নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২৩ | নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয়

নগদ মোবাইল একাউন্ট খোলার নিয়ম

নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয় ভাবছেন? নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম একদম সহজ। এখন ঘরে বসে নগদ অ্যাপ অথবা *১৬৭# ডায়াল করে নগদ একাউন্ট খোলা যায়।

আপনার কি নগদ একাউন্ট নেই? নগদ মোবাইল একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চান? চিন্তার কোন কারণ নেই, কেননা এখানে আমরা নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয় সেসম্পর্কে ৩টি পদ্ধতি জানাবো, যা অনুসরণ করে মাত্র কয়েক মিনিটে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খুলতে পারবেন।

প্রযুক্তির ছোয়ায় বাংলাদেশকে আরেক ধাপ এগিয়ে নিতে এসেছে ডিজিটাল মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। লেনদেন বললেই এখন মানুষ বুঝে যায় ব্যাংক আর কার্ডের কথা। বিকাশ, উপায়, রকেট ইত্যাদি হলো ডিজিটাল মোবাইল ব্যাংকিং সেবাসমূহ।

তবে, এসব মোবাইল ব্যাংকিং সেবায় টাকা লেনদেনের সময় অনেক বেশি চার্জ কাটে। তাই, বাংলাদেশ সরকার চার্জ একদম লিমিটের মধ্যে রেখে সকলের সুবিধার জন্য নিয়ে এসেছে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা, যেটিতে সার্ভিস চার্জ বেশ কম রাখা হচ্ছে।

আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয় ( nagad account kholar niom ) সেসম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে চলেছি। চলুন তাহলে, নগদ মোবাইল একাউন্ট খোলার নিয়ম (How to open Nagad Mobile Banking Account) এবং নগদ একাউন্টের সুবিধা সমূহ কি কি সেসব জেনে নেওয়া যাক।

একনজরে সম্পূর্ণ আর্টিকেল

নগদ মোবাইল একাউন্ট খোলার নিয়ম | নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয়

নগদ একাউন্ট খোলার ৩টি পদ্ধতি রয়েছে:

  1. নগদ একাউন্ট খোলার ইউএসএসডি পদ্ধতি বা *১৬৭# ডায়াল করে
  2. মোবাইল অ্যাপ দিয়ে নগদ একাউন্ট খোলা, এবং
  3. নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট অথবা কাস্টমার সার্ভিস পয়েন্ট থেকে নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি।

নগদ একাউন্ট খোলার জন্য যা যা প্রয়োজন হবে

নগদ একাউন্ট খুলতে যা যা লাগবে:

  • একটি সচল সিম
  • সচল মোবাইল
  • ন্যাশনাল আইডি কার্ড (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
  • নগদ মোবাইল অ্যাপ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
  • পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি ছবি (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খোলার প্রতিটি পদ্ধতির কিছু নির্দিষ্ট জিনিসের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে যেগুলো নিয়ে আমরা নির্দিষ্ট পদ্ধতি আলোচনা করার সময় বিস্তারিতভাবে জানবো। তবে, যে নিয়মেই নগদ একাউন্ট খুলুন না কেন, নিচের এই কয়টি জিনিসের বাইরে আর কিছু প্রয়োজন হবেনা।

১. NID কার্ড ছাড়া নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম | নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয়

নগদ একাউন্ট খোলার অন্য দুটো নিয়মের তুলনায় ইউএসএসডির মাধ্যমে নগদ একাউন্ট খোলা বেশি সহজ। আপনি মাত্র দুটো স্টেপ ফলো করলেই নগদ একাউন্ট খুলে ফেলতে পারবেন।

NID কার্ড ছাড়া নগদ একাউন্ট খুলতে –

  1. প্রথমে *১৬৭# ডায়াল করুন
  2. ৪ ডিজিটের নগদ পিন সেট করুন এবং
  3. পিন কনফার্ম করুন।

1. *১৬৭# ডায়াল করুন: প্রথমে আপনাকে আপনার মোবাইলের ডায়াল প্যাডে গিয়ে ডায়াল করতে হবে *১৬৭#।

আরো পড়ুন:  রকেট একাউন্ট দেখার নিয়ম । Rocket account check code

2. নগদ পিন সেট করুন: তারপর আপনাকে চার ডিজিটের পিন সেট করে দিতে হবে (মনে রাখবেন এমন পিন দিবেন যা আপনি মনে রাখতে পারেন এবং পিন অবশ্যই কারো সাথে শেয়ার করবেন না)।

3. পিন কনফার্ম করুন: পুণরায় কনফার্ম পিন চাইলে পূর্বে যে চার ডিজিটের পিন দিয়েছিলেন, সেই চার ডিজিটের পিন আবারো লিখে দিন।

ব্যস, তাহলেই খুলে যাবে আপনার নগদ একাউন্ট। এখন লেনদেন করেন যত খুশি তত আপনার ইচ্ছামতো।

নগদ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি
ছবি: আইডি কার্ড ছাড়া নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

ভোটার আইডি কার্ড ছাড়া নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয় সেবিষয়ে আরো পরিষ্কার ধারণা পেতে নিচের ভিডিওটি দেখুন:

২. নগদ অ্যাপ দিয়ে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

এটি নগদ মোবাইল একাউন্ট খোলার নিয়মাবলীর মাঝে সবচেয়ে স্মার্ট পদ্ধতি। নগদ একাউন্ট খোলার জন্য নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে ঘরে বসে একাউন্ট খোলা যায়।

নগদ অ্যাপ দিয়ে নগদ একাউন্ট খুলতে –

  1. নগদ অ্যাপ ডাউনলোড করুন
  2. নগদ অ্যাপটি ওপেন করে রেজিস্ট্রেশন অপশনে ক্লিক করুন
  3. সচল মোবাইল নাম্বার দিন
  4. অপারেটর সিলেক্ট করুন
  5. KYC তথ্য দিন
  6. নিজের ছবি তুলুন
  7. নগদ পিন সেট করুন এবং
  8. নগদ একাউন্ট ভেরিফিকেশন করে নিন।

1. নগদ অ্যাপ ডাউনলোড: নগদ মোবাইল অ্যাপ দিয়ে একাউন্ট খুলতে প্রথমে আপনাকে প্লে-স্টোর অথবা অ্যাপল স্টোরে যেতে হবে। তারপর, Nagad লিখে সার্চ করলেই একদম প্রথমেই নগদের অফিসিয়াল নগদ অ্যাপ চলে আসবে। অথবা, এখানে ক্লিক করে সরাসরি নগদ অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারেন।

2. নগদ অ্যাপ রেজিস্ট্রেশন: নগদ অ্যাপ ডাউনলোড করার পর নগদ অ্যাপটি ওপেন করুন। ওপেন করার পর রেজিস্ট্রেশন করুন অপশনে ক্লিক করুন।

নগদ একাউন্ট কিভাবে খোলা যায়

3. নগদ একাউন্ট নাম্বার দিন: এরপর আপনি আপনার যেই নাম্বার দিয়ে নগদ একাউন্ট খুলতে চান সেই নাম্বারটি লিখে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন।

4. অপারেটর সিলেক্ট করুন: সিম অপারেটর (গ্রামীনফোন, রবি, বাংলালিংক) সিলেক্ট করুন অর্থাৎ আপনার সিম গ্রামীনফোন হলে গ্রামীনফোন সিলেক্ট করুন।

5. KYC তথ্য দিন: পরবর্তীতে আসবে গুরুত্বপূর্ণ স্টেপ, মানে আপনার আইডেন্টিটি কার্ডের (ভোটার আইডি কার্ড) ছবি তুলতে হবে। প্রথমে আপনার আইডি কার্ডের সামনের এবং পরের ধাপে অপর অংশের ছবি তুলবেন।

6. নিজের ছবি তুলুন: পরবর্তীতে ক্লিক করলে আপনাকে নতুন আরেকটি ডায়ালগ বক্সে নিয়ে যাবে সেখানে আপনার নিজের ছবি তুলতে হবে। ছবি তোলার সময় আপনার চারপাশে যেন আলো থাকে, আপনার মুখমন্ডল যেন স্পষ্ট দেখা যায় সেগুলো খেয়াল করবেন। ক্যামেরার সোজাসুজি তাকান ছবি তোলার সময় কয়েকবার চোখের পলক ফেলুন (চোখ বন্ধ করবেন এবং খুলবেন)। সফলভাবে ছবি তোলা হলে পরবর্তী ধাপে যাবেন।

6. নগদ পিন সেট করুন: এখন আপনাকে প্রাথমিক পিন সেটআপ করতে বলা হবে হবে, আপনি আপনার পছন্দমতো চার ডিজিটের পিন নাম্বার সেটআপ করবেন। এরপর পরবর্তীতে ক্লিক করলে কনফার্ম পিন দিতে বলবে আপনি আবার সেইম পিন দিবেন। পিন বসানোর পর পরবর্তী ধাপে ক্লিক করুন।

7. নগদ একাউন্ট ভেরিফিকেশন: এরপর নগদ থেকে আপনার একাউন্ট ভেরিফিকেশনের জন্য একটি ওটিপি (কোড মেসেজ) সেন্ড করা হবে। আপনি ওটিপির ঘরে সঠিকভাবে কোড পূরণ করুন।

অ্যাপ দিয়ে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

সবকিছু ঠিকঠাকভাবে সফলভাবে কমপ্লিট করা হলে আপনার একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয় সেবিষয়ে আমরা উপরে গরে বসে একাউন্ট খোলার ২ টি নিয়ম দেখিয়েছি। নগদ একাউন্ট খোলার এই দুইটি নিয়ম এর একটাও যদি আপনার কাছে সহজবোধ্য মনে না হয় তাহলে, আপনি চাইলে নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্টে গিয়ে খুব সহজেই আপনার নগদ একাউন্ট খুলে নিতে পারবেন।

৩. নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট থেকে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্টে একাউন্ট খোলার জন্য যা যা সঙ্গে নিতে হবে:

  • আপনার ভোটার আইডি কার্ড
  • পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি ছবি
  • যে সিম দিয়ে একাউন্ট খুলবেন সেই সিম, এবং
  • আপনার মোবাইল ফোন।

নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্টে যাওয়ার পর আপনাকে একটি ফর্ম দেওয়া হবে, সেই ফর্মটি পূরণ করার পর নগদ উদ্যোক্তা আপনার নগদ মোবাইল একাউন্ট ওপেন করে দিবে। এরপর ৫০ টাকা ক্যাশইন করলেই আপনার নগদ একাউন্টটি অ্যাক্টিভ হয়ে যাবে। ব্যস, তৈরি হয়ে গেলো আপনার নগদ একাউন্ট।

আরো পড়ুন:  ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২৩

নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম | How to Check Nagad Account?

নগদ একাউন্ট দেখার দুইটি নিয়ম রয়েছে;

  1. ইউএসএসডি কোড (*১৬৭# ডায়াল করে) পদ্ধতি, এবং
  2. মোবাইল অ্যাপ দিয়ে নগদ একাউন্ট দেখার পদ্ধতি

ইউএসএসডি পদ্ধতিতে নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম

ইউএসএসডি পদ্ধতিতে দেখার জন্য আপনাকে প্রথমে আপনার মোবাইলের ডায়াল প্যাডে গিয়ে নগদ একাউন্ট দেখার কোড *১৬৭# ডায়াল করতে হবে। তারপর, আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী অপশন বাছাই করে নিন।

নগদ অ্যাপ দিয়ে নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম

মোবাইল অ্যাপ দিয়ে নগদ একাউন্ট দেখার জন্য আপনার ফোন নাম্বার আর পিন কোড দিয়ে লগ-ইন করলেই আপনার একাউন্টের যাবতীয় ইনফরমেশন দেখতে পারবেন।

নগদ একাউন্ট দেখার সিস্টেম
নগদ অ্যাপে একাউন্ট দেখার নিয়ম

বিস্তারিতভাবে স্টেপ বাই স্টেপ নিয়ম জানতে নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম সম্পর্কিত টিউটোরিয়ালটি পড়ে নিন।

নগদ একাউন্টের সুবিধা ২০২৩ | Advantages of Nagad Mobile Banking

নগদ একাউন্টের সুবিধা ২০২১

1. ক্যাশ ইন: আপনি চাইলেই নগদ একাউন্টে নিকটতম নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্টে গিয়ে ক্যাশ ইন করে আপনার একাউন্টে যখন খুশি তখনই টাকা যোগ করতে পারবেন।

2. সর্বনিম্ন চার্জে ক্যাশ আউট: আপনার ইচ্ছামতোই যখন খুশি তখনই দেশের সর্বনিম্ন ক্যাশ আউট রেট মাত্র ৯.৯৯ টাকা রেটে এ ক্যাশ আউট করতে পারবেন।

3. ফ্রি সেন্ড মানি: নগদ থেকে নগদ কিংবা নগদ নেই এমন মোবাইল নাম্বারে সেন্ড মানি করতে পারবেন একদম ফ্রী।

4. ফ্রি মোবাইল রিচার্জ: দেশের যেকোনো অপারেটরের যেকোনো মোবাইল নাম্বারে রিচার্জ করা যাবে।

5. মুনাফা: নগদ দিচ্ছে টাকা জমা রেখে মুনাফা পাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ। (মুসলিম হিসেবে মুনাফা নেওয়া থেকে বিরত থাকুন, এটা হারাম। বরং, ইসলামিক একাউন্ট চালু করুন)

6. ফ্রি বিল পে: নগদ একাউন্টের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই বিদুৎ বিল, ইন্টারনেট বিল, পানির বিলসহ অন্যান্য অনলাইন সাইটে পেমেন্ট করতে পারবেন, যা একদম ফ্রি।

7. ফ্রি অ্যাড মানি: ব্যাংক এবং কার্ড থেকে নগদে টাকা আনতে পারবেন সম্পূর্ণ ফ্রিতে।

নগদ একাউন্টের সুবিধা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আর্টিকেলটি পড়ে নিন।

নগদ একাউন্টের অফার সমূহ

  • প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭ টা থেকে ৮ টা পর্যন্ত ২০ বা তার বেশি রিচার্জ করলেই ১০ টাকা ক্যাশব্যাক পাবেন।
  • ShareTip- এ এয়ার টিকেট নগদে পেমেন্ট করলে ৭% এবং রিসোর্ট ও হোটেল বুকিং এ ৭৬% পর্যন্ত ডিসকাউন্ট।
  • NOVAAIR – এ ১০% ডিসকাউন্ট।
  • United Hospital এ ৳২০০০ পর্যন্ত ক্যাশব্যাক।
  • Akash DTH- এ ৩০ টাকা ইনস্ট্যান্ট ক্যাশব্যাক
  • Rangs Electronics আউটলেট ও অনলাইন শপ-এ ১,৫০০ টাকা পর্যন্ত ডিসকাউন্ট
  • oshudsheba তে ৫% ফ্লাট ডিসকাউন্ট
  • গ্রামীনফোন, বাংলালিংক, এয়ারটেল ও রবিতে দারুনসব রিচার্জ অফার
  • এছাড়া দেশের বিভিন্ন শপে কেনাকাটায় পে করলেই ক্যাশব্যাক ও ডিসকাউন্ট সুবিধা পাবেন।

নগদ ক্যাশ আউট চার্জ কত | Nagad Cash Out Charge

বাংলাদেশের অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিংয়ের তুলনায় নগদ একদম কম সার্ভিস চার্জ কেটে থাকে। নগদ অ্যাপ দিয়ে প্রতি হাজার টাকা ক্যাশ আউট করার জন্য সার্ভিস চার্জ মাত্র ৯.৯৯ টাকা।

তবে, মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার না করে ইউএসএসডি কোড ব্যবহার করে ক্যশ আউট করতে প্রতি হাজারে ১৪.৯৫ টাকা খরচ হবে।

নগদ একাউন্টের চার্জ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আর্টিকেলটি পড়ে নিন।

নগদ একাউন্ট বন্ধ করার পদ্ধতি কি | How to Close Nagad Account?

নগদ একাউন্ট বন্ধ করার জন্য একাউন্টের সম্পূর্ণ ব্যালেন্স ট্রান্সফার করে নিন অথবা ক্যাশ আউট করুন।

এরপর আপনার আইডি কার্ড (অরিজিনাল ভোটার আইডি কার্ড) এবং সিম নিয়ে নিকটস্থ নগদ কাস্টোমার অফিসে যেতে হবে।

নগদ একাউন্ট ঘরে বসে বন্ধ করার পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে টিউটোরিয়ালটি পড়ে নিন।

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার নিয়ম

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্টের মতো ঘরে বসে নগদ এজেন্ট একাউন্ট খুলতে পারবেন না। নগদ এজেন্ট যেকেউ খুলতে পারবেন এমন সুযোগও নেই। তবে আপনার যদি প্রতিষ্ঠিত কোন দোকান থাকে তবে নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খুলে প্রতিমাসে ২০-৫০ হাজার কিংবা তারও বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

নগদ একাউন্ট খোলার যোগ্যতা হিসেবে যা লাগবে:

আরো পড়ুন:  রকেট একাউন্ট একটিভ করার নিয়ম | How to Activate Rocket Account

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার নিয়ম:

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার জন্য উপরিউক্ত প্রয়োজনীয় কাগজ নিয়ে আপনার নিকটস্থ নগদ অফিস ভিজিট করুন। আপনার দোকানের লোকেশন ও ব্যবসা সম্পর্কে জানান। এবং আপনার নগদ এজেন্ট হওয়ার আবেদন ফরম পূরণ করে জমা দিন।

নগদ অফিস থেকে আপনার দেওয়া তথ্য ও দোকানের অবস্থান, নগদের চাহিদা ভেরিফিকেশন করে আপনার নাম্বারটি একজন নগদ উদ্যোক্তা হিসেবে অ্যাকসেপ্ট অথবা রিজেক্ট করে দিবে।

সাধারণত, আপনার দোকানের লোকেশনে যদি নগদের চাহিদা থাকে, এবং আশে পাশে নগদ এজেন্ট না থাকে তাহলে খুব সহজেই নগদ এজেন্ট হতে পারবেন।

নগদ এজেন্ট হওয়ার জন্য কত টাকা লাগবে?

নগদ এজেন্ট হতে মিনিমাম কত টাকা লাগবে এবিষয়ে কোন সুনির্দষ্ট হিসাব নেই। তবে একজন নগদ উদ্যোক্তার নগদ ক্যাশ আউট করার জন্য হ্যান্ড ক্যাশ এবং নগদ এজেন্ট একাউন্ট থেকে ক্যাশ ইন করার জন্য নগদ এজেন্ট একাউন্টে টাকা থাকতে হবে। যা এলাকা ভিত্তিক চাহিদা আলাদা হবে।

তাই, নতুন একজন নগদ উদ্যোক্তার নগদ নিয়ে কাজ শুরু করতে এলাকার উপর ভিত্তি করে ২৫ হাজার থেকে ২ লাখ টাকা প্রয়োজন হতে পারে।

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্টের সুবিধা

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট থেকে প্রতি ১০০০ টাকা ক্যাশ ইন করলে নগদ উদ্যোক্তা ৪.১০ টাকা লাভ পাবেন। একইভাবে নগদ উদ্যোক্তা একাউন্টে ১০০০ টাকা ক্যাশ আউট করলেও নগদ এজেন্ট ৪.১০ টাকা প্রফিট পাবেন।

সুতরাং, প্রতিদিন গড়ে ১ লাখ টাকা লেনদেন করলে একজন নগদ উদ্যোক্তা ১২৩০০+ টাকা আয় করবেন। তাছাড়া, বিভিন্ন অফারে আরো অতিরিক্ত ইনকাম করার সুযোগ তো থাকছেই।

FAQ: নগদ একাউন্ট সম্পর্কে প্রায়শই জিজ্ঞেসিত প্রশ্ন

Loader image

নগদ একাউন্ট সংশ্লিষ্ট যেকোনো সমস্যায় সমাধান দিতে নগদ কাস্টোমার কেয়ার এরপাশাপাশি অনলাইন হেল্প লাইনও রয়েছে। ফোন করার পাশাপাশি ইমেইল করেও সমস্যার সমাধান নিতে পারবেন।

  • নগদ কাস্টোমার কেয়ার ফোন নাম্বার: ১৬১৬৭ ও ০৯৬০৯৬১৬১৬৭
  • ইমেইল এড্রেস: info@nagad.com.bd
  • ওয়েবসাইট: nagad.com.bd

আমাদের মুসলিম হিসেবে সবারই উচিৎ ইসলামের সকল বিধি-নিষেধ মেনে চলা। মুসলিম প্রধান দেশের গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে নগদ প্রথম মোবাইল ব্যাংকিং সেবা যারা ইসলামিক একাউন্ট চালু করেছে।

নগদ ইসলামিক একাউন্টে নরমাল একাউন্টের মতো টাকা সঞ্চয় রেখে মুনাফা লাভ করা যায় না। তাছাড়া, বাকি সকল সুযোগ-সুবিধা একই রকম থাকবে।

নগদ ইসলামিক একাউন্ট চালু করার জন্য নগদ মোবাইল অ্যাপ থেকে Account type ইসলামিক এ পরিবর্তন করে নিতে হবে।

নগদ একাউন্ট খোলার সকল পদ্ধতিতেই বিনমূল্যে একাউন্ট করা যায়।

প্রতিটি ভ্যালিড ন্যাশনাল আইডি কার্ড / ড্রাইভিং লাইসেন্স / পাসপোর্ট দিয়ে মাত্র একটি নগদ একাউন্ট খুলতে পারবেন।

হ্যা, আপনি যেকোনো সময়ই লেনদেন করতে পারবেন। তবে মাসে দুই-একবার কিছু সময়ের জন্য সার্ভার সমস্যা কিংবা প্রোগ্রাম আপডেটের জন্য কিছু সময় বন্ধ রাখা হয়।

কয়েক সেকেন্ড এর মাঝেই সকল ধরনের ট্রান্সজেকশান সম্পূর্ণ হয়ে যায়।

আপনার নিকটস্থ সকল নগদ এজেন্ট অর্থাৎ নগদ উদ্দোক্তা পয়েন্ট এ গিয়ে ক্যাশ আউট করতে পারবেন।

বাংলাদেশের যেকোনো অপারেটরের যেকোনো নাম্বারে *১৬৭# ডায়াল করে কিংবা নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে রিচার্জ করতে পারবেন।

নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয় সেবিষয়ে পরিশেষ

নগদ যার ট্যাগলাইন ডাক বিভাগের ডিজিটাল লেনদেন! মোবাইল ব্যাংকিং সেবাকে সবার জন্য আরো সহজ করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে নগদ।

আশা করি, নগদ একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয় তা জানাতে পেরেছি। নগদ মোবাইল একাউন্ট খোলার নিয়ম অনুসরণ করে Nagad Account kholar মধ্য দিয়ে এখন আপনিও এখন থেকে নগদের সকল সেবা নিতে পারবেন।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Scroll to Top