পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক করার নিয়ম

প্রবাস যাত্রার জন্য যেসব প্রস্তুতি অবশ্য অবশ্যই সম্পন্ন করতে হয় তার মধ্যে যাত্রীর মেডিকেল চেকাপ অত্যধিক গুরুত্বপূর্ণ। কেননা, অসুস্থ বা অর্ধসুস্থ ব্যক্তিরা সাধারণত ভিসা পায় না। আবার অনেক ক্ষেত্রে দালালরা ভুয়া মেডিকেল সনদ ধরিয়ে দেয় যা প্রবাস যাওয়ার পর ভুল প্রমাণিত হয়। এতে করে প্রবাসী নানাবিধ সমস্যার মুখোমুখি হন। 

আপনি যদি প্রবাস যাত্রার প্রস্তুতি নিতে চান তাহলে পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল চেক করার পদ্ধতিটি আপনার জানতেই হবে৷ আপনাদের জানার তৃষ্ণা মেটাতে আমরা আমাদের আজকের আয়োজন সাজিয়েছি পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল চেকের নিয়ম গুলো নিয়ে। 

তাই দু’মিনিট সময় ব্যয় করে জেনে নিন পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেকের নিয়ম গুলো। মূল আলোচনায় যাওয়ার আগে আমরা আপনাদের সামনে একনজরে জানিয়ে দিচ্ছি কি কি থাকছে আমাদের আজকের আয়োজনে। আজকের লেখাটি পড়ে আপনি জানতে পারবেন :

  • মেডিকেল রিপোর্ট কি
  • পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক
  • সৌদি আরবের মেডিকেল রিপোর্ট চেকের নিয়ম
  • মালয়েশিয়ায় মেডিকেল চেকের নিয়ম
  • অনলাইনে ফ্রি মেডিকেল রিপোর্ট চেকের নিয়ম
  • বাংলাদেশে মেডিকেল রিপোর্ট চেকের নিয়ম।  

মেডিকেল রিপোর্ট কি?

মেডিকেল রিপোর্ট হলো আপনার শারীরিক অবস্থার একটি সনদ। যাতে ফিট এবং আনফিট দুইটি স্ট্যাটাসের মাধ্যমে আপনার শারিরীক সুস্থতা ও অসুস্থতার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। 

মেডিকেল রিপোর্ট এর উপর নির্ভর করে আপনি যে দেশে যেতে চাচ্ছেন তার ভিসা আদৌ পাবেন কি না। একেক দেশে ভিসার জন্য একেক ধরনের সনদ দাবি করে থাকে। তবে সার্বিকভাবে সাধারণ কিছু রোগ না থাকলেই ফিট স্ট্যাটাস মিলে যায়। এবং সহজেই কাঙ্ক্ষিত দেশের ভিসা পাওয়া যায়।

আরো পড়ুন:  ই পাসপোর্ট ফি কত ২০২৩ | পাসপোর্ট করতে কত টাকা লাগে

পাসপোর্ট দিয়ে সৌদি আরবের মেডিকেল রিপোর্ট চেকের নিয়ম

আপনি যদি সৌদি আরব যেতে চান তাহলে সৌদি ভিসার আবেদন এবং ভিসা পাওয়ার জন্য তাদের নিয়ম অনুসারে মেডিকেল রিপোর্টের আবেদন করতে হবে। 

পাসপোর্ট নম্বর দিয়ে সৌদি আরবের মেডিকেল রিপোর্ট চেকের জন্য প্রথমে এই পেজটি ভিজিট করতে হবে৷ লিংকে প্রবেশ করা মাত্রই আপনি দুইটি অপশন দেখতে পাবেন। এগুলো হলো: 

  • পাসপোর্ট নম্বর দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক, এবং
  • স্লিপ নম্বর দিয়ে চেক। 

এই অপশন দুটো থেকে পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক অর্থাৎ, প্রথম অপশন বেছে নেবেন। অপশনে ক্লিক করার পর পরবর্তী পৃষ্ঠা আপনার সামনে আসবে। 

এই পৃষ্ঠায় আপনার পাসপোর্ট নম্বর এবং জাতীয়তা চাওয়া হবে। সাবধানতার সাথে পূরণ করতে হবে এই দুটি ঘর। 

এরপর আপনি মানুষ নাকি রোবট তা যাচাই এর জন্য একটি ক্যাপচা কোড থাকবে৷ এটা সতর্কভাবে পূরণ করে চেক স্ট্যাটাস এ ক্লিক করুন। 

সাথে সাথেই স্ক্রিনে আপনার মেডিকেল রিপোর্ট দেখতে পাবেন। 

আপনাদের সুবিধার কথা ভেবে পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক করার বিষয় গুলো স্টেপ বাই স্টেপ দেয়া হলো:

  • ওয়েব পেজ ভিজিট করুন: প্রথমেই লিংকটিতে প্রবেশ করুন। 
  • পাসপোর্ট নম্বর অপশন সিলেক্ট করুন।
  • পাসপোর্ট নম্বর বসিয়ে ঘরটি ফিলাপ করুন।
  • জাতীয়তা ‘বাংলাদেশী’ সিলেক্ট করুন। 
  • ক্যাপচা কোডটি পূরণ করুন।
  • চেক স্ট্যাটাস বাটনে ক্লিক করুন।

এভাবে খুব সহজেই পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য মেডিকেল রিপোর্ট চেক করতে পারবেন।

শুধু তাই নয়, এই ওয়েবসাইটে মধ্যপ্রাচ্যের আরো ৪ টি দেশ (সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার কুয়েত, বাহরাইন) ভ্রমণের জন্যও পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক করা যায়। 

পাসপোর্ট দিয়ে মালয়েশিয়ার মেডিকেল রিপোর্ট চেক করার নিয়ম

মালয়েশিয়ার ভিসার জন্য মেডিকেল সনদ জমা দিতে হবে ভিসার আবেদনের সময়। আপনি যদি মালয়েশিয়ার ভিসার জন্য মেডিকেল সনদ পেতে চান তবে এই লিংকটিতে প্রবেশ করুন।

আরো পড়ুন:  ই পাসপোর্ট করার নিয়ম ২০২৩ | How to apply for E-Passport in Bangladesh

তারপর পাসপোর্ট নম্বর এবং দেশ নির্বাচন করুন। সঠিকভাবে তথ্যাদি পূরণ করুন। 

তারপর carian বাটনে ক্লিক করলেই তাদের সার্ভারে আপনার তথ্যাদি দেখতে পাবেন। 

একনজরে পাসপোর্ট নম্বর দিয়ে মালয়েশিয়ার মেডিকেল রিপোর্ট চেকের নিয়ম গুলো ধাপে দেখে নিন:

  • লিংকে প্রবেশ করুন। 
  • পাসপোর্ট নম্বর দিন।
  • দেশ নির্বাচন করুন। অর্থাৎ, আপনি বাংলাদেশ থেকে যেতে চাইলে দেশের নাম বাংলাদেশ সিলেক্ট করুন।
  • carian বাটনে ক্লিক করুন।

দেখুন! স্ক্রিনে আপনার অনুসন্ধানের ফলাফল পেয়ে যাবেন।

পাসপোর্ট দিয়ে কানাডার মেডিকেল রিপোর্ট দেখার নিয়ম

উন্নত বিশ্বের দেশ হিসেবে কানাডা প্রবাসীদের জন্য তুমুল জনপ্রিয় একটি দেশ। অন্যান্য দেশের মতো কানাডার ভিসা পেতে হলেও মেডিকেল সনদ লাগবে। তবে এজন্য তেমন কোনো ওয়েবসাইট নেই। কানাডা সরকার বা কানাডা ইমিগ্রেশন কর্তৃক অনুমোদিত বাংলাদেশের তিনটি হাসপাতাল রয়েছে। যারা কানাডা যাওয়ার জন্য মেডিকেল চেকাপ করিয়ে তা কানাডা অভিবাসন সংস্থায় পাঠিয়ে থাকে। এই তিনটি হাসপাতাল হলো:

  • ডক্টর ওয়াহাব মেডিকেল সেন্টার, বারিধারা।
  • গ্রিন ক্রিসেন্ট হেলথ সার্ভিস, বারিধারা।
  • আইওএম মাইগ্রেশান হেলথ অ্যাসেসমেন্ট ক্লিনিক, গুলশান । 

এসব হাসপাতাল ছাড়া অন্য কোনো হাসপাতালের রিপোর্ট কানাডা ইমিগ্রেশনে গ্রাহ্য হয় না। এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতেই পারে তাহলে কিভাবে নিজেই দেখতে পারবো কানাডার মেডিকেল রিপোর্টের বর্তমান অবস্থা। 

এই প্রশ্নের জবাবে আপনাকে বলছি কানাডার মেডিকেল রিপোর্ট দেখার কোনো ওয়েবসাইট না থাকায় আপনাকে বাংলাদেশে অবস্থিত কানাডার এম্বাসিতে গিয়েই বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ নিতে হবে।

বাংলাদেশে মেডিকেল রিপোর্ট চেকের নিয়ম

আপনি বাংলাদেশ থেকে মেডিকেল সনদ চেক করতে চাইলে  সেটাও পারবেন। এজন্য আপনাকে অথরাইজড হাসপাতাল খুঁজে নিতে হবে। বিদেশগামীদের বাংলাদেশের যেসব হাসপাতাল থেকে মেডিকেল রিপোর্ট দেওয়া হয়, তার মধ্যে অন্যতম কিছু হাসপাতালের তালিকা ও ঠিকানা নিম্নে উল্লেখ করা হলো:

  • অ্যাডভান্স হেলথ: জগন্নাথপুর, প্রগতি সরনি, ভাটারা ঢাকা-১২২৯।  
  • আল আরউবা মেডিকেল সার্ভিসেস P.Ltd: পুরাতন পল্টন, ঢাকা ১০০০। 
  • আল হায়াত মেডিকেল সেন্টার: ৩০৪, তেজগাঁও বাণিজ্যিক এলাকা, ভূঁইয়া শিকদার টাওয়ার, নিচতলা, ঢাকা ১২০৮। 
  • আল জামি ডায়াগনস্টিক সেন্টার: ৮৭-পুরানা পল্টন লেন, পল্টন টাওয়ার, ৩য় তলা ঢাকা। 
  • আল মাশহুর ডায়াগনস্টিক সার্ভিসেস: খ-১৯৪, ইদ্রিস পয়েন্ট (২য় তলা), প্রগতি সরণি, মধ্য বাড্ডা, ঢাকা। 
  • আল মুবাশ্বের মেডিকেল ডায়াগনস্টিক সার্ভিসেস: পদ্মা লাইফ টাওয়ার, ১১৫ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ (১ম তলা) বাংলা মোটর ঢাকা-১০০০।  
  • আল-বাহা মেডিকেল সেন্টার: ৩৩৫/বি তেজগাঁও শিল্প এলাকা, তেজগাঁও, ঢাকা-১২০৮। 
  • আল-হুমাইরা হেলথ সেন্টার লিমিটেড: হাউস #০৬ (১ম ও ২য় তলা), রোড #২/বি, ব্লক #জে বারিধারা, ভাটারা, ঢাকা। 
  • আলিফ-লাম-মিম হেলথ সার্ভিসেস লিমিটেড: নূর টাওয়ার, 110 বীর উত্তম সিআর দত্ত রোড, (৩য় তলা) কলাবাগান, ঢাকা। 
আরো পড়ুন:  ই পাসপোর্ট পুলিশ ভেরিফিকেশন - এ টু জেড জেনে নিন

মেডিকেল রিপোর্ট স্ট্যাট্যাস | ফিট বনাম আনফিট 

পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক করার সময় পূর্ণাঙ্গ রিপোর্টের পাশাপাশি সারমর্ম হিসেবে FIT অথবা UNFIT দেখানো হবে। 

যদি আপনার মেডিকেল রিপোর্ট স্ট্যাটাস হয় ফিট তাহলে আপনি কাঙ্খিত দেশ থেকে ভিসা পাওয়ার জন্য যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবেন।

অন্যদিকে, যদি আপনার  মেডিকেল রিপোর্ট স্ট্যাটাস আনফিট হয় তাহলে আপনার ভিসা বাতিল হতে পারে। 

ভিসা বাতিল হলে পরিপূর্ণ সুস্থ্য হওয়ার পর পুনরায় মেডিকেল চেকআপ করে ভিসার জন্য এপ্লাই করতে হবে।

যেসব রোগ থাকলে মেডিকেল রিপোর্ট আনফিট হয়:

  1. করোনা পজিটিভ (বর্তমানে উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে)
  2. জন্ডিস।
  3. হেপাটাইটিস
  4. এইচআইভি ( HIV )
  5. চর্মরোগ
  6. হৃদরোগ
  7. হাঁপানি বা শ্বাসকষ্ট
  8. গর্ভবতী মহিলা। 
  9. ভ্রমণ দেশের জন্য প্রযোজ্য অন্য কোন বিশেষ ত্রুটি। 

পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক করা নিয়ে শেষকথা:

আশা করি কিভাবে ভিসার আবেদনের জন্য পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক করতে হয় তা নিয়ে এখন আর আপনার মনে কোন প্রশ্ন নেই।

আর্টিকেলটিতে আমরা পাসপোর্ট দিয়ে সৌদি আরব, কানাডা এবং মালয়েশিয়ার মেডিকেল রিপোর্ট চেক করার নিয়ম সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করেছি। 

এছাড়া, বাংলাদেশ থেকে কিভাবে মেডিকেল রিপোর্ট চেক করা যায় সে বিষয়েও তথ্য দিয়েছি যা আপনার বিদেশ ভ্রমণের পথকে সহজ করতে কাজে দিবে ইন শা আল্লাহ।

1 thought on “পাসপোর্ট দিয়ে মেডিকেল রিপোর্ট চেক করার নিয়ম”

  1. onek valo akta post .ai post ar madhye onek jinis ache hegula jana jabe …ja amader medical visa korar somoy kae lage

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top