নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে চান? বাংলাদেশের মানুষ একটা সময় লেনদেন বলতে শুধুই হাত-হাতে লেনদেনকেই বুঝত। কিন্তু সময় পাল্টেছে, এখন বাংলাদেশে সেই আগের হাতে-হাতে লেনদেনের যুগ এখন আর নেই।

প্রযুক্তির ছোয়ায় বাংলাদেশকে আরেক ধাপ এগিয়ে নিতে এসেছে ডিজিটাল মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। লেনদেন বললেই এখন মানুষ বুঝে যায় ব্যাংক আর কার্ডের কথা। বিকাশ, রকেট, উপায় ইত্যাদি এগুলো হলো ডিজিটাল মোবাইল ব্যাংকিং সেবাসমূহ।

তবে এগুলোতে টাকা লেনদেনের বেলায় অনেক টাকা চার্জ হিসেবে কেটে নেয়। তাই বাংলাদেশ সরকার চার্জ একদম লিমেটের মধ্যে রেখে সকলের সুবিধার জন্য নিয়ে এসেছে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। যেটিতে সার্ভিস চার্জ বেশ কম রাখা হচ্ছে।

নগদ বাংলাদেশ ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশ ডাক বিভাগের মোবাইল ফোন ভিত্তিক ডিজিটাল আর্থিক সেবা। যা একটি অর্থ আদান-প্রদানের পরিষেবা। এটি থ্রার্ড ওয়েভ টেকনোলজি লিমিটেড কর্তৃক পরিচালিত।

নগদ ২০১৮ সালের ১১ ই নভেম্বর এ্যানাউন্সমেন্ট করা হয়। নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হলো: www.nagad.com.bd

আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে জানাতে চলছি নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সম্পর্কে। তো প্রথমেই চলুন জেনে নেওয়া যাক আসলে নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি এবং একাউন্টের সুবিধা সমূহ কি কি।

নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি সমূহ

আসলে অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিংয়ের তুলনায় নগদে এ্যাকাউন্ট খোলা খুবই সিম্পল। নগদে আপনি তিনটি পদ্ধতিতে এ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। পদ্ধতি তিনটি হলো:

  1. ইউএসএসডি পদ্ধতি
  2. মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে নগদ এ্যাকাউন্ট খোলা
  3. নগদ উদ্যোক্তার থেকে এ্যাকাউন্ট খোলা

আসুন জেনে নেই ইউএসএসডির মাধ্যমে কিভাবে এ্যাকাউন্ট খুলবেন।

নগদ একাউন্ট খোলার জন্য কি কি প্রয়োজন হবে?

নগদ একাউন্ট খোলার ৩টি পদ্ধতি রয়েছে। প্রতিটি পদ্ধতির কিছু নির্দিষ্ট জিনিসের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে যেগুলো নিয়ে আমরা পদ্ধতিগুলো আলোচনা করার সময় আমরা বিস্তারিতভাবে জানবো। তবে যে উপায়েই নগদ একাউন্ট খুলুন না কেন, নিচের এই কয়টি জিনিসের বাইরে আর কিছু প্রয়োজন হবেনা।

  • একটি সচল সিম
  • সচল মোবাইল
  • ন্যাশনাল আইডি কার্ড (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
  • নগদ মোবাইল অ্যাপ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
  • পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি ছবি (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)

NID কার্ড ছাড়া নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি

অন্য দুটো পদ্ধতির তুলনায় ইউএসএসডির মাধ্যমে একাউন্ট খোলা অনেকটা সহজ। আপনি মাত্র দুটো স্টেপ ফলো করলেই খুলে ফেলতে পারবেন আপনার নগদ এ্যাকাউন্ট।

নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি

  • প্রথমে আপনাকে আপনার মোবাইলের ডায়াল প্যাডে গিয়ে ডায়াল করতে হবে *১৬৭#।
  • তারপর আপনাকে চার ডিজিটের পিন সেট করে দিতে হবে (মনে রাখবেন এমন পিন দিবেন যা আপনি মনে রাখতে পারেন এবং পিন অবশ্যই কারো সাথে শেয়ার করবেন না)।
  • তারপরে আবার কনফার্ম পিন চাইলে পুনরায় একই চার ডিজিটের পিন বসাবেন।
  • ব্যস তাহলেই খুলে যাবে আপনার নগদ একাউন্ট। এখন লেনদেন করেন যত খুশি তত আপনার ইচ্ছামতো।

মোবাইল অ্যাপস দিয়ে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

নগদ একাউন্ট খোলার জন্য অ্যাপস ব্যবহার করতে পারেন। এজন্য প্রথমে আপনাকে আপনার ফোনের প্লে-স্টোরে যেতে হবে। তারপর গিয়ে Nagad লিখে সার্চ করলেই একদম প্রথমেই নগদের অফিসিয়াল অ্যাপসটি আসবে।

  • অ্যাপস ডাউনলোড করার পর আপনি অ্যাপসটি ওপেন করবেন। ওপেন করার পর রেজিস্ট্রেশন করুন অপশনে ক্লিক করবেন।

নগদ একাউন্ট কিভাবে খোলা যায়

  • এরপর আপনি আপনার যেই নাম্বার দিয়ে নগদ এ্যাকাউন্ট খুলতে চান সেই নাম্বারটি লিখে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন।
  • সিম অপারেটর (গ্রামীনফোন, রবি, বাংলালিংক) সিলেক্ট করুন অর্থাৎ আপনার সিম গ্রামীনফোন হলে গ্রামীনফোন সিলেক্ট করুন।
  • তারপর আসবে গুরুত্বপূর্ণ স্টেপ মানে আপনার আইডেন্টিটি কার্ডের (ভোটার আইডি কার্ড) ছবি তুলতে হবে। প্রথমে আপনার আইডেন্টিটি কার্ডের সামনের এবং পরের ধাপে অপর অংশের ছবি তুলবেন।

  • পরবর্তীতে ক্লিক করলে আপনাকে নতুন আরেকটি ডায়ালগ বক্সে নিয়ে যাবে সেখানে আপনার নিজের ছবি তুলতে হবে। ছবি তোলার সময় আপনার চারপাশে যেন আলো থাকে, আপনার মুখমন্ডল যেন স্পষ্ট দেখা যায় সেগুলো খেয়াল করবেন। ক্যামেরার সোজাসুজি তাকান ছবি তোলার সময় কয়েকবার চোখের পলক ফেলুন (চোখ বন্ধ করবেন এবং খুলবেন)। সফলভাবে ছবি তোলা হলে পরবর্তী ধাপে যাবেন।
  • এখন আপনাকে প্রাথমিক পিন সেটআপ করতে বলা হবে হবে, আপনি আপনার পছন্দমতো চার ডিজিটের পিন নাম্বার সেটআপ করবেন। এরপর পরবর্তীতে ক্লিক করলে কনফার্ম পিন দিতে বলবে আপনি আবার সেইম পিন দিবেন। পিন বসানোর পর পরবর্তী ধাপে ক্লিক করুন।
  • এরপর নগদ থেকে আপনার এ্যাকাউন্টে ভেরিফিকেশনের জন্য একটি ওটিপি (কোড মেসেজ) সেন্ড করা হবে। আপনি ওটিপির ঘরে সঠিকভাবে কোড পূরণ করুন। সবকিছু ঠিকঠাকভাবে সফলভাবে কমপ্লিট করা হলে আপনার এ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট থেকে নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি

আপনার যদি উপরের পদ্ধতির একটাও পছন্দ নাহ হয় তাহলে আপনি চাইলে উদ্যোক্তা পয়েন্টে গিয়ে খুব সহজেই আপনার একাউন্ট খুলে আনতে পারবেন। এজন্য আপনাকে আপনার নিকটতম উদ্যোক্তা পয়েন্টে যেতে হবে।

নগদ একাউন্ট খুলতে কি কি প্রয়োজন হবে?

  • আপনাকে আপনার সাথে করে আপনার ভোটার আইডি কার্ড,
  • আপনার পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি ছবি,
  • যে সিম দিয়ে একাউন্ট খুলবেন সেই সিম এবং
  • আপনার মোবাইল ফোন নিয়ে উদ্যোক্তা পয়েন্টে যোগাযোগ করবেন।

তারপর তারা আপনাকে একটি ফর্ম দিবে, আপনি সেই ফর্মটি পূরণ করবেন। এরপর ৫০ টাকা ক্যাশইন করবেন তাহলেই আপনার একাউন্ট অ্যাক্টিভ হয়ে যাবে। ব্যস, তৈরি হয়ে গেলো আপনার নগদ একাউন্ট।

নগদ ইসলামিক একাউন্ট কি?

আমাদের মুসলিম হিসেবে সবারই উচিৎ ইসলামের সকল বিধি-নিষেধ মেনে চলা। মুসলিম প্রধান দেশের গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে নগদ প্রথম মোবাইল ব্যাংকিং সেবা যারা ইসলামিক একাউন্ট চালু করেছে।

নগদ ইসলামিক একাউন্টে নরমাল একাউন্টের মতো টাকা সঞ্চয় রেখে মুনাফা লাভ করা যায় না। তাছাড়া বাকি সকল সুযোগ-সুবিধা একই রকম থাকবে।

নগদ ইসলামিক একাউন্ট চালু করার জন্য নগদ মোবাইল অ্যাপ থেকে Account type ইসলামিক এ পরিবর্তন করে নিতে হবে।

নগদ একাউন্ট চেক দেখার নিয়ম?

আসলে নগদ একাউন্ট দুইভাবে চেক করতে পারবেন:

  1. ইউএসএসডি কোড
  2. মোবাইল অ্যাপ

ইউএসএসডি পদ্ধতিতে দেখার জন্য আপনাকে প্রথমে আপনার মোবাইলের ডায়াল প্যাডে গিয়ে নগদ একাউন্ট দেখার কোড *১৬৭# ডায়াল করতে হবে। তারপর আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী অপশন বাছাই করে নিন।

নগদ একাউন্ট দেখার সিস্টেম

নগদ অ্যাপে একাউন্ট দেখার নিয়ম

মোবাইল অ্যাপ দিয়ে নগদ একাউন্ট দেখার জন্য আপনার ফোন নাম্বার আর পিন কোড দিয়ে লগ-ইন করলেই আপনার একাউন্টের যাবতীয় যত ইনফরমেশন দেখতে পারবেন।

বিস্তারিতভাবে জানতে নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম সম্পর্কিত টিউটোরিয়ালটি পড়ে নিন।

নগদ একাউন্টের সুবিধা ২০২১

নগদ একাউন্টের সুবিধা ২০২১

  • ক্যাশ ইন: আপনি চাইলেই নগদ একাউন্টে নিকটতম নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্টে গিয়ে ক্যাশ ইন করে আপনার একাউন্টে যখন খুশি তখনই টাকা যোগ করতে পারবেন।
  • সর্বনিম্ম চার্জে ক্যাশ আউট: আপনার ইচ্ছামতোই যখন খুশি তখনই দেশের সর্বনিম্ন ক্যাশ আউট রেট মাত্র ৯.৯৯ টাকা রেটে এ ক্যাশ আউট করতে পারবেন।
  • ফ্রি সেন্ড মানি: নগদ থেকে নগদ কিংবা নগদ নেই এমন মোবাইল নাম্বারে সেন্ড মানি করতে পারবেন একদম ফ্রী।
  • ফ্রি মোবাইল রিচার্জ: দেশের যেকোনো অপারেটরের যেকোনো মোবাইল নাম্বারে রিচার্জ করা যাবে।
  • মুনাফা: নগদ দিচ্ছে টাকা জমা রেখে মুনাফা পাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ। (মুসলিম হিসেবে মুনাফা নেওয়া থেকে বিরত থাকুন, এটা হারাম। বরং, ইসলামিক একাউন্ট চালু করুন)
  • ফ্রি বিল পে: নগদ একাউন্টের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই বিদুৎ বিল, ইন্টারনেট বিল, পানির বিলসহ অন্যান্য অনলাইন সাইটে পেমেন্ট করতে পারবেন, যা একদম ফ্রি।
  • ফ্রি অ্যাড মানি: ব্যাংক এবং কার্ড থেকে নগদে টাকা আনতে পারবেন সম্পূর্ণ ফ্রিতে।

নগদ অফার সমূহ

  • ShareTip- এ এয়ার টিকেট নগদে পেমেন্ট করলে ৭% এবং রিসোর্ট ও হোটেল বুকিং এ ৭৬% পর্যন্ত ডিসকাউন্ট
  • NOVAAIR – এ ১০% ডিসকাউন্ট
  • United Hospital এ ৳২০০০ পর্যন্ত ক্যাশব্যাক।
  • Akash DTH- এ ৩০ টাকা ইনস্ট্যান্ট ক্যাশব্যাক
  • Rangs Electronics আউটলেট ও অনলাইন শপ-এ ১,৫০০ টাকা পর্যন্ত ডিসকাউন্ট
  • oshudsheba তে ৫% ফ্লাট ডিসকাউন্ট
  • গ্রামীনফোন, বাংলালিংক, এয়ারটেল ও রবিতে দারুনসব রিচার্জ অফার
  • এছাড়া দেশের বিভিন্ন শপে কেনাকাটায় পে করলেই ক্যাশব্যাক ও ডিসকাউন্ট সুবিধা পাবেন।

নগদের ক্যাশ আউট চার্জ কত?

বাংলাদেশের অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিংয়ের তুলনায় নগদ একদম কম সার্ভিস চার্জ কেটে থাকে। নগদ অ্যাপ দিয়ে প্রতি হাজার টাকা ক্যাশ আউট করার জন্য সার্ভিস চার্জ মাত্র ৯.৯৯ টাকা।

তবে, মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার না করে ইউএসএসডি কোড ব্যবহার করে ক্যশ আউট করতে প্রতি হাজারে ১৪.৯৫ টাকা খরচ হবে।

নগদ একাউন্ট বন্ধ করার পদ্ধতি

ঘরে বসে নগদ একাউন্ট ডিলিট করার কোনো পদ্ধতি নেই। কোনো নাম্বারের নগদ একাউন্ট বন্ধ করার জন্য একাউন্টের সম্পূর্ণ ব্যালেন্স ট্রান্সফার করে নিন অথবা ক্যাশ আউট করুন।

এরপর আপনার আইডি কার্ড (অরিজিনাল ভোটার আইডি কার্ড) এবং সিম নিয়ে নিকটস্থ নগদ কাস্টোমার অফিসে যেতে হবে।

নগদ হেল্পলাইন

নগদ একাউন্ট সংশ্লিষ্ট যেকোনো সমস্যায় সমাধান দিতে নগদ কাস্টোমার কেয়ার এরপাশাপাশি অনলাইন হেল্প লাইনও রয়েছে। ফোন করার পাশাপাশি ইমেইল করেও সমস্যার সমাধান নিতে পারবেন।

  • নগদ কাস্টোমার কেয়ার ফোন নাম্বার: ১৬১৬৭ ও ০৯৬০৯৬১৬১৬৭
  • ইমেইল এড্রেস: info@nagad.com.bd
  • ওয়েবসাইট: nagad.com.bd

নগদ একাউন্ট সম্পর্কে প্রায়শই জিজ্ঞেসিত প্রশ্ন

প্র: নগদ একাউন্ট খোলার জন্য কত টাকা লাগবে?

উ: নগদ একাউন্ট খোলার সকল পদ্ধতিতেই বিনমূল্যে একাউন্ট করা যায়।

প্র: আমি কি একের অধিক নগদ একাউন্ট খুলতে পারবো?

উ: প্রতিটি ভ্যালিড ন্যাশনাল আইডি কার্ড / ড্রাইভিং লাইসেন্স / পাসপোর্ট দিয়ে মাত্র একটি নগদ একাউন্ট খুলতে পারবেন।

প্র: আমি কি নগদে ২৪ ঘন্টা ৭ দিন লেনদেন করতে পারবো?

উ: হ্যা, আপনি যেকোনো সময়ই লেনদেন করতে পারবেন। তবে মাসে দুই-একবার কিছু সময়ের জন্য সার্ভার সমস্যা কিংবা প্রোগ্রাম আপডেটের জন্য কিছু সময় বন্ধ রাখা হয়।

প্র: ট্রান্সজেকশান সম্পূর্ণ হতে কত সময় দরকার হয়?

উ: কয়েক সেকেন্ড এর মাঝেই সকল ধরনের ট্রান্সজেকশান সম্পূর্ণ হয়ে যায়।

প্র: আমি কোথায় ক্যাশ আউট করতে পারবো?

উ: আপনার নিকটস্থ সকল নগদ এজেন্ট অর্থাৎ নগদ উদ্দোক্তা পয়েন্ট এ গিয়ে ক্যাশ আউট করতে পারবেন।

প্র: আমি কি অন্য কারো মোবাইলে রিচার্জ করতে পারবো?

উ: বাংলাদেশের যেকোনো অপারেটরের যেকোনো নাম্বারে *১৬৭# ডায়াল করে কিংবা নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে রিচার্জ করতে পারবেন।

নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি নিয়ে পরিশেষ

নগদ যার ট্যাগলাইন ডাক বিভাগের ডিজিটাল লেনদেন! মোবাইল ব্যাংকিং সেবাকে সবার জন্য আরো সহজ করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে নগদ।

নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি অনুসরণ করে নগদ একাউন্ট খোলার মধ্য দিয়ে আশা করি আপনিও এখন থেকে নগদের সকল সেবা নিতে পারবেন।


Shahriar Shaon

আমি শাহরিয়ার তানজিদ শাওন।বর্তমানে আমি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রথম বর্ষের একজন শিক্ষার্থী।

0 Comments

মন্তব্য করুন

Avatar placeholder

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

eleven − 5 =

error: Content is protected !!