সার্চ ইঞ্জিন কি? Search Engine কীভাবে কাজ করে?

সার্চ ইঞ্জিন

ইন্টারনেট বুঝে এমন প্রতিটি মানুষের কাজে পরিচিত শ্বদ সার্চ ইঞ্জিন। তবে সার্চ ইঞ্জিন কি এবং সার্চ ইঞ্জিন কিভাবে কাজ করে তা আমরা অনেকেই বুঝি না। যেমন: কিছুদিন যাবৎ গুগলে কেন ইডিয়ট শব্দ লিখে সার্চ করলে ডোনাল্ড ট্রাম্প এর ছবি আসছে, সেজন্য গুগলকে দোষারোপ করে অনেকেই নিজেদের মতামত দিচ্ছেন।

কিন্তু, যদি তারা সত্যিকার অর্থে জানতেন যে, search engine কাকে বলে? কিভাবে কাজ করে তাহলে নিশ্চিতভাবেই এমন অভিযোগ আনতেন না।

ইন্টারনেটে কানেক্টেড থাকা কিংবা ইনফরমেশন ও প্রয়োজনীয় বিষয় জানতে সার্চ ইঞ্জিনের বিকল্প নেই। আবার যারা ডিজিটাল মার্কেটিং কিংবা অনলাইন প্লাটফর্ম কে কাজে লাগিয়ে নিজেকে ব্লগার বা ইউটিউবার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চান, তাদের জন্য সার্চ ইঞ্জিন সম্পর্কে জানা দরকার। তাই আপনার সুবিধার্থে আমাদের আজকের আয়োজনে সার্চ ইঞ্জিন বিষয়েই বিস্তারিত থাকছে।

সার্চ ইঞ্জিন কি? ( what is search engine in Bangla )

একটি সার্চ ইঞ্জিন এমন একটি অনলাইন টুল যা ব্যবহারকারীর অনুসন্ধান প্রশ্নের উপর ভিত্তি করে ইন্টারনেটে থাকা ওয়েবসাইটগুলো থেকে অনুসন্ধান করে অনুসন্ধানকারীর সামনে নিয়ে আসার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। এটি তার নিজস্ব ডাটাবেসে ফলাফলগুলি সন্ধান করে, সেগুলিকে সাজায় এবং একটি ইউনিক অ্যালগরিদম ব্যবহার করে এই ফলাফলগুলোর একটি ক্রম তালিকা তৈরি করে৷ এই তালিকাটিকে সার্চ ইঞ্জিন ফলাফল পৃষ্ঠা (SERP) বলা হয়।

যদিও বিশ্বে বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিন রয়েছে (যেমন, Google, Bing, Yahoo, ইত্যাদি), সার্চ এবং রেজাল্ট প্রদানের ক্ষেত্রে সকলেই মোটামুটি একই ধরনের সাধারণ নীতি অনুসরণ করে।

সার্চ ইঞ্জিনের সূচনা

বিশ্বের প্রথম ইন্টারনেট সার্চ ইঞ্জিন ছিল Archie Query Form যা 1990 সালে প্রবর্তিত হয়েছিল – এটি একটি সহজ টুল যা FTP সাইটগুলোকে অনুসন্ধান করে একটি তালিকা আকারে তাদের প্রদান করতো। তবে এখানে আর কোন বিষয়বস্তু অন্তর্ভুক্ত করেনি।

Google এর পূর্বসূরী – BackRub

Google এর পূর্বসূরী – BackRub 1996 সালে চালু হয়েছিল। এই সার্চ ইঞ্জিনটি ব্যাকলিংকের মূল নীতি নিয়ে এসেছিল এবং PageRank অ্যালগরিদমের ভিত্তি স্থাপন করেছে, যা আজ পর্যন্ত search engine রেজাল্টে ব্যবহৃত হয়।

Google 1998 সালে BackRub-এর উত্তরসূরি হিসাবে চালু হয়েছিল এবং বছরের পর বছর ধরে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সবচেয়ে প্রভাবশালী search engine হয়ে ওঠে।

সার্চ ইঞ্জিন কিভাবে কাজ করে?

সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহারকারীদের উত্তর প্রদানের উপায়ে একে অপরের থেকে ভিন্ন হতে পারে তবে সবকটি সার্চ ইঞ্জিন-ই ৩টি মৌলিক নীতির উপর নির্মিত:

  • ক্রাউলিং
  • ইনডেক্সিং, এবং
  • র‍্যাঙ্কিং

সার্চ ইঞ্জিন কীভাবে কাজ করে

১. ক্রাউলিং

ইন্টারনেটে নতুন ওয়েবপৃষ্ঠাগুলির প্রকৃত আবিষ্কার ক্রলিং নামক প্রক্রিয়া দিয়ে শুরু হয়।

সার্চ ইঞ্জিনগুলো ওয়েব ক্রলার (কখনও কখনও বট বা স্পাইডারবট বলা হয়) নামে পরিচিত ছোট প্রোগ্রামগুলো ব্যবহার করে যেগুলো ইতিমধ্যে পরিচিত পৃষ্ঠাগুলো থেকে নতুন পৃষ্ঠার লিঙ্কগুলো অনুসরণ করে যা আবিষ্কার করা প্রয়োজন৷

প্রতিবার একটি ওয়েব ক্রলার একটি লিঙ্কের মাধ্যমে যখন কোনো একটি নতুন ওয়েবপৃষ্ঠা খুঁজে পায়, তখন পেজটিকে আরও প্রসেস করার জন্য পেজের কন্টেন্টকে পরবরতী ধাপ (যাকে ইন্ডেক্সিং বলা হয়) এ পাঠায়, এবং ক্রাউলার নতুন আরো কোনো লিঙ্ক যোগ হয়েছে কিনা, তা খুঁজে বের করার জন্য অনুসন্ধান চালাতে থাকে।

২. ইন্ডেক্সিং

বটগুলো ডেটা ক্রল করার পরবর্তী ধাপ হলো ইন্ডেক্স করা। অর্থাৎ, কন্টেন্ট চেক করার পর তা ওয়েবপেজ থেকে কপি করে সার্চ ইঞ্জিনের ডাটাবেসে সংরক্ষণ করা।

ওয়েবপেজগুলো থেকে কন্টেন্ট যাচাইকরণ এবং সংরক্ষণ করার প্রক্রিয়া যাকে “ইন্ডেক্স” বলা হয়। এটি মূলত সকল ওয়েবসাইটের একটি বড় লাইব্রেরি।

সার্চ ইঞ্জিন ফলাফল পৃষ্ঠায় প্রদর্শিত হওয়ার জন্য আপনার ওয়েবসাইটটি সার্চ ইঞ্জিনে ইন্ডেক্সড হতে হবে। মনে রাখবেন যে ক্রলিং এবং ইনডেক্সিং উভয়ই ক্রমাগত (continuous) প্রক্রিয়া যা ডাটাবেসকে ফ্রেশ রাখতে বারবার পরিচালিত হয়।

একবার ওয়েবপৃষ্ঠাটি বিশ্লেষণ এবং ইন্ডেক্স এ সংরক্ষিত হয়ে গেলে এটি একটি সম্ভাব্য সার্চ কোয়েরি বা অনুসন্ধান প্রশ্নের জন্য সার্চ রেজাল্ট হিসাবে ব্যবহার করা হতে পারে।

গুরুত্বপূর্ণ টিপ্স: আপনার সকল ইন্ডেক্সড পেজ দেখার জন্য গুগল সার্চ কনসোল ইন্ডেক্স কভারেজ চেক করতে পারেন। অথবা, site:domain.com লিখে গুগলে সার্চ করেও যাচাই করতে পারবেন।

৩. র‍্যাংকিং

শেষ ধাপে সেরা ফলাফল বাছাই করা এবং ফলাফলের পৃষ্ঠায় প্রদর্শিত পৃষ্ঠাগুলোর একটি তালিকা তৈরি করা হয়।

প্রতিটি সার্চ ইঞ্জিন কয়েক ডজন র‍্যাংকিং ফ্যাক্টর ব্যবহার করে এবং তাদের বেশিরভাগই গোপন রাখা হয়, অর্থাৎ, জনসাধারণের কাছে অনুপলব্ধ।

যেমন মার্টিন স্প্লিট, ওয়েবমাস্টার ট্রেন্ডস বিশ্লেষক বলেছেন:

“আমাদের কাছে এটি করার জন্য ২০০ টিরও বেশি সিগ্ন্যাল রয়েছে। তাই আমরা শিরোনাম, মেটা বিবরণ, আপনার পৃষ্ঠায় যে প্রকৃত কন্টেন্ট পেয়েছি, ছবি, লিঙ্ক, সব ধরণের জিনিসই দেখা হয়।”

সার্চ ইঞ্জিন অ্যালগরিদম কি?

সার্চ ইঞ্জিন অ্যালগরিদম এমন একটি শব্দ যা বেশ কয়েকটি অ্যালগরিদমের একটি জটিল সিস্টেমকে সংজ্ঞায়িত করতে ব্যবহৃত হয় যা সমস্ত ইন্ডেক্স করা ওয়েবপেজগুলোকে মূল্যায়ন বা যাচাই করে এবং তাদের মধ্যে কোনটি একটি নির্দিষ্ট প্রশ্নের জন্য অনুসন্ধান ফলাফলে দেখানো উচিত তা নির্ধারণ করে৷

উদাহরণস্বরূপ, Google অ্যালগরিদম বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে কয়েক ডজন ফ্যাক্টর ব্যবহার করে (এগুলির মধ্যে অনেকগুলি সুপরিচিত, যদিও তাদের অনেক ফ্যাক্টরই গোপন রাখা হয়) যেমন:

  • প্রশ্নটির অর্থ: (ব্যবহারকারী সার্চ এ ব্যবহার করে শব্দ দিয়ে কী বোঝায়, তার অনুসন্ধানের অভিপ্রায় কী, ইত্যাদি)
  • পৃষ্ঠার প্রাসঙ্গিকতা: (সার্চ ইঞ্জিনকে খুঁজে বের করতে হবে পৃষ্ঠাটি সার্চ করা প্রশ্নের উত্তর দেয় কিনা)
  • বিষয়বস্তুর গুণমান: (অভ্যন্তরীণ এবং বাহ্যিক কারণের উপর ভিত্তি করে ওয়েবপৃষ্ঠাগুলোর তথ্যের একটি চমৎকার উৎস যা কিনা অ্যালগরিদমগুলো নির্ধারণ করে, যেমন; ব্যাকলিংকের সংখ্যা এবং ব্যাকলিঙ্ক কোয়ালিটি এখানে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়)
  • ওয়েবপেজ ইউজাবিলিটি: (প্রযুক্তিগত দৃষ্টিকোণ থেকে ওয়েবপেজটির গুণমান বিবেচনা করে – রেস্পন্সিভ, পেজের গতি, নিরাপত্তা, ইত্যাদি)।

সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন

ব্যবহারকারীদের জন্য দরকারী তথ্য প্রদান করার মাধ্যমে সাইটের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির পাশাপাশি, সার্চ ইঞ্জিনগুলোর জন্যও কন্টেন্ট অপ্টিমাইজ করার মাধ্যমে ওয়েবসাইটের ট্রাফিক বৃদ্ধি করা যায়। যা কোনো ব্র্যান্ডের ওয়েবসাইটের আরো প্রচার-প্রসার বাড়াতে সহায়তা করতে পারে।

প্রাসঙ্গিক সার্চ প্রশ্নের জন্যর ওয়েবসাইট অপ্টিমাইজ করা যেকোনো অনলাইন মার্কেটিং কৌশলের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ কারণ, এটি আপনার ওয়েবপেজ্র আরও ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারে।

ওয়েবসাইট মালিকরা তাদের সার্চ র‍্যাঙ্কিং উন্নত করতে যে সমস্ত কাজ এবং টেকনিক অবলম্বন করে তার সমষ্টিকে সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান (SEO) বলা হয়।সার্চ ইঞ্জিনে র‌্যাঙ্ক করার উপায়

আমরা যদি এসইওকে সরলীকরণ করতে চাই, তাহলে বলতে পারি যে এটি ৩টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে কাজ করে:

  • টেকনিক্যাল অপ্টিমাইজেশন
  • সমৃদ্ধ কন্টেন্ট
  • কোয়ালিটি ব্যাকলিংক

সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন কোনগুলো?

যদিও বিশ্বে শত শত search engine রয়েছে, তাদের মধ্যে মাত্র কয়েকটি সার্চ ইঞ্জিন সামগ্রিক বিশ্ব বাজারে আধিপত্য বিস্তার করছে এবং তাদের গুণগতমান, উপযোগিতার কারণেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে।জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন সমূহ

বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তার পরিপ্রেক্ষিতে, Google বছরের পর বছর ধরে নাম্বার #1 সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে নিজের অবস্থান ধরে রেখেছে। চলুন শীর্ষ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় ৫ সার্চ ইঞ্জিনের তালিকা দেখে নেওয়া যাক:

১. গুগল

গুগল বিশ্বের সবচেয়ে বড় এবং জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন।

গুগল মূল কোম্পানি Alphabet-এর মালিকানাধীন, Google সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটে বিশ্বব্যাপী 90 শতাংশের বেশি মার্কেট শেয়ার নিয়ে আধিপত্য বিস্তার করছে।

অত্যাধুনিক অ্যালগরিদম, কার্যকর ক্রলিং, ইন্ডেক্সিং এবং র‍্যাঙ্কিং সহ এর সমস্ত বৈশিষ্ট্যমূহর কারণে সেরা সার্চ রেজাল্ট দেখাতে পারে। Google শুধুমাত্র তার নিজস্ব সার্চ ইঞ্জিনের মধ্যেই নয়, বরং অন্যান্য কিছু সার্চ ইঞ্জিনকেও (যেমন ask.com) তার রেজাল্ট দেখানোর ক্ষমতা দেয়।

২. মাইক্রোসফট বিং

Bing দ্বিতীয় বৃহত্তম সার্চ ইঞ্জিন। এটি 2009 সালে চালু হয়েছিল এবং এটি মাইক্রোসফ্টের মালিকানাধীন।

যদিও সামগ্রিক search engine মার্কেট শেয়ারের মাত্র 2 – 3 শতাংশ শেয়ার নিয়ে Google-এর প্রকৃত প্রতিপক্ষ হিসাবে Bing এর তুলনা করা অসম্ভব, তবুও যারা গুগলের বিকল্প কিছু ট্রাই করতে চান তাদের জন্য এটি বেশ ভালো সার্চ ইঞ্জিন।

মাইক্রোসফ্ট বিং অনেক দিক দিয়েই Google-এর মতো, যেমন: গুগলের মতো বিং-ও ধরন অনুযায়ী সার্চ রেজাল্ট প্রদান করে, অর্থাৎ, ছবি, ভিডিও, স্থান, মানচিত্র বা খবরের মতো সার্চ ফলাফল আলাদা করে দেখায়।

যদিও Bing সার্চ ইঞ্জিনের মৌলিক নীতিগুলি ব্যবহার করে (ক্রলিং, ইন্ডেক্সিং,র‍্যাঙ্কিং) এবং এটি স্পেস পার্টিশন ট্রি অ্যান্ড গ্রাফ নামে একটি বিশেষ অ্যালগরিদম ব্যবহার করে যা তথ্যের শ্রেণীকরণ এবং অনুসন্ধান প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য একটি নির্দেশক (ভেক্টর) এর উপর নির্ভর করে।

৩. ইয়াহু

Yahoo একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট, ইমেইল প্রদানকারী এবং বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম সার্চ ইঞ্জিন যেখানে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেট শেয়ারের প্রায় ২%।

একসময় এটি সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং প্রভাবশালী সার্চ ইঞ্জিনছিল, কিন্তু অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনের আগমন, বিশেষ করে গুগলের আগমনে ইয়াহু বছরের পর বছর ধরে নিজের অবস্থান হারাচ্ছে।

বর্তমানে, Yahoo ছোট সার্চ ইঞ্জিনসমূহ যেমন Bing বা DuckDuckGo এর সাথে প্রতিযোগিতা করে।

৪. ইয়ানডেক্স

Yandex  শব্দটি “Yet Another iNDEXer” শব্দ থেকে আগত। ইয়ানডেক্স হলো একটি সার্চ ইঞ্জিন যা বেশিরভাগ পাশ্চাত্যের দেশগুলোতে জনপ্রিয়৷

যদিও সার্চ ইঞ্জিনের বাজারের সামগ্রিক শেয়ারের 1 শতাংশেরও কম এটি দখল করতে পেরেছে। তবে এটি রাশিয়া (দেশের সমস্ত অনুসন্ধানের ৬০ শতাংশেরও বেশি), তুরস্ক, ইউক্রেন বা বেলারুশ এর মতো দেশগুলোতে সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিনগুলির মধ্যে একটি।

Google-এর মতই, Yandex মানচিত্র, অনুবাদক, ইয়ানডেক্স মানি বা এমনকি ইয়ানডেক্স মিউজিক, ইয়ান্ডেক্স ক্লাউড স্টোরেজ সহ বিভিন্ন ধরনের পরিষেবা প্রদান করে।

৫. Baidu

Baidu চীনের সবচেয়ে প্রভাবশালী সার্চ ইঞ্জিন। যদিও এর সামগ্রিক বিশ্বব্যাপী শেয়ার মাত্র ১ শতাংশ, তবে এটি প্রতিদিন বিলিয়ন অনুসন্ধানের মাধ্যমে চীনের বাজারের ৮০ শতাংশেরও বেশি প্রতিনিধিত্ব করে।

Baidu অনেক দিক দিয়েই Google এর মত। এটি সবুজ URL-এর সাথে ক্লাসিক নীল লিঙ্ক প্রদান করে এবং Google-এর মতো একইভাবে সমৃদ্ধ ফলাফল দেখায়।

FAQs

সার্চ ইঞ্জিন সম্পর্কে প্রায়শই জিজ্ঞাসিত কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর দেওয়া যাক।

গুগল কেন সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন?

গুগল একটি সার্চ ইঞ্জিন হিসাবে বছরের পর বছর ধরে তার শিল্পে নেতৃত্ব দিয়ে আসছে এবং এখনও search engine বাজারে আধিপত্য বিস্তার করছে। গুগল কেন সর্বাধিক ব্যবহৃত সার্চ ইঞ্জিন হওয়ার কয়েকটি কারণ রয়েছে।

  • বিজ্ঞাপন – Google তার নিজস্ব বিজ্ঞাপন পরিষেবা ব্যবহার করে যার নাম Google Ads। ব্র্যান্ডগুলো তাদের পণ্যসমূহ সার্চ রেজাল্টে প্রদর্শন করতে এটির সুবিধা নিতে পারে এবং প্রতিবার একজন ব্যবহারকারী বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার জন্য পাবলিশার এবং গুগল উভয়পক্ষ একটি ছোট কমিশন নেয়।
  • অনলাইন শপিং – সার্চ ইঞ্জিনগুলো তাদের উন্নত অনুসন্ধান ফলাফলগুলিতে বিভিন্ন পণ্যের প্রচার করতে পারে। যদি একজন ব্যবহারকারী পণ্যগুলোর একটিতে ক্লিক করেন বা কিনে থাকেন, তাহলে search engine বিনিময়ে ক্রয় থেকে একটি ছোট কমিশন নেবে।
  • পরিষেবাসমূহ – Google তার নিজস্ব সার্চ ইঞ্জিনের সাথে তার পরিষেবাগুলি (যেমন প্লে স্টোর, Google ক্লাউড, Google Apps, ইত্যাদি) অন্তর্ভুক্ত করে রেখেছে এবং সেইজন্য সেগুলো ব্যবহার করছেন এমন গ্রাহকদের মাধ্যমে আয় জেনারেট করছে৷

বিশ্বের প্রথম সার্চ ইঞ্জিন কোনটি ছিল?

Archie (“Archives” নাম থেকে প্রবর্তিত) হলো বিশ্বের প্রথম প্রথম সার্চ ইঞ্জিন যা 1990 সালে একজন ছাত্র অ্যালান এমটাজ তৈরি করেছিলেন।

যদিও এর আগেও কিছু ইন্ডেক্সিং প্রোগ্রাম ছিল (যেমন “X.500” বা “Whois”), তবে আর্চি ছিলো প্রথম প্রকৃত সার্চ ইঞ্জিন যা ইন্টারনেটে নির্দিষ্ট ফাইল খুঁজে পেতে সক্ষম ছিলো।

আর্চি খুব সহজভাবে কাজ করেছে – এটি ইন্টারনেটে আসা সাইটগুলোকে দেখতো এবং সেগুলোকে ডাউনলোডযোগ্য ফাইল হিসাবে ইন্ডেক্স করতো। তবে, এটি কোনো ওয়েবসাইটের ওয়েবপেজ বা কন্টেন্ট ইন্ডেক্স করতে পারতো না এবং তাই ফলাফল পৃষ্ঠাগুলো খুবই সাধারণ ওয়েবসাইট তালিকার আকারে প্রদর্শন করতো।

একটি ব্রাউজার এবং একটি সার্চ ইঞ্জিন মধ্যে পার্থক্য কি?

  • ওয়েব ব্রাউজার (যেমন ক্রোম, ফায়ারফক্স, মাইক্রোসফ্ট এজ, ইত্যাদি) হলো একটি সফ্টওয়্যার অ্যাপ্লিকেশন যা কম্পিউটার বা স্মার্টফোনে ইনস্টল করা হয়। ব্রাউজারের উদ্দেশ্য হল ওয়েবপেজগুলো প্রদর্শনের জন্য একটি ব্যবহারকারী-বান্ধব ইন্টারফেস প্রদান করা।
  • সার্চ ইঞ্জিন (যেমন Google, Bing, Yahoo!, ইত্যাদি) হলো ওয়েবসাইটে থাকা একটি অনলাইন টুল যা ওয়েব ব্রাউজারের মাধ্যমে অ্যাক্সেস করা যায়। সার্চ ইঞ্জিনের উদ্দেশ্য হলো প্রাসঙ্গিক ওয়েবপেজ আকারে ব্যবহারকারীদের প্রশ্নের উত্তর প্রদান করা।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

error: Content is protected !!