূল অংশে ২-৩ বার সাবহেডিং H3 তে যদি ন্যাচারালি আসে, তাহলে মেইন কিওয়ার্ড বা রিলেটেড কিওয়ার্ড ব্যবহার করুন।

৪। সম্পূর্ণ আর্টিকেলে:

আপনার আর্টিকেলে বিষয়বস্তুই আপনার ফোকাস কিওয়ার্ড। তাই ন্যাচারালি অনেক জায়গায় লেখার প্রয়োজন হবে। যখন যেখানে ফোকাস কিওয়ার্ড কিংবা রিলেটেড কিওয়ার্ড খাপ খাবে, সেইখানেই লিখবেন। চেষ্টা করবেন, প্রতি ২০০ শব্দে যেন অন্তত ১ বার কিওয়ার্ড ব্যবহার করা যায়।

৫। পার্মালিঙ্ক:

আপনার আর্টিকেল লিঙ্কটি কি হবে, তা আপনি কাস্টমাইজ করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে পার্মালিঙ্কে কিওয়ার্ড রাখবেন।

৬। মেটা ডেস্ক্রিপশন:

মেটা ডেস্ক্রিপশনে যে সামারি লিখবেন, সেখানেও ১-২ বার কিওয়ার্ড রাখবেন।

রিলেটেড কিওয়ার্ড যোগ করুন

একটি লেখায় অনেকগুলো সাবহেডিং ব্যবহার করতে হয়। সকল সাব-হেডিংয়ে সরাসরি মেইন কিওয়ার্ড ব্যবহার করবেন না, রিলেটেড কিওয়ার্ড ব্যবহার করুন।

আমরা যদি অনলাইন আয় নিয়ে আর্টিকেল লিখি তবে সেখানে রিলেটেড কিওয়ার্ড হতে পারে

  • অনলাইনে আয় করা কি সম্ভব?
  • অনলাইনে ইনকাম করার উপায়গুলো কী কী?
  • প্রতিমাসে অনলাইনে কত টাকা আয় করা সম্ভব?
  • অনলাইনে আয় করার নির্ভরযোগ্য সাইট কোনটি, ইত্যাদি।

এছাড়া, লেখা জুড়ে যেখানে মেইন কিওয়ার্ডের চেয়ে রিলেটেড কিওয়ার্ড বেশি মানানসই হয়, সেখানেই রিলেটেড কিওয়ার্ড ব্যবহার করুন।

এই হলো আমাদের সাইটে লেখার ফরম্যাট, খুবই সহজ এবং সিম্পল। ১-২টি আর্টিকেল লিখলে আপনি নিজেই অভিজ্ঞ হয়ে যাবেন।

ছবি অপটিমাইজ করতে হবে

ছবির রেজ্যুলেশন:

ছবি নিজে যদি তৈরি করেন তবে ৭৫০ পিক্সেল বাই ৩০০ পিক্সেল বানাবেন। গুগল থেকে কোন ছবি নেওয়া যাবেনা। ফ্রি স্টক ছবি’র জন্য অনেক রিসোর্স রয়েছে, যেমন pexels, Pixabay থেকে ছবি নিতে পারেন।

পিক্সেলস থেকে ছবিটি কাস্টমাইজ সাইজে (৭৫০px বাই ৩০০px) এ ডাউনলোড করতে পারবেন। তবে পিক্সাবে থেকে নিলে ছবিটিকে রিসাইজ করে নিতে হবে। বিশেষ ক্ষেত্রে ছবির হাইট সাইজ ৩৬০ পিক্সেল পর্যন্ত অনুমোদন করা হবে।

ছবির সাইজ:

ছবির সাইজ 30kB এর নিচে রাখার চেষ্টা করতে হবে। আমরা সাধারণত ৩০ কেবির কম সাইজের ছবি আপলোড করি। আর্টিকেলে প্রয়োজন এমন সব ছবি WebP তে ছবি কনভার্ট করে আপলোড করতে হবে।

ছবির নাম পরিবর্তন করুন:

ছবিটি ডাউনলোড করার পর Rename করে নিতে হবে। ছবিটির নাম, টাইটেল এবং Alt এ কিওয়ার্ড ব্যবহার করবেন। যেমন মোবাইলে অনলাইনে আয় নিয়ে আর্টিকেলের ছবির নাম ও টাইটেল হবে ‘মোবাইলে-অনলাইনে-আয়’। Alt এ ব্যবহারের সময় হাইফেন (-) কেটে দিয়ে স্পেস দিবেন।

যেসকল ক্যাটাগরিতে আর্টিকেল লিখতে পারবেন

আমাদের ওয়েবসাইটে যেসব ক্যাটাগরি আছে, সেসব ক্যাটাগরির যে কোনটিতেই বাংলা আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন। তবে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে অন্যান্য ক্যাটাগরি এবং ইংরেজি আর্টিকেল লেখার কন্ট্রাক্ট পেতে পারেন।

একনজরে দেখে নিন কোন কোন ক্যাটেগরিতে আমাদের সাইটে আর্টিকেল লেখা হয়-

১। অনলাইনে আয়

  • আউট সোর্সিং
  • কন্টেন্ট রাইটিং
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং
  • ইউটিউব
  • ক্যারিয়ার
  • ফিন্যান্স
  • ডিজিটাল মার্কেটিং

২। টেকনোলজি

  • স্মার্টফোন টিউটোরিয়াল
  • অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস রিভিউ
  • আইফোন অ্যাপস রিভিউ
  • পিসি হেল্প
  • টেক প্রোডাক্ট রিভিউ
  • টিপ্স এন্ড ট্রিক্স

৩। ব্লগিং

  • এসইও
  • ওয়ার্ডপ্রেস
  • ব্লগার

৪। শিক্ষা:

নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর বিজ্ঞান বিষয়ের যেকোন অধ্যয়ের লেকচার নোট লিখতে পারেন। তবে অবশ্যই সহজভাবে বুঝাতে হবে। লেকচারে টিপস এবং ট্রিক্স থাকতে হবে।

আর্টিকেল লেখার জন্য এসব ক্যাটাগরীতে রয়েছে বিভিন্ন সাব-ক্যাটাগরী। তাই আর্টিকেল কি নিয়ে লিখবেন তা নিয়ে চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই।

তবে! আর্টিকেল যে বিষয়েই হোক না কেন, আর্টিকেলে এমন কোনো তথ্য থাকা যাবেনা যা সত্য নয় কিংবা কার্যকরী নয়।

প্রতিবর্তন সাইটে লোভ দেখিয়ে কোনো ভিজিটরসকে আর্টিকেল পড়ানোতে বিশ্বাসী নয়। অধিক ভিজিটরস নয়, পাঠক স্যাটিসফ্যাকশানই আমাদের লক্ষ্য।

ঘরে বসে হাতে লেখার টপিক কোথায় খুঁজবেন

আমাদের ওবেসাইটে লেখার জন্য আপনি বিভিন্ন সাইট থেকে আইডিয়া নিতে পারেন। তবে আমরা প্রেফার করি ইংরেজি কোনো সাইট থেকে আইডিয়া নেওয়ার। তাহলে কপিরাইট সমস্যা হওয়ার কোনো সম্ভাবনা থাকবেনা।

Info! গুগল ট্রান্সলেটেড কোনো আর্টিকেল এপ্রুভড হবেনা। এমন কোনো অপচেষ্টাকারীকে সাইটে দ্বিতীবার সুযোগও দেওয়া হবেনা।

প্রত্যেকটা ক্যাটাগরি সম্পর্কে আপনাদের ধারনা দেওয়ার জন্য আমরা আপনাদের কয়েকটি স্যাম্পল ওয়েবসাইটের লিস্ট করেছি।

অনলাইনে আয় ক্যাটাগরিতে লেখার টপিক পাবেন যেসব ওয়েবসাইটে-

  • Sure Job
  • Money Pantry
  • Entrepreneur
  • The Balance
  • The Penny Hoarder
  • Buffer App
  • incomediary

মোবাইল অ্যাপস ক্যাটাগরিতে আর্টিকেল লেখার টপিক পাবেন যেসব ওয়েবসাইটে-

  • Android Authority
  • Get Android Stuff
  • Toms Guide
  • Gadgethacks Smartphone

টেক ট্রেন্ড ক্যাটাগরিতে আর্টিকেল লেখার টপিক পাবেন যেসব ওয়েবসাইটে-

  • Technology Review
  • Discover Magazine
  • New Scientist
  • Popular Science
  • Wired

ব্লগিং ক্যাটাগরিতে আর্টিকেল লেখার টপিক পাবেন যেসব ওয়েবসাইটে-

  • Search Engine Journal
  • Blogging Basics101
  • Pro Blogger
  • Shout Me Loud
  • WP Beginner
  • Copy Blogger
  • alexa blog

উপরের এসব সাইট আমরা শুধু স্যাম্পল হিসেবে দিয়েছি। ইন্টারনেটে লাখ লাখ সাইট রয়েছে, আপনার পছন্দমতো যেকোনো সাইট থেকে আইডিয়া নিয়ে লিখতে পারেন।

আর্টিকেল কীভাবে জমা দিবেন?

নিচের বাটনে ক্লিক করলে আপনাকে আর্টিকেল জমা দেওয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন পেজে নিয়ে যাওয়া হবে। একাউন্ট তৈরি করে আপনার প্রোফাইল এডিট করে নিন। আমাদের সাইটে প্রতিটি লেখা আপনার ছবি এবং বায়োগ্রাফিসহ পাবলিশ করা হবে। এজন্য লেখা জমা দেওয়ার আগে Gravater এ একাউন্ট তৈরি করে প্রোফাইল পিকচারটি আপডেট করে নিন (রিকমান্ডেড তবে অপশনাল)।

রেজিস্ট্রেশন করার সময় আপনার মেইলে একটি লিঙ্ক যাবে, মেইলটি ইনবক্সে না পেলে স্প্যাম বক্স চেক করবেন।


রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করার পর লগইন করে আর্টিকেল লেখার জন্য ড্যাশবোর্ডে প্রবেশ করুন।

ঘরে বসে হাতে লিখে আয়এবার উপরের ছবির মতো প্রথমে i এবং পরবর্তীতে ii নং এ ক্লিক করুন। দুটো পদ্ধতিতে নতুন আর্টিকেল লেখার জায়গা খুঁজে পাবেন, যা ছবিতেও দুইজায়গায় ক্লিক করার অপশন দেখানো হয়েছে। লেখার সময় Feature Image এবং Add new Media নামে দুইটি ছবি আপলোড করার অপশন পাবেন।

  • ফিচার ইমেজ: আর্টিকেলটির হোমপেজে যে ছবি দেখাবে।
  • ইনসার্ট ইমেজ: আপনার লেখায় যেখানে যে ছবি প্রয়োজন, সেখানে যুক্ত করার জন্য এই অপশন ব্যবহার করুন। যতবার প্রয়োজন, ততবারই আপলোড করতে পারবেন।

কিভাবে একটি আর্টিকেল লিখতে হয় সেবিষয়ে আমাদের আর্টিকেলটি পড়ে নিন, কারণ আমাদের সাইটে ফরম্যাট এবং নিয়ম অনুসরণ না করলে আর্টিকেল পাবলিশ করা হয় না।

প্রতিবর্তনের সাথে আর্টিকেল লেখার টার্মস এন্ড কন্ডিশন

আপনাদের লেখা আর্টিকেলটি আপনাদের নাম ও ছবি দিয়ে প্রকাশিত হবে কিন্তু স্বত্ত্ব আমাদের কাছে থাকবে। আমরা আপনার লেখাটি সম্পাদন কিংবা বিক্রিও করতে পারবো, এ বিষয়ে আপনার কোনো অভিযোগ থাকবে না।

আমাদের সাইটে পাবলিশড কোন লেখা অন্য কোনো সাইটে প্রকাশ করতে পারবেননা। যদি এমন কিছু খুঁজে পাওয়া যায় তবে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করা সহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে।

ওয়েবসাইট এবং আমাদের লেখকদের ভালোর জন্য উপরের যেকোনো নিয়ম যেকোন সময় পরিবর্তন, পরিমার্জন করা হতে পারে।

সবকিছু সাথে একমত পোষণ করতে পারলে তবেই কেবল আমাদের সাথে লেখা শুরু করুন।

ঘরে বসে হাতে লিখে আয় নিয়ে শেষ কথা

আপনি ইতোমধ্যে ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার সাইট কোনটি এবং বাংলা আর্টিকেল লিখে আয় করার জন্য প্রতিবর্তন.কম সাইটে কিভাবে লেখা সাবমিট করবেন সে সম্পর্কে অবগত হয়েছেন। সেই সাথে একটি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার প্রসেস সম্পর্কে ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি।

তারপরেও যদি প্রতিবর্তনের সাথে ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করা কোনো প্রশ্ন থাকে কমেন্ট করে জানান অথবা, আমাদের ফেসবুক পেজে মেসেজ করুন।

20 thoughts on “ঘরে বসে হাতে লিখে আয়, বিকাশে পেমেন্ট ২০২২”

  1. আমি তো ফেসবুক ব্যবহার করিনা।তাহলে আমি আর্টিকেল লিখে কিভাবে পেমেন্ট নিবো?আর বুঝবোই বা কি করে আমার আর্টিকেল প্রকাশ হয়েছে?

    1. আপনার আর্টিকেল আপনার নামে প্রকাশিত হবে। সুতরাং, সাইট ভিজিট করলেই জানতে পারবেন। আর প্রকাশিত আর্টিকেলের পেমেন্ট নেওয়ার জন্য মেইল অথবা হোয়াটসঅ্যাপেও যোগাযোগ করতে পারবেন।

  2. আপনাদের পেমেন্ট পদ্ধতি কী? আমার টাইমলাইন বলতে কী বুঝিয়েছেন? আর একটা প্রশ্ন ছিল আমি প্রতিবর্তনে কীভাবে রেজিস্টার করব

    1. পেমেন্ট পদ্ধতি বিকাশ।
      টাইমলাইন: ফেসবুক টাইমলাইন
      রেজিস্টার বাটনে ক্লিক করুন। অথবা সাইটের নিচে লগইন অপশনে ক্লিক করুন

    1. প্রিমিয়াম কোয়ালিটি আর্টিকেলের প্রাইস অবশ্যই বেশি, তবে আমরা কিন্তু স্পেশালিস্ট কাউকে লেখার জন্য বলিনি, আর না তারা আমাদের এখানে এই সম্মানীতে লিখবেন। তবে ৬০০-৭০০ টাকা কোথায় দেয় যদি জানাতেন, তাহলে আমরাও চেষ্টা করতাম যেহেতু আমাদেরও আর্টিকেল সার্ভিস রয়েছে।

    1. আপনার আগ্রহের জন্য ধন্যবাদ। আর্টিকেলে দেওয়া রেজিস্ট্রেশন লিঙ্ক এ ক্লিক করে একাউন্ট তৈরি করুন। এরপর আমাদের নির্দেশনা মোতাবেক আর্টিকেল লিখে জমা দিন। প্েোজনে আমাদের ফেসবুক পেজে যোগযোগ করুন।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।