স্বাস্থ্যই হলো মানুষের সকল সুখ এর মূল”। আমাদের প্রত্যেকের উচিত স্বাস্থ্য এর উপর বিশেষ নজর রাখা। সুতরাং এখন থেকেই মেনে চলুন স্বাস্থ্য সুরক্ষার উপকারী সব নিয়ম গুলো। আপনাদের জন্য প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে স্বাস্থ্য সুরক্ষার কিছু উপায় এবং রোগ নিরাময় করতে কিছু সমাধান দেওয়া হলো :

প্রাকৃতিক উপায়ে স্বাস্থ্য যত্ন ও রূপচর্চা

রক্ত পরিষ্কারে মৌরি

প্রতিদিন ১৫ গ্রাম করে মৌরি চিবিয়ে খেলে দেখা যাবে খুব কম সময়ে আপনার শরীরের রক্ত শুদ্ধ হয়ে আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে শুরু করেছে। মৌরি আপনার দেহের রক্তের দূষিত পদার্থ সব বের করে দিবে।

ত্বক পরিষ্কারে আপেল

প্রতিদিন যদি আপনি আপেল এর খোসা হাতে পায়ে মাখেন তাহলে এতে করে আপনার হাত এবং পা অনেক বেশী ফর্সা দেখাবে সাথে করে যদি হাত পায়ে কোন কালো দাগ থাকে সেগুলো দূর হয়ে যাবে খুব সহজে। এছাড়াও সুস্থ্য থাকার জন্যও আপপেল প্রয়োজনীয়। বলা হয়ে থাকে প্রতিদিন একটি আপেল আপনাকে ডাক্তার থেকে দূরে রাখবে।

বয়সের ছাপ দূরে রাখতে মধু

ত্বক ফর্সা করতে বিভিন্ন ক্রিম ব্যবহার করায় অনেকের ত্বকের শুষ্কতা ও বলিরেখা  চলে আসে। এসব দূর করার জন্য নিয়মিত মধু, দুধ ও বেসনের পেষ্ট মুখে ব্যবহার করতে পারেন। এটি শরীরেও লাগাতে পারেন এতে আপনার শরীর অতিরিক্ত শুষ্কতা থেকে মুক্তি পাবে।

ঠোঁটের কালো দাগ দূর করতে দুধ

অনেক এর ঠোঁটেই কালো ছোপ বা দাগ পড়ে দেখা যায় এই কালো ছোপ বা দাগ দূর করতে কাঁচা দুধে তুলো ভিজিয়ে আপনার ঠোঁট নিয়মিত মুছুন। প্রতিদিন ব্যবহার করলে আপনার ঠোঁটের কালো দাগ অনেকটাই কমে যাবে।

ত্বকের জ্বাল ভাব কমাতে টমেটো

একটানা অনেকক্ষণ ধরে রোদে থাকলে আমাদের ত্বকের জ্বালা ভাব শুরু করে। এই জ্বালা ভাব দূর করতে পাঁকা টমেটোর রস এবং দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে কিছু ক্ষণ মুখে লাগিয়ে রাখলে রোদে জ্বালা ভাব অনেকটাই কমে যাবে।

অযাচিত কালো দাগ দূর করতে লেবু

অনেক এর হাত এর কনুইতে কালো দাগ দেখা যায়। এই কালো দাগ দূর করতে চাইলে নিয়মিত লেবুর খোসায় চিনি দিয়ে ভালো করে ঘষে নিন। অন্তত ২ সপ্তাহ নিয়মিত এটি ব্যবহার করতে থাকুন দেখবেন আপনার কনুইতে দাগ চলে গিয়ে কনুই একেবারে নরম হয়ে গেছে।

স্ট্রোক রোধে চা

প্রাকৃতিক স্বাস্থ্য চিকিৎসা

নিয়মিত চা খেলে আপনার স্ট্রোক প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। প্রতিদিন চা পান করলে আমাদের ধমনীর গাত্রে চর্বি জমতে পারে না, যাতে করে আপনার স্ট্রোক এর ঝুঁকি অনেকটাই কমে আসবে। তবে চা খেতে গিয়ে অতিরিক্ত চিনি খেলে লাভের চেয়ে ক্ষতিই বেশি হবে।

ব্রণ দূরে রাখতে রসুন

আমাদের সৌন্দর্যের প্রধান জিনিস হলো আমাদের মুখ কিন্তু এই সুন্দর মুখ যদি ব্রণে পরিপূর্ণ থাকে তাহলে আপনার সৌন্দর্য পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যাবে। ব্রণ দূর করতে আপনি প্রতিদিন রসুনের কোয়া ব্রণের উপর ঘষে নিন, দেখবেন খুব তাড়াতাড়ি ব্রণ হারিয়ে যাবে।

এছাড়াও আপনার শরীরে যেকোনো ধরনের কালো দাগ থেকে মু্ক্তি পেতে আলু, লেবু এবং শসার রস এক সাথে মিশিয়ে নিন এরপর আধা চা চামচ গ্লিসারিন মিশিয়ে শরীরের দাগ এর স্থানে নিয়মিত ব্যবহার করুন খুব তাড়াতাড়ি ফল পেয়ে যাবেন।

ঘাম জনিত সমস্যা দূর করতে লাউ এর খোসা

শীতকালে অনেক এর দেখা যায় হাত প্রচুর পরিমাণে ঘামতে থাকে এর জন্য আপনি লাউ এর খোসা হাতে কিছু ক্ষণ ধরে ঘসতে থাকুন এবং নিয়মিত ব্যবহার করতে থাকুন এটি আপনার হাত এর ঘাম জনিত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করবে।

মাথাব্যাথা দূর করতে মাছের তেল

আমাদের অনেকেরই মাথাব্যাথার সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় প্রায়ই এবং একসময় সেটি প্রবল আকার ধারণ করে যার চিকিৎসা নিয়ে ও আমরা অনেকেই ফল পাই না।

মাথাব্যথার এই সমস্যা দূর করতে প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে মাছ খান কারণ মাছের তেল মাথাব্যথা প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এর পাশাপাশি আপনি নিয়মিত আদা খেতে পারেন। ব্যাথা নিরাময়ে আদা বেশ ভালো কাজ করে।

এছাড়াও আপনি নিয়মিত এক কাপ দুধের সাথে এক চামচ হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে খেতে পারেন বেশ উপকারে আসবে। এছাড়াও নিয়মিত দারূচিনি এর চা খেতে পারেন উপকার পাবেন।

চুল পড়া সমস্যা সমাধানে আমলকী ও জবা

আজকাল প্রায় দশ জনের মধ্যে নয় জনের প্রধান সমস্যা হল চুল পড়া। চুল পড়া বন্ধ করতে নিয়মিত মাথায় আমলকী এবং জবা ফুল নারকেল তেলের সঙ্গে ‌ফুটিয়ে একটি কাঁচের বোতলে সংরক্ষণ করে রাখুন এরপর চুলে শ্যাম্পু করার আধা ঘন্টা আগে এই তেল ভালো ভাবে চুলের গোড়ায় লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন।

সপ্তাহে অন্তত তিন দিন ব্যবহার করতে হবে। খুব তাড়াতাড়ি ফল পেয়ে যাবেন। এছাড়াও ব্যবহার করতে পারেন পেঁয়াজ এর রস এটি আপনার চুলের গোঁড়া শক্ত করবে।

কিডনী সমস্যায় আম

যাদের কিডনির সমস্যা আছে তারা নিয়মিত পাঁকা আম খাবেন সমস্যা নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। এছাড়াও আপনার যদি হরমোন জনিত সমস্যা থাকে তাহলে নিয়মিত পাঁকা পেয়ারা খান সমস্যা অনেক কমে আসবে।

হার্ট সমস্যায় নাশপাতী

যাদের হার্ট এর সমস্যা আছে তারা নিয়মিত নাশপাতি খাবেন এতে করে আপনার হার্ট সুস্থ থাকবে। যাদের দাঁত এর মাড়িতে ব্যাথা হয় তারা ব্যাথার সময় কচি পেয়ারা পাতা চিবিয়ে খান এটি ব্যাথা দূর করার পাশাপাশি মুখের দুর্গন্ধ ও দূর করতে সাহায্য করবে।

দাঁতের ব্যাথা থেকে মুক্তি পেতে লবঙ্গ

দাঁতের ব্যাথার স্থানে একটি লবঙ্গ দিয়ে রাখুন এবং কিছু ক্ষণ পর পর এর থেকে রস গিলে খেয়ে নিন এতে দাঁত ব্যাথা এবং এ্যাসিডিটি দুটি সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন।

এছাড়াও দাঁত এর মাড়ির জন্য লেবুর রস খুব উপকারী। নিয়মিত লেবু খেলে আপনার দাঁতের অধিক সমস্যা নিমিষেই দূর করে দিবে। আজকের আলোচনার মাধ্যমে অনেক এরই বিভিন্ন রকম সমস্যা খুব তাড়াতাড়ি সমাধান হবে আশা করি।

সাধারণত আমরা যদি কোন রোগে আক্রান্ত হই তবে ডাক্তার দেখাতে প্রচুর পরিমাণে অর্থ ব্যয় করি। তবে অনেক এরই ডাক্তারি চিকিৎসা কোন কাজে আসে না। সেক্ষেত্রে আপনার হাতের কাছের সব ধরনের পুষ্টি জাতীয় খাবার এবং কিছু প্রাকৃতিক চিকিৎসা সেবা নিতে পারেন যথেষ্ট উপকারী ফল পেয়ে যাবেন।


Monisha Akter

A writer at Pratiborton

0 Comments

মন্তব্য করুন

Avatar placeholder

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!