এসইও কি?: ডিজিটাল মার্কেটিং কিংবা অনলাইনে আয় যাই বলুন না কেনো, এদের সাথে যুক্ত অথচ এসইও ( ‍SEO in Bangla ) ‘র নাম শুনেননি এমন কেউ আছেন নাকি? উত্তর টা অবশ্যই,  না।

আর যারা ব্লগিং কিংবা ইউটিউবে ভিডিও বানানোর কাজে যুক্ত তারা তো ইতোমধ্যেই জেনে গেছেন এটি আপনার ব্লগ কিংবা ইউটিউবের জন্য SEO ঠিক কতোটা গুরুত্বপূর্ণ। 

তবে এমন অনেক ইউটিউবার কিংবা ব্লগার আছেন যারা এসইও কি সেসম্পর্কে সঠিক ধারণা না নিয়েই তাদের অনলাইনে আয়ের যাত্রা শুরু করে দেন।  ফলস্বরূপ মাঝপথে দিশা হারিয়ে কাজ ছেড়ে দেন। আজকের এই আর্টিকেলেটা মূলত তাঁদের জন্যই। 

এছাড়াও যারা নতুন ব্লগিং শুরু করতে চাইতেছেন তাদের অবশ্যই এই SEO সম্পর্কে সঠিক ধারণা নিয়ে তবেই কাজে নামা উচিত।

আমরা আপনাদের সুবিধার্থেই এই আর্টিকেলে SEO নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করবো।

SEO কি? ( What is SEO In Bangla ) 

SEO এর পূর্ণরূপ হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (Search Engine Optimization)। SEO হচ্ছে এমন একটি কৌশল কিংবা প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে নিজের ওয়েবসাইটকে একটি নির্দিষ্ট কিওয়ার্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনের (যেমন; Google, Yahoo, Bing)  একদম প্রথম পৃষ্ঠায় কিংবা সর্বোচ্চ অবস্থানে নিয়ে আসা হয়।

তাহলে আমরা বলতে পারি, SEO কিংবা Search Engine Optimization হচ্ছে এমন একটি প্রযুক্তিগত কৌশল যার মাধ্যমে যেকোনো সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে ওয়েবসাইটের জন্য টার্গেটেড ফ্রী ট্রাফিক বা ভিজিটর আনা যায়।

আচ্ছা বলুন দেখি, একটা ওয়েবসাইটের সাফল্য কিসের উপর নির্ভর করে? হ্যাঁ  ঠিক ধরেছেন, ভিজিটরের উপর। আর এই ভিজিটর বাড়ানোর কাজই করে থাকে এই SEO। এসইও কি বুঝলেন তো!

যে ব্লগে এসইও অপ্টিমাইজড আর্টিকেল লেখার নিয়ম মেনে পোস্ট করা হয়, যে ওয়েবসাইটের SEO Score যতো ভালো, সার্চ ইঞ্জিন সেই ওয়েবসাইটকেই একদম প্রথম পেইজে নিয়ে আসে, যার মাধ্যমে ভিজিটরস বৃদ্ধি পায়।

সার্চ ইঞ্জিন কি? (What Is Search Engine) 

Search Engine  হচ্ছে মূলত একটি ওয়েব অনুসন্ধান ইঞ্জিন বা সফটওয়্যার প্রোগাম যা তথ্য জমা করে রাখে এবং প্রয়োজনের সময় সেই তথ্য প্রদান করে থাকে।

এখন প্রশ্ন আসতে পারে, সার্চ ইঞ্জিন কী করে কাজ করে? মনে করুন, আপনার একটি ওয়েবসাইট আছে। এখন যেকোনো সার্চ ইঞ্জিন বিশেষ করে গুগল আপনার ওয়েবসাইটের প্রত্যেকটা পেজ ভিজিট করে ডাটাবেজে তথ্য সংগ্রহ করে রাখে এবং পরবর্তীতে সার্চ করলে ইনডেক্সড ডাটা থেকে রেজাল্ট আমাদের সামনে চলে আসে।

যে ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট যতো বেশি সাজানো গোছানো এবং SEO ফ্রেন্ডলি সার্চ ইঞ্জিন সেই ওয়েবসাইটগুলোকেই প্রথম দিকে রাখে।

Search Engine Optimization কত প্রকার?

SEO এর প্রকারভেদ নিয়ে অনেকের অনেক মত রয়েছে। কাজের উপর ভিত্তি করে এসইও কে সাধারণত তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে

  1. হোয়াইট হ্যাট এসইও (White Hat SEO)
  2. ব্ল্যাক হ্যাট এসইও (Black Hat SEO)
  3. গ্রে হ্যাট এসইও (Gray Hat SEO)

চলুন এসব SEO সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জেনে নেয়া যাক;

হোয়াইট হ্যাট এসইও 

হোয়াইট হ্যাট SEO হলো এমন এক পদ্ধতি যে পদ্ধতিতে কোনো রকমের অসৎ উপায় অবলম্বন না করে সঠিক নিয়ম অনুসরণ করে কিওয়ার্ডকে ভালো অবস্থানে Rank করানো হয়।

যেকোনো ওয়েবসাইটকে রেঙ্ক করাতে আমি এই পন্থাকেই সাজেস্ট করবো। কারণ এই পদ্ধতিতে আপনার ওয়েবসাইটকে Rank করালে তা হবে দীর্ঘস্থায়ী। 

কাজের ধরনের উপর ভিত্তি করে White Hat SEO কে আবার দুইভাগে ভাগ করা হয়েছে।

১. অন পেইজ এসইও (On Page SEO)

একটি ওয়েবসাইটকে বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনে Rank করানোর জন্য অভ্যন্তরীণ যেসব কাজ করা হয় তাকে অন পেজ এসইও বলে।

মনে করুন, আপনার একটি দোকান আছে। এখন এই দোকানের ভিতরটাকে আপনি যতো সুন্দরভাবে সাজাবেন ক্রেতারা ততো আগ্রহ নিয়ে আপনার দোকানে আসবে।

অন পেজ এসইও টাও এমনই। আপনি আপনার কন্টেন্টকে যতো সুন্দরভাবে সাজিয়ে লিখতে পারবেন তার রেঙ্কিং ও ততো বাড়বে। অর্থাৎ একটা সুন্দর কিওয়ার্ড,  টাইটেল, কন্টেন্টের বডি পার্ট,  হেডিং ইত্যাদি যতো সুন্দরভাবে SEO ফ্রেন্ডলি করে লিখবেন ততো বেশি Rank হবে।

অন পেইজ এসইও আবার দুই প্রকার।

  1. টেকনিক্যাল এসইও (Technical SEO)
  2. পেইজ অপটিমাইজেশন (Page Optimization) 

২.  অফ পেইজ এসইও  (Off Page SEO)

প্রবাদ আছে না, প্রচারেই প্রসার? আর এই প্রসারই হলো Off page SEO এর কাজ।

অনপেজ-অফপেজ-এসইও

Off Page SEO বলতে বোঝায় যার মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের প্রচার এবং জনপ্রিয়তা বাড়াবেন।

এখন প্রশ্ন হলো, এই কাজটা কি করে করবেন? 

এর জন্য বিভিন্ন জনপ্রিয় ওয়েবসাইটে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের URL Share, Link Building ইত্যাদির মাধ্যমে  নিজের ওয়েবসাইটকে প্রচার করে ভিজিটর বৃদ্ধি করতে পারবেন।

ব্ল্যাক হ্যাট এসইও 

যে পদ্ধতিতে Search Engine  গুলোকে বোকা বানিয়ে কোনো ওয়েবসাইটকে Rank করানো হয় তাকে ব্ল্যাক হ্যাট এসইও বলে।

এই পদ্ধতিতে আপনি হয়তো আপনার ওয়েবসাইটকে সাময়িক সময়ের জন্য সার্চ ইঞ্জিনগুলোর একদম প্রথম পেইজে নিয়ে আসতে পারবেন। কিন্তু জানেন তো? অসৎ উপায় অবলম্বন করে খুব কম সময়ে সাফল্য আসলেও তা দীর্ঘস্থায়ী হয় না। তাই আমি বলবো, এই পদ্ধতি কে সম্পূর্ণভাবে এড়িয়ে চলার চেষ্টা করবেন।

গ্রে হ্যাট এসইও 

হোয়াইট হ্যাট এসইও এবং ব্ল্যাক হ্যাট এসইও  এর সংমিশ্রণে যে SEO গঠিত হয় তাই মূলত গ্রে হ্যাট এসইও।  একে সংকর SEO বলা যায়।

  •  ট্রাফিক বা ভিজিটরের উপর ভিত্তি করে এসইও কে দুইভাবে ভাগ করা হয়েছে। 

১. অর্গানিক এসইও ( Organic SEO )

যে পদ্ধতিতে বৈধ উপায়ে ওয়েবসাইটে ট্রাফিক বা ভিজিটর নিয়ে আসা হয় তাকে অরগানিক এসইও বলে। অন পেইজ এসইও এবং অফ পেইজ এসইও’ই হলো অর্গানিক SEO। 

২. নন-অর্গানিক এসইও ( Non-organic SEO )

যে পদ্ধতিতে সার্চ ইঞ্জিনগুলোকে টাকা দিয়ে ওয়েবসাইটেের জন্য ট্রাফিক বা ভিজিটর  নিয়ে আসা হয় তাকে নন-অরগানিক এসইও কিংবা পেইড SEO বলা হয়।

এ পদ্ধতিতে খুব দ্রুত নিজের ওয়েবসাইটকে Rank করানো যায়।

তবে এই পদ্ধতিতে সার্চ ইঞ্জিনগুলোকে আপনি যতোটুকু সময়ের জন্য টাকা দিবেন ঠিক ততেক্ষণই আপনার ওয়েবসাইটকে সার্চ ইঞ্জিনের প্রথম পেইজে রাখবে। তাই আমি অরগানিক এসইও কেই এক্ষেত্রে বেশি সাপোর্ট করি।

ওয়েবসাইটের জন্য SEO গুরুত্বপূর্ণ কেনো?

আপনারা ইতোমধ্যেই হয়তো বুঝে গেছেন এসইও’র কাজটা আসলে কী?  একটা ওয়েবসাইটের প্রসারের জন্য SEO  এতোটাই গুরুত্বপূর্ণ যে, SEO বিহীন ওয়েবসাইটকে শূন্য হস্তে যুদ্ধে নামা বুঝায়।

মনে করুন, আপনার একটি ওয়েবসাইট রয়েছে যাতে ‘গুগল এডসেন্স’ এপ্রুভাল পেয়ে গেছে। এখন এই ওয়েবসাইট থেকে ঠিক কিভাবে আপনার ইনকাম হবে বলুন দেখি? হ্যাঁ একদম ঠিক ধরেছেন, ভিজিটরসের মাধ্যমেই আপনার ইনকাম আসবে।

এখন প্রশ্ন হলো, এই ভিজিটরসদের কোথায় পাওয়া যাবে? বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনে তাই তো? আচ্ছা এবার বলুন তো, আপনি গুগলে কিংবা অন্য যেকোনো Search Engine  এ কোনো কিছু সার্চ করতে গিয়ে কোন ওয়েবসাইটগুলোতে ভিজিট করে থাকেন? নিশ্চয়ই সার্চ ইঞ্জিনের প্রথম পেইজে যে ওয়েবসাইটগুলো Show করে সেই ওয়েবসাইটগুলোতে। তাই তো?

একদমই তাই। আপনার মতোই প্রায় সবাই এই কাজটাই করে থাকেন। সার্চ ইঞ্জিনের একদম প্রথম পেইজে যে ওয়েবসাইটগুলো আসে মূলত প্রত্যেক ভিজিটর এই সাইটগুলোতেই ভিজিট করে থাকেন।

এখন প্রশ্ন হলো, যেকোনো সার্চ ইঞ্জিন কোন ওয়েবসাইটগুলোকে একদম প্রথম পেইজে রাখে? উত্তরটা হলো যে ওয়েবসাইটগুলোর SEO যতো বেশি ভালো ঐ পেইজগুলো।

এখন বুঝলেন তো, একটা ওয়েবসাইটের জন্য এসইও কতোটা গুরুত্বপূর্ণ? 

এসইও শেখার উপায়

SEO শেখার উপায়

এসইও শেখার দুইটা উপায় রয়েছে।  তা হতে পারে কোনো ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে কোর্স করে কিংবা অনলাইনের মাধ্যমে ভালো কোনো ওয়েবসাইট/ব্লগ, ইউটিউবের মাধ্যমে। 

তবে অনলাইন থেকে শিখতে চাইলে আপনার প্রচুর ধৈর্য এবং সময়ের প্রয়োজন পরবে। অপরদিকে যেকোনো ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে কম সময়ে শিখে নিতে পারবেন।

বর্তমানে এমন অনেক প্রতিষ্ঠান এবং অনলাইনে এমন অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে যারা সম্পূর্ণ ভুয়া। SEO সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞান না থাকার পরও তারা আপনাকে SEO শিখাতে  উদ্ভুদ্ধ করতে পারে। 

 তাই এমন প্রতিষ্ঠান বা ওয়েবসাইট থেকে আপনাকে বেছে নিতে হবে যারা প্রকৃতপক্ষেই SEO সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান রাখেন। অনলাইন কোর্স করার সাইট থেকে ফ্রিতেও প্রাথমিকভাবে শিখতে পারবেন। এরপর যাদেরটা ভালো লাগবে, চাইলে তখন পেইড কোর্স করবেন।

এসইও শিখে কিভাবে আয় করা যায়? 

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সং পেশায় এতো বেশি বিস্তৃত হচ্ছে যে, প্রায় সব কাজই করে আয় করা যায়। আর SEO পুরো ব্যাপারটাই অনলাইন ভিত্তিক। তাই চাইলেই আপনি SEO ‍শিখে আয় করতে পারবেন।

১. গুগল এডসেন্স 

আপনি যদি লেখালেখিতে দক্ষ হয়ে থাকেন তবে ওয়েবসাইট কিংবা ব্লগিংয়ে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনি যদি এসইও ফ্রেন্ডলি লিখা লিখতে পারেন তবে আপনার ওয়েবসাইটটি র্যাংক করিয়ে ট্রাফিক বা ভিজিটর বাড়িয়ে ইনকাম করতে পারবেন।

২. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং 

আপনার যদি একটি ভালোমানের এসইও ফ্রেন্ডলি ওয়েবসাইট থাকে তবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ভালোমানের আয় করতে পারবেন।

নিজের ওয়েবসাইটটিকে এসইও দ্বারা Rank করিয়ে আপনি অন্যের পণ্যকে নিজের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রমোট করিয়ে ঐ পণ্যের বিক্রি বাড়িয়েও ইনকাম করতে পারবেন।

৩. মার্কেটপ্লেস

আপওয়ার্ক,  ইল্যান্স, ফ্রিল্যান্সার, পিপল পার আওয়ার ইত্যাদি মার্কেটপ্লেসে প্রচুর ‍SEO এর কাজ রয়েছে। আপনিও নিজের দক্ষতার পরিচয় দিয়ে যোগ দিতে পারেন ফ্রিল্যান্সারদের দলে।

৪. অনলাইন ব্যবসা

আপনার নিজের কোনো অনলাইন ব্যবসা কিংবা ডিজিটাল পণ্য থাকলে সেটিকে SEOকরে সার্চ ইঞ্জিন দ্বারা প্রমোট করে বিশ্বের সব প্রান্তে ছড়িয়ে দিতে পারেন। এতে আপনার ব্যবসার প্রসারের সাথে সাথে বাড়বে আপনার ইনকাম।

এছাড়াও অনলাইনে এসইও’র আরো অনেক কাজ রয়েছে, যা করে আপনি ইনকাম করতে পারবেন ঘরে বসেই।

শেষ কথা

এসইও কিংবা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন একটি ওয়েবসাইটকে Rank করাতে খুবই প্রয়োজনীয় একটি মাধ্যম। SEO ফ্রেন্ডলি কন্টেন্ট সার্চ ইঞ্জিনে র্যাংক করাতে অতি আবশ্যকীয় একটি উপায়। তাই যারা নতুন ব্লগিং শুরু করতে চাইতেছেন তারা অবশ্যই প্রথমে SEO কি, কীভাবে অপ্টিমাইজড করতে হয় সম্পর্কে জেনে নিবেন।

আশা করি, আমাদের আজকের আর্টিকেল থেকে এসইও কি? এসইও কত প্রকার এবং সেসম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা পেয়েছেন।


Adrita Rakhi

জানার আগ্রহ আর লেখালেখির প্রতি ভালোবাসা থেকেই টুকটাক লেখালেখি করি।

2 Comments

Emdadul Haque · মে 21, 2021 at 10:05 পূর্বাহ্ন

খুব ভালো একটি পোস্ট ছিল। এবং অনেক বিষয় এখানে আপনি খুঁটিনাটি বোঝানোর চেষ্টা করেছেন l ধন্যবাদ আপনাকে এত সুন্দর একটা পোস্ট আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

    Abdullah · মে 21, 2021 at 2:17 অপরাহ্ন

    আপনার ভালো লেগেছে জানতে পারে আমিও আনন্দিত।

মন্তব্য করুন

Avatar placeholder

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 × 1 =

error: Content is protected !!